হ্যান্ডস অন রিভিউ : walton Primo R2 এক্সক্লুসিভ ( আশা করি কাজে লাগবে )

4 227

সম্মানিত পাঠকরা সবাইকে দিপাবলীর শুভেচ্ছা । আশা করি সবাই ভাল আছেন । আজ আমি আমার সদ্য কেনা walton Primo R2  এর রিভিউ টা লিখতে চলেছি । আশা করি এটা উপোভোগ করবেন ।

তবে রিভিউটা লেখার আগে কিছু মনের কথা না বলে শান্তি পাচ্ছি না ।
অনেক দিন ধরে ইচ্ছা ছিল যে একটা অ্যান্ড্রয়েড ইউজ করব । কিন্তু হয়ে ওঠে না । বন্ধু বান্ধবদের সবার এক একটা অ্যান্ড্রয়েড , তারা সবাই নিজেদের মধ্যে বিভিন্ন জিনিস শেয়ার করে , আর আমি জাভা ইউজ করার কারণে তা শুধু ফ্যাল ফ্যাল করে তাকিয়ে দেখি । অ্যান্ড্রয়েড যে আগে কিনতে পারতাম না , তা নয় । তবে টার্গেট ছিল কিনলে ভাল কনফিগারেশনের ফোনই কিনব । নোকিয়া লুমিয়া ও কেনার ইচ্ছা ছিল । কিন্তু এই সব সেটের দিকে তাকালে লুমিয়া আর ইউজ করতে ইচ্ছা করে না । কারণ এইসব সেটে ফিচার অনেক বেশী দেওয়া । হয়ত অনেক দিক থেকে ব্রান্ডের সেট গুলো এগিয়ে আছে । তবুও সিদ্ধান্ত নিলাম দেশী ফোনই কিনব । অনেকে হয়ত বলবেন , ওয়াল্টন তো চায়না । এই কথা শোনার কোন ইচ্ছা আজ আমার আর নেই । কারন বড় বড় কোম্পানীরাও চায়না থেকে সেট তৈরী করে নিয়ে এসে নিজের ব্রান্ডের নামে চালিয়ে দেয় । আর আজ এই সিম্ফোনী আর ওয়াল্টনের কারণেই বাংলাদেশের মানুষ আজ স্মার্টফোনের স্বাদ পেয়েছে ।এরা ছাড়া কোন কোম্পানী বাংলাদেশের মানুষের এই উপকার টা করেনি । এই ওয়াল্টন ও সিম্ফোনী আসার পরই এরা বাধ্য হয়ে দাম কমিয়েছে । বাংলাদেশে এখন ফোন বিক্রয়ের সূচকে ওয়াল্টন ২ নম্বরে ।

যাই হোক , এই সেট কেনার জন্য বহু দিন ধরে বহু মানুষের কাছে সাহায্য চেয়েছি কোন ফোনটা ভাল হবে তা জানার জন্য । অনেকেই সাহায্য করেছেন । এমন কি টেকটিউনসেও আমার ২ টি পোষ্ট আছে এ সম্পর্কিত । আর যারা আমাকে এই বিষয়ে সাহায্য করেছেন তাদের আন্তরিক ভাবে ধন্যবাদ । প্রথমে ইচ্ছা ছিল ওযাল্টনের ঘোষনা দেওয়া ট্যাব টা কেনার ইচ্ছা ছিল । তবে বাজারে না আসার কারণে আমার সেই ইচ্ছা ইচ্ছাই থেকে যায় ।যদিও এটি আজ বাজারে এসেছে । তবে , ট্যাবের থেকে এটার কনফিগারেশন কম নয় কোন অংশেই , বরং বেশী । তবে , আমার এই সেট টা কেনার সিদ্ধান্ত হয় রাসেল ভাইয়ের এই পোষ্ট টা দেখার পর । সেজন্য তাকে স্পেশাল থ্যাংকস । আপনারা একবার এই টিউনটি দেখে আসতে পারেন । এখন কিনে বুঝছি যে , কিনে ভুল করিনি কোন দিক থেকেই । তবে , এখানে আমি নিরপেক্ষ ভাবে এই ফোনটার দোষ গুণ সবই লেখার চেষ্টা করব । আসুন দেখে নিই এই ফোনটার আদ্যোপান্ত ।

