গ্রামীনফোন Grameenphone 3G ইন্টারনেট সম্পর্কিত প্রশ্নের উত্তর জেনে নিন ।

5 191

দেশের শীর্ষ মোবাইল গ্রামীনফোন শিঘ্রই 3G  ইন্টারনেট সেবা চালু করতে যাচ্ছে ,  3G ইন্টারনেট নিয়ে আমাদের রয়েছে বিভিন্ন কৌতূহল তাই গ্রামীনফোন 3G  ইন্টারনেট সংক্রান্ত সকল কৌতূহলের জবাব খুঁজে নিন ।

GrameenPhone 3G

3G কি?

ইন্টারনেট 3G হচ্ছে তৃতীয় প্রজন্মের ওয়ারলেস টেকনোলজি যা আপনাকে দেবে দ্রুতগতির ইন্টারনেট, মাল্টিমিডিয়া সার্ভিসেস ও ভিডিও কল করার সুবিধা। সব মিলিয়ে 3G আপনার মোবাইল ইন্টারনেট এক্সপেরিয়েন্সকে কয়েক ধাপ বাড়িয়ে দিবে।

3G এর সুবিধাগুলো কী কী?

চলার পথে 3G আপনাকে দিবে দ্রুত গতির ইন্টারনেট এবং ডাটা সার্ভিস। 3G এর মাধ্যমে আপনি ভিডিও কল করতে পারবেন এবং এমন সকল মাল্টিমিডিয়া সার্ভিস ব্যবহার করতে পারবেন যা কিনা 2G তে প্রযোজ্য নয়। 3G এর মাধ্যমে আপনি যা করতে পারবেন:

  • মাল্টিমিডিয়া স্ট্রিমিং এবং ডাউনলোড
  • দ্রুত গতির মোবাইল ব্রডব্যান্ড
  • ভিডিও কল
  • লাইভ টিভি
  • বড় ইমেইল অ্যাটাচমেন্ট দ্রুত ডাউনলোড সুবিধা
  • ভিডিও কল কনফারেন্স

3G কি 2G থেকে আলাদা?

হ্যাঁ, এটি 2G প্রযুক্তি থেকে আলাদা। সর্বাধুনিক হাই স্পিড প্যাকেট অ্যাকসেস (HSPA) টেকনোলজির উপর নির্ভর করে তৈরী হবে গ্রামীণফোনের 3G নেটওয়ার্ক। গ্রামীণফোনের 3G নেটওয়ার্ক আপনাকে দেবে দ্রুতগতির ইন্টারনেট, মাল্টিমিডিয়া সার্ভিসেস ও ভিডিও কল সহ 3G সার্ভিসের সুবিধা।

WCDMA ও HSPA এর মধ্যে পার্থক্য কী?

WCDMA ও HSPA উভয়ই দ্রুতগতির ইন্টারনেট প্রযুক্তি। তবে HSPA হলো WCDMA এর পরবর্তী প্রজন্ম।

  • WCDMA এমন একটি 3G টেকনোলজি যেটা শুধুমাত্র কম 3G স্পিড সাপোর্ট করে যা ভাল কাভারেজ এলাকায় সর্বোচ্চ ৩৮৪ Kbps। WCDMA বেশ খারাপ 3G এক্সপেরিয়েন্স দেয় HSPA ডিভাইস এর 3G এক্সপেরিয়েন্সের তুলনায়।
  • আমরা গ্রাহকদেরকে পরামর্শ দিচ্ছি সেরা 3G এক্সপেরিয়েন্স পাওয়ার জন্য তারা যেন HSPA- তে তাদের ডিভাইস আপগ্রেড করেন।
  • WCDMA সর্বোচ্চ ৩৮৪ kbps স্পীড দিতে সক্ষম। অপরপক্ষে, HSPA ২১.১ mbps (থিওরেটিকাল) স্পিডি দিতে সক্ষম।

3G সার্ভিস কি প্রিপেইড এবং পোস্টপেইড দু’টোতেই কাজ করবে?

