স্মার্টফোন হ্যাং করলে কি করবেন? [সমাধান]

0 127

আজকাল ফোন ছাড়া থাকা ভাবাই য়ায় না। অনেকে এই ফোনকে নিজের থেকেও বেশী যত্ন কিন্তু আপনার প্রিয় স্মার্টফোনটি যতদিন যায় তার চেহারা বদলাতে থাকে। স্লো হতে থাকে ফোন, জাঙ্ক ফাইল বাড়ে, স্টোরেজও কমে আসে। কিন্তু সামান্য কিছু পদ্ধতিতে ফোনটিকে আবার সেই নতুনের মতো করে ফেলা যেতে পারে।

ফোনের সফটওয়্যার সব সময় আপডেট রাখুন। অর্থাৎ গোটা অপারেটিং সিস্টেমকে আপডেট করতে বলা হচ্ছে। আইওএস বা অ্যান্ড্রয়েড যাই হোক না কেন, এটাকে যার যার অ্যাপ স্টোর থেকে আপডেট রাখতে হবে। নিয়মিত আপডেট না থাকলে ফোন স্লো হয়ে যাবে।

আনইনস্টল না করলে ফোনে অনেক অ্যাপ জমে যায়। এর মধ্যে অনেক আছে যা আগ্রহ নিয়ে ইনস্টল করেছিলেন, কিন্তু ব্যবহার করা হয় না। খুঁজে বের করুন সেইসব অ্যাপ, যা আর দরকার পড়ে না বা আপনি আর ব্যবহার করেন না। তাই শুধু শুধু ফোনের স্টোরেজ ভারি করে ফেলে দিন।

আইওএস এবং অ্যান্ড্রয়েড উভয় অপারেটিং সিস্টেমেই ব্যাকগ্রাউন্ডে কিছু অ্যাপ চালু অবস্থায় থাকে। কাজ শেষে আবার আগের স্থানে ফিরে যেতেই এ সুবিধা রাখা হয়। মনে করে কাজ শেষে এই কাজগুলো বন্ধ করে দিন। এতে র‍্যাম ফ্রি হয়ে যাবে।

অ্যান্ড্রয়েডের হোম স্ক্রিনে অনেক অপশন থাকে। উইডগেট যোগ করা যায়। এতে করে খুব সহজেই প্রয়োজনীয় অ্যাপে চলে যাওয়া সম্ভব। কিন্তু এদের ব্যবহারে হোম স্ক্রিনটি অগোছালো হয়ে ওঠে। তাই যার দরকার নেই, সেই আইকনগুলো হোম স্ক্রিনে রাখবে না।

যদি একটি অ্যাপ থেকে বেরিয়ে আরেকটি অ্যাপে যেতে ফোনটি স্লো কাজ করে, তবে অপারেটিং সিস্টেমে কাজ করতে থাকা কিছু অ্যানিমেশন কমিয়ে ফেলুন। লাইভ ওয়ালপেপার, অন্যান্য বিশেষ ছবি ইত্যাদি না ব্যবহার করাই ভালো।

অ্যাপ আনইনস্টল করলে এমনিতেই স্টোরেজ খালি হবে। এ ছাড়া টেম্পোরারি ফাইল নিয়মিত পরিষ্কার করুন। ব্রাউজার ও পরিষ্কার করুন। সেখানকার হিস্ট্রি পরিষ্কার করতে হবে নিয়মিত।

যখন ফোন কোনভাবেই স্পীড দিচ্ছে না, তখন আরো বড় পদক্ষেপ নিতে পারেন। একটা ফ্যাক্টরি রিসেট দিন। এতে সব পরিষ্কার হয়ে যাবে। তার আগে অবশ্যই ফোনের যাবতীয় তথ্য ব্যাকআপ করে নেবেন। নয়তো ঝামেলায় পড়ে যাবেন। ফ্যাক্টরি রিসেট দিলে ফোনটি একেবারে নতুনের মতো হয়ে যাবে।

উত্তর দিন