আসুন প্রথমে দেখে নিই ফোনটার কয়েকটা অসাধারণ ছবি

সবগুলো ফটোই ওয়াল্টনের ওয়েবসাইট থেকে নেওয়া

এবার এর মেনুর একটা স্ক্রিনশট দেখুন :

কানেক্টিভিটি

এই ফোনটিতে 2G তো রয়েছেই , এছাড়া রয়েছে 3G ও । 3G বললে ভুল হবে। মূলত এটিতে রয়েছে 3.9 G টেকনোলজি । যার মাধ্যমে আপনি বর্তমানে সব অপারেটরে থ্রি জি সার্ভিস টি উপোভোগ করতে পারবেন । আর সবথেকে বড় সুবিধা হল , এই ফোনটিতে দুটি সিমেই থ্রি জি সাপোর্টেড , যেটা বেশীরভাগ ফোনে থাকে না । আমি মূলত টু জি নেটওয়ার্ক ই ইউজ করি । আর এই ফোনটাতে রয়েছে ওয়াইফাই , EDGE , GPRS । আপনি যদি চান তবে আপনার এই ফোনটা দিয়েই একটা ওয়াইফাই জোন তৈরী করতে পারবেন । এতে ওয়্যারলেস ডিসপ্লে শেয়ারিং এর ফিচার টাও রয়েছে । ফোনটাতে ব্রাউজিং স্পিডও বেশ ভালই পাওয়া যায় ।

ক্যামেরা

যদি এই ফোনের একটা ফিচারকে বেস্ট বলা যায় তবে সেটা হল এর ক্যামেরা । ফোনটিতে পেছনে ৮ মেগাপিক্সেল( যদিও ফোনে ১২ মেগাপিক্সেল সো করে ) ও সামনে ৩ (ফোনে ৫ মেগাপিক্সেল সো করে ) মেগা পিক্সেল ক্যামেরা রয়েছে । আর পেছনের ক্যামেরাতে রয়েছে Auto focus, face detector, LED flash, CMOS sensor । এর মধ্যে CMOS sensor এর কাজ হল মূলত ইমেজের নয়েজ কমানো , লক্ষ্যবস্তু যে রেঞ্জের মধ্যে রয়েছে , তার মধ্যে বেস্ট কোয়ালিটির ইমেজ প্রসেসিং, ক্যামেরা জুমিং ইত্যাদি । এছাড়া এ ক্যামেরাতে যে বিষয়টি সবথেকে ভাল সেটা হল BSI SENSOR , যেটা কম আলোতে ভাল মানের ছবি তুলতে সাহায্য করে । ক্যামেরাতে ফ্লাশ লাইট থাকার কারণে এর ক্যামেরার মাধ্যমে রাতের বেলাতেও কঠিন ছবি তোলা যায় ।
এর সামনের ক্যামেরাটিতে থ্রিজি ভিডিও কল সাপোর্ট করে । ইতি মধ্যে আমি এই ২ জি নেটওয়ার্কে স্কাইপ দিয়ে ২ দিন ভিডিও চ্যাট করেছি । যদিও এটা অনেক স্লো ।
ফোনটির ভিডিও কোয়ালিটি এক কথায় অসাধারণ । সুন্দর ও ক্লিয়ার ভিডিও করা যায় এটি দিয়ে । তবে কম আলোতে(মানে রাতে) ভিডিও একটু খারাপ আসে । আপনাদের জন্য আমি আমার ফোন দিয়ে বিভিন্ন সময়ে তোলা ছবি আপলোড করে দিলাম । এগুলো দেখলে আশা করি আপনাদের ক্যামেরা সম্পর্কে আরও ক্লিয়ার ধারণা হবে । আর ক্যামেরাতে তোলা ছবি যতই জুম করা হোক না কেন , কখনই ফাটবে না । এখানে আমি কয়েকটি ছবি দিলাম , তবে এই গুলো সেটের অরিজিনাল নয় । অরিজিনাল ছবির সাইজ হচ্ছে > ৪ মেগা ।আর ফ্রন্ট ক্যামেরায় প্রতিটা ছবি প্রায় ১ মেগা । তাই অরিজিনাল ইমেজ আপলোড করা দূরহ ব্যাপার হয়ে যাচ্ছে । তাই ফটোশপে সাইজ কমিয়ে আপলোড করলাম :


আমার বন্ধু কৌশিক(বিকাল বেলায় উঠানো ছবি)