হ্যাঁ, 3G সার্ভিস প্রিপেইড এবং পোস্টপেইড দু’টোতেই কাজ করবে এবং এক্ষেত্রে আপনার ভয়েস ট্যারিফ বা ভয়েস প্যাকেজে কোনো পরিবর্তন হবে না।

3G হাই স্পিড ডাটার জন্য পূর্বশর্ত কী?

3G হাই স্পিড ডাটার জন্য ৩টি পূর্বশর্ত:

(১) আপনার 3G এনাবল্ড ডিভাইস থাকতে হবে
(২) আপনাকে 3G নেটওয়ার্কের আওতায় থাকতে হবে
(৩) 3G কাভারেজ এরিয়ার মধ্যে থাকতে হবে

3G সামঞ্জস্যপূর্ণ মোবাইল হ্যান্ডসেট অথবা ডঙ্গল এ 3G ভ্যালু প্যাক ব্যবহার করে 3G নেটওয়ার্ক পাওয়া যায় এমন এলাকায় একজন গ্রাহক 3G এক্সপেরিয়েন্স করতে পারবেন।

3G ব্যবহার করার জন্য কি আলাদা কোনো SIM কার্ড দরকার?

না, আপনার চলমান SIM কার্ড দিয়েই 3G ভালভাবে ব্যবহার করতে পারবেন যদি আপনার 3G সামঞ্জস্যপূর্ণ হ্যান্ডসেট এবং গ্রামীণফোনের 3G নেটওয়ার্ক থাকে। দ্রুতগতির 3G ডাটা এক্সপেরিয়েন্স পেতে আপনাকে যেকোনো 3G ভ্যালু প্যাক এ সাবস্ক্রাইব করতে হবে।

3G সংক্রান্ত জিজ্ঞাসা এবং অভিযোগের জন্য আলাদা কোনো নম্বর আছে?

না, 3G সহ সকল সার্ভিস সংক্রান্ত সকল জিজ্ঞাসা এবং অভিযোগের জন্য আপনাকে গ্রামীণফোনের বর্তমান কাস্টমার কেয়ারে (১২১) কল দিতে হবে।

3G সার্ভিস ব্যবহার করার জন্য কী আলাদা হ্যান্ডসেট দরকার?

হ্যাঁ, 3G সার্ভিস ব্যবহার করার জন্য গ্রামীণফোন 3G নেটওয়ার্কের সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ 3G ফোন ব্যবহার করতে হবে, তবে আপনার হ্যান্ডসেট যদি ইতোমধ্যে 3G সামঞ্জস্যপূর্ণ হয়ে থাকে তাহলে আপনার নতুন ফোন কেনার দরকার নেই। বিভিন্ন রকম 3G হ্যান্ডসেটের রয়েছে ভিন্ন রকম স্পিড এর সামর্থ্য। আমরা আপনাদের পরামর্শ দিচ্ছি সেরা এক্সপেরিয়েন্স এর জন্য HSPA সম্বলিত হ্যান্ডসেট ব্যবহারের। যা 2.1 GH2 3G ব্যান্ড সমর্থন করে।

হ্যান্ডসেটটি 3G সামঞ্জস্যপূর্ণ কিনা তা জানবো কি করে?

যখন আপনি গ্রামীণফোনের 3G নেটওয়ার্কের আওতায় থাকবেন এবং আপনার হ্যান্ডসেটের স্ক্রিনের উপরের দিকে নেটওয়ার্ক সিগনাল বারের পরে “3G” অথবা “H” দেখাবে তার মানে আপনার ফোন 3G সামঞ্জস্যপূর্ণ এবং আপনি এই সার্ভিসটি উপভোগ করতে পারবেন। আপনাকে এটাও নিশ্চিত করতে হবে যে আপনার ফোনের সেটিং ‘2G only’ তে দেয়া নেই। বিকল্প উপায় হিসেবে আপনি আপনার হ্যান্ডসেট প্রস্তুতকারকের ওয়েবসাইট দেখতে পারেন অথবা আমাদের সাইটের থ্রিজি ডিভাইস পেজ-এ ভিজিট করে আপনার হ্যান্ডসেটের 3G ক্ষমতা নিশ্চিত করতে পারেন।

