শুভ উদ্বোধন এয়ারটেল থ্রিজি ইন্টারনেট

6 113

মোবাইল অপারেটর হিসেবে থ্রিজি সেবা আনুষ্ঠানিক শুভ উদ্বোধন করলো এয়ারটেল বাংলাদেশ লিমিটেড। শুভ উদ্বোধনের পর সকাল সাড়ে ১১টায় ভিডিও কল করে এয়ারটেল কর্পোরেট অফিসে টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী সাহারা খাতুন থ্রিজি সেবার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন। আগামীকাল বৃহস্পতিবারের মধ্যে বনানী ও গুলশান-২ এলাকা থ্রিজি সেবার আওতায় আসবে বলে জানিয়েছেন এয়ারটেলের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ক্রিস টোবিট।

Airtel Bangladesh Ltd

এয়ারটেল সূত্রে জানা গেছে, চলতি অক্টোবর মাসে ঢাকা-চট্টগ্রামের কিছু এলাকা, নভেম্বরের মধ্যে সিলেটের কিছু এলাকা, ডিসেম্বরের মধ্যে ঢাকা, চট্টগ্রাম ও সিলেটের বাকি এলাকাগুলোতে থ্রিজি চালু করা হবে।

এছাড়া আগামী বছরের জানুয়ারির মধ্যে সব বিভাগীয় শহর এবং ২০১৪ সালের মধ্যে সারাদেশে থ্রিজি সেবা পৌঁছে দেবে এয়ারটেল।

২০১০ সালে টুজি সেবায় দেশব্যাপী এয়ারটেলের কভারেজ এরিয়া ছিল ২৫ শতাংশ। আর বর্তমানে এই কভারেজ এরিয়া ৮০ শতাংশে পৌঁছেছে।

এই সময়কালে ১২৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলার বিনিয়োগ করেছে এয়ারটেল। থ্রিজি সেবায় যতোটা প্রয়োজন ততোটাই বিনিয়োগ করা হবে বলেও এয়ারটেল সূত্রে জানা গেছে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি আবদুস সাত্তার, টেলিযোগাযোগ সচিব আবু বকর সিদ্দিক, বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের চেয়ারম্যান সুনীল কান্তি বোস, এয়ারটেলের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ক্রিস টোবিট উপস্থিত ছিলেন।

এয়ারটেলের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ক্রিস টোবিট বলেন, থ্রিজি সেবার মাধ্যমে গ্রাহকদের জন্য অবারিত এক দুয়ার খুলে যাবে।

ভিডিও কলিং, দ্রুত ডাটা ডাউনলোডিংসহ তথ্যপ্রযুক্তি ক্ষেত্রে ব্যাপক পরিবর্তন আসবে।

এয়ারটেলের প্রধান নির্বাহী বলেন, থ্রিজি পাওয়ার এয়ারটেলের অতিরিক্ত দায়িত্ব তৈরি করেছে। গ্রাহকদের আকাঙ্ক্ষা পূরণে আমরা সব সময়ই সচেষ্ট।

প্রসঙ্গত, গত ৮ সেপ্টেম্বর এয়ারটেল বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি) আয়োজিত নিলামে ৫ মেগাহার্টজ স্পেকট্রাম (তরঙ্গ) লাভ করে।

এয়ারটেল ছাড়াও গ্রামীণফোন, রবি ও বাংলালিংক থ্রিজি সেবা চালুর লাইসেন্স পেয়েছে।

এর মধ্যে গ্রামীণফোন ও রবি থ্রিজি সেবা চালু করেছে। রাষ্ট্রীয় মোবাইল অপারেটর টেলিটক আগেই পরীক্ষামূলকভাবে থ্রিজি সেবা চালু করেছে।

এই সেবা দেশের তথ্যপ্রযুক্তি খাতকে আরো বেগবান করবে এবং ভিশন ২০২১ বাস্তবায়নে সহায়ক হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী সাহারা খাতুন।

তিনি বলেন, এই প্রযুক্তির মাধ্যমে তথ্যপ্রযুক্তি বিশ্বে বাংলাদেশের অবস্থান আরো সুদৃঢ় হবে।

6 মন্তব্য
  1. আকাশ বলেছেন

    আকর্ষণীয় পোস্ট উপহার দেওয়ার জন্য ধন্যবাদ।

  2. নাঈম প্রধান বলেছেন

    সুন্দর পোস্ট । শেয়ার করার জন্য ধন্যবাদ।

  3. Nafiz Ur Rahman বলেছেন

    পোস্টটি শেয়ার করার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ ।

  4. লিটন হাফিজুর বলেছেন

    thanks for share

  5. হামিদ খান বলেছেন

    অনেক ধন্যবাদ, খুব সুন্দর পোস্ট

  6. banglap বলেছেন

    রাজশাহীর মতো শহর গুলো কি মোবাইল কোম্পানি গুলো মোটেই চোখে পড়ে না

উত্তর দিন