আমার বন্ধু লিটন( রাতে এনার্জি বাল্ববের আলোয় তোলা ছবি)

আশিষ হরি( রাতের কুচকুচে অন্ধকারে তোলা ছবি)

কাজল কুমার ( বিকালে কপোতাক্ষ নদীর ব্রীজের উপর দাড়িয়ে তোলা ছবি)

আমি ও আমার ২ বন্ধু আমাদের বাড়ির বারান্দায় সন্ধার একটু আগে(ফ্রন্ট ক্যামেরা দিয়ে)

ভিডিও টাও আপলোড করতাম , কিন্তু কয়েক সেকেন্ডের ভিডিও অনেক বড় আকার ধারণ করছে বলে পারলাম না ।

ডিসপ্লে

এবার এই ফোনটার ডিসপ্লে এর বিষয়ে । এটাতে রয়েছে IPS(In-plane switching) ডিসপ্লে , এবং তার সাথে ক্যাপাসিটিভ টাচ স্ক্রিন । IPS এর মেন কাজ হল বেশ কয়েকটি । এর মধ্যে প্রধানতমগুলোই আপনাকে বলছি । এটি মূলত দ্রুত টাচ এর কাজ করার জন্য বহুলভাবে জনপ্রিয় । আমি ফোনটিতে টাচ করার সাথে সাথেই এটি রেসপন্স করে , যেটা আমি সনি এক্সপেরিয়া J মডেলটা ইউজ করেও পাই নি । এছাড়া এই স্ক্রিন এর ফলে আপনি যেকোন অ্যাঙ্গেল থেকে ডিসপ্লে ক্লিয়ার ভাবে দেখতে পাবেন । ভাল মানের ইমেজ সো করতেও এটি ব্যবহৃত হয় । তবে এই স্ক্রিন ব্যাবহারের ফলে চার্জ টা একটু টানে বেশী ।
আর ক্যাপাসিটিভ টাচ স্ক্রিন এর কথা আশা করি সবাই জানেন । এটা মূলত মানুষের হাতের স্পর্শ ছাড়া কাজ করে না ।
এর সাথে এই ফোনটিতে রয়েছে ১৬ M কালার । ফোনটির পিক্সেল ডেনসিটি হল ৩২০ DPI । যেটা আপনাকে সব কালারের সুন্দর একটা এক্সপেরিয়েন্স এনে দেবে ও ভাল মানের ইমেজ ও ভিডিও এবং সবকিছুই ভাল ভাবে ফুটিয়ে তুলবে । এই পিক্সেল ডেনসিটি সাধারণত এই দামের মধ্যে কোন ব্রান্ড তো দূরে থাকুক , ওয়াল্ট বা সিম্ফোনীর অন্য কোন সেটে পাবেন না বলে আশা করছি ।
ফোনটির ডিসপ্লে সাইজ হল ৪.৭ ইন্চি যেটা আপনাকে নেট ব্রাউজিং ও বিভিন্ন মুভি দেখতে সাহায্য করবে ।এছাড়াও এই বড় ডিসপ্লের কারণে আপনি পিডিএফ বই গুলো ভাল পড়তে পারবেন ও ভাল গেমিং করতে পারবেন । এবং ডিসপ্লে টা হল এইচ ডি । ফলে আমার এক্সপেরিয়েন্সটা ভালই হয়েছে এই পর্যন্ত । এর ডিসপ্লে রেজুলেশন হল ১২৮০*৭২০ ।

ডিসপ্লে এর প্রোটেকশনের জন্য এই ফোনটাকে রয়েছে কর্নিং গরিলা গ্লাস ২ । আমি নিজে ও আমার বন্ধুরা কিছুক্ষন ধরে এর ডিসপ্লে এর উপর নখ দিয়ে খুচিয়েও কোন দাগ করতে পারেনি । এর গরিলা গ্লাসটা খুবই ভাল ।