দুইরকম 3G হ্যান্ডসেট আছে – WCDMA (R99) এবং HSPA।

WCDMA (R99) একটি Low 3G ডিভাইস যা কম 3G স্পিড সাপোর্ট করে ৩৮৪ kbps পর্যন্ত স্পিড পেতে। HSPA ডিভাইস হাই স্পিড ডিভাইস যা 21.1 mbps পর্যন্ত যেকোনো কিছু সাপোর্ট করে। আমরা গ্রাহকদেরকে পরামর্শ দিচ্ছি সেরা 3G এক্সপেরিয়েন্স পাওয়ার জন্য যেন তারা WCDMA থেকে HSPA তে তাদের ডিভাইস আপগ্রেড করেন।

3G ফোনের দরকার হলে সেটা কী গ্রামীণফোন থেকে কিনতে হবে নাকি যেকোনো মার্কেট থেকে কিনলেই এটা চলবে?

না, এটা প্রয়োজনীয় নয় যে 3G ডিভাইসটি গ্রামীণফোন থেকেই কিনতে হবে, আপনি যেকোনো মার্কেট থেকেই এটি কিনতে পারেন। শুধু এটুক নিশ্চিত করে নিবেন যে ডিভাইসটি HSPA অথবা HSPA+ সামঞ্জস্যপূর্ণ যাতে আপনি গ্রামীণফোনের দ্বারা দ্রুতগতির ইন্টারনেট ব্যবহার করতে পারেন।

3G ব্যবহার করার জন্য ফোনে কি কোনো স্পেশাল সেটিংস দরকার?

গ্রামীণফোন 3G ব্যবহারের জন্য অতিরিক্ত কোনো সেটিংস দরকার পড়বে না, আমাদের স্ট্যান্ডার্ড ডাটা কনফিগারেশন (ইন্টারনেট সেটিংস) 3G অ্যাকসেস করার জন্য যথেষ্ট যদি আপনার যেকোনো 3G ডাটা প্যাক সাবস্ক্রাইব করা থাকে। যদি এরপরও কোনো সহযোগিতা দরকার পরে তাহলে দয়া করে আমাদের কল সেন্টারে যোগাযোগ করুন।

কী ধরনের প্ল্যান এবং সার্ভিস 3G অফার করছে?

ডিভাইস টাইপের উপর নির্ভর করে গ্রামীণফোন আপনার লাইফস্টাইলের সাথে মানানসই সহজ কিছু প্ল্যান এবং সার্ভিস অফার করছে। স্মার্টফোন, ট্যাবলেট অথবা মোডেম যাই হোক না কেন জিপি আপনার লাইফস্টাইলের সাথে মানানসই সবচেয়ে সেরা প্যাকটিই অফার করছে। আমাদের এই আকর্ষনীয় প্যাকেজ ৩টি তৈরী হওয়ার সাথে সাথে আপনাদের জানানো হবে।

গ্রামীণফোন 3G উপভোগ করুন ঝামেলামুক্ত ও নির্ভুল বিলের মাধ্যমে প্রতিটি 3G প্যাকেই রয়েছে নির্দিষ্ট সময় ব্যবধানে ব্যবহৃত ভলউমের পরিমাণ জানার জন্য ইন্টারনেট অ্যালার্ট ফিচার। এছাড়াও যেকোনো সময় কাস্টমার তার ইউসেজ সম্পর্কে জানার জন্য ব্যবহার করতে পারেন ফ্রি SMS/USSD/IVR/Web Based/Mobile App সার্ভিস।

আমি ইতোমধ্যে জিপি 2G প্যাক এ সাবস্ক্রাইব করে ফেলেছি (যেমন: ১GB, ১৫MB, স্মার্টপ্ল্যান) এটা কি 3G তে কাজ করবে?

না, 2G data pack দিয়ে 3G high speed experience