বাহ্যিক দিক

সেট টার বাহ্যিক দিক বলতে গেলে আপনারা ছবিতেই দেখতে পাচ্ছেন । তবুও ইউজার হিসেবে আমার অন্য রকম এক্সপেরিয়েন্স হবে নিশ্চই । তাই বলছি , ফোনটা বেশ বড় হওয়া সত্ত্বেও এটা ১ হাতে ধরে বেশ ভাল ভাবেই ইউজ করা যায় । আউট লুকটা যে খুব সুন্দর , তা বলব না । তবে ইউজ করে মজা আছে । পুরো বডি কালো হওয়ায় কিছুটা গুগল নেক্সাস এর মত লাগে । ফোনটির ডাইমেনশন হল : 138 X 71 X 10.5 mm ও ওজন মাত্র ১৬০ গ্রাম । ফলে আশা করি অপনি ফোনটা বেশ ভাল ভাবেই ইউজ করতে পারবেন । পকেটে রাখার জন্য একদম উত্তম ফোন ।

হার্ডওয়্যার

এতে মিডিয়াটেক ৬৫৮৯ চিপসেটের সাথে রয়েছে ১.২ গিগাহার্জ কোয়াড কোর কোরটেক্স এ – ৭ প্রসেসর । এই চিপসেট ও প্রসেসর এর বৈশিষ্ঠ হল এর মাধ্যমে কোন স্মার্টফোনে ডুয়াল সিম সাপোর্ট করে এবং একই সময়ে ২ টা সিমের কল রিসিভ করা যায় । এছাড়া এই চিপসেট কোন ফোনে থাকলে সেটাতে ১৩ মেগাপিক্সেল পর্যন্ত ক্যামেরা সাপোর্ট করে । এছাড়া এটি বেস্ট কোয়ালিটির ইমেজ প্রসেসিং ও উন্নত মানের ভিডিও প্লেব্যাক করতে সাহায্য করে । আর এই চিপসেটের সবথেকে অনন্য বৈশিষ্ঠ হল এটি একই সাথে ৪ রকম (802.11n Wi-Fi, BT4.0, GPS and FM radio ) ফিচার সাপোর্ট করে । এই কোরটেক্স এ – ৭ প্রসেসর প্রসেসরের অরেকটা অনন্য বৈশিষ্ঠ হল এটা খুবই দ্রুত কাজ করে , উচ্চ ক্ষমতা সম্পন্ন , কিন্তু ব্যাটারী ব্যায় করে খুবই কম । ফলে সেট কখনও গরম হয় না । আমি একটানা ২ ঘন্টা রেসিং গেম ” FAST RACING” টা খেলার পরও সেটা গরম হয়নি বললেও চলে । ফলে এই সেটটি অসেক হাই রেজুলেশনের গেমিং এর জন্য উপযোগী বলে আমার মনে হয় ।নিচে একটা গেমের স্ক্রিনশট দিলাম :

তবে এই ক্ষেত্রে একটা প্রতিবন্ধকতা হল র‌্যাম । হয়ত এটা অনেকের কাছে সমস্যা বলে মনে না হতেও পারে । কিন্তু আমার কাছে একটু সমস্যা বলে মনে হয়েছে । কারণ এই মানের প্রসেসরের সাথে খাপ খাওয়াতে গেলে অন্তত ২ জিবি র‌্যাম দেওয়া উচিৎ ছিল বলে আমি মনে করি । র‌্যাম ইউজার অ্যভেইলএভল হল ৯৭৬ মেগাবাইট । কোন অ্যাপ ওপেন না থাকলে ৫০০ মেগাবাইট + র‌্যাম খালি থাকে ও ৩ থেকে ৪ টা অ্যাপ ওপেন থাকা অবস্থায় ৩০০ মেগাবাইট + র‌্যাম ওপেন থাকে । মাঝে মাঝে ৩০০ মেগাবাইটের কম ও থাকে । এটা ব্যাবহার কারীর ব্যবহারের স্টাইলের উপরও অনেকটা নির্ভর করে ।

এই ফোনটাকে সেন্সর রয়েছে মোট ৩ টি । ( Accelerometer (3D), , Light sensor, Proximity) । এগুলোর কাজ আর বিস্তারিত ভাবে উল্লেখ করলাম না । আপনারা কেউ ইচ্ছা করলে এই খানে গিয়ে দেখে আসতে পারেন । সেন্সরগুলোর কোন সমস্যা আমি পাই নি । সব গুলোই ভাল মত কাজ করে । তবে সেন্সর আরও কয়েকটা বেশী দিলে ভাল হত । আরও বেশী কাজ করা যেত । যেমন , কম্পাস , ওরিয়েন্টেশন প্রভৃতি ।

ফোনটিতে রম রয়েছে মোট ৪ জিবি । তবে আমি ইউজ করতে পারছি ২ জিবি এর একটু বেশী । এতে এক্সটারনাল মেমরী কার্ড ইউজ করা যায় ৩২ জিবি পর্যন্ত ।
এর গ্রাফিক্স টা ভালই । এর গ্রফিক্স ইউনিটে রয়েছে PowerVR SGX 544MP । এটি আপনার 3D ভিডিও দেখা সহ বিভিন্ন হাই কোয়ালিটি গেম, ভাল মানের মুভি দেখা নিশ্চিত করবে । তবে , আমার মতে এটা সিঙ্গেল কোর এর বদলে ডুয়াল কোর দিলে আরও ভাল হত । তবে , আমার ইউজের সময় কোন সমস্যা দেয় নি । আমি এ পর্যন্ত আমার ফোনে সব রকমের ফরম্যাটের হাই রেজুলেশন ভিডিও প্লে করে দেখেছি । কোন সমস্যা ছাড়াই চলে । মোটামুটি সাইজের ( প্রায় ২৫০ মেগা পর্যন্ত) গেম খেলে দেখেছি । কোন সমস্যা ছাড়াই ভাল খেলা যায় ।

সাউন্ড

ফোনটিতে সাউন্ড কোয়ালিটি টা আমার মোটামুটি ভালই লেগেছে । তবে , ফোন এর স্পীকারে খুব একটা বেশী জোর নেই । ভীড় এর মাঝে বা মুটামুটি কোলাহল পূর্ন স্থানে থাকলে ভাল শোনা যায় না । তবে , হেডফোনটা দারুন । সাউন্ড কোয়ালিটি সুন্দর । গান শুনে বা সিনেমা দেখে মজা আছে । ফোনে কথা বলার সময় ও খুব সুন্দর শোনা যায় ।

ব্যাটারী , ব্রাউজার ও অন্যান্য

এই ফোনটিতে ব্যাবহার করা হয়েছে 2000mAH এর লিথিয়াম আয়ন ব্যাটারী , যেটা আপনার দীর্ঘ সময় স্টান্ডবাই নিশ্চিত করে । আমি সিম্পল প্রতিদিন ৪ ঘন্টা + নেট ব্রাউজিং ও ২০-২৫ টা কল করি । এছাড়া ক্যামেরা , গেমিং ও অন্যান্য অ্যাপস আরও ২ ঘন্টা । এতে এটি দেড় দিন চলে যায় যেটা অন্যান্য স্মার্টফোনের ক্ষেত্রে ভাবা কষ্টকর । আর নেট , গেমিং বাদ দিলে অনায়াসে ২ দিন চার্জ থাকে ।

এই ফোনটিতে রয়েছে HTML 5 ব্রাউজার , যেটি ওয়েবের লেটেস্ট সব ফিচার সাপোর্ট করে । এছাড়া এটি ফ্লাশ ও সাপোর্ট করে । এতে রয়েছে ব্লুটুথ 4.0 , যেটা আপনাকে উচ্চ গতিতে ডাটা ট্রান্সফারে সহায়তা করবে ।

দেখুন , সবশেষে আমি আমার ফোনের Antutu Benchmark এর টেষ্ট টা দিয়ে দিলাম । দেখুন আমার উপরের কথার সাথে মিল আছে কিনা ? যদিও এই টেষ্ট টা একই মডেলের সব ফোনে একরকম নাও হতে পারে ।
এখানে দেখুন , এই ডিভাইসটি স্যামস্যাং গ্যালাক্সী এস ২ এর থেকে বেশী স্কোর করেছে ।

যাই হোক , বর্তমানে এই ফোনটা নিয়ে আমি খুবই সুখে আছি । আপনাদের কেমন লাগল তা বলবেন । সবাই ভাল থাকবেন । ধন্যবাদ ।

রিভিউ লিখেছেন অরিন্দম পাল

4 মন্তব্য
  1. হামিদ খান বলেছেন

    thanks oneke janbe…

  2. মাহবুব আলম বলেছেন

    ধন্যবাদ

  3. দিপু রায়হান বলেছেন

    ভাল পোষ্ট,তবে পিক গুলো আরেকটু ছোট করে দিলে মনে হয় ভাল হত।

  4. মোঃ আসলাম পারভেজ বলেছেন

    সুন্দর পোস্ট ভাই শেয়ার করার জন্য ধন্যবাদ ।

উত্তর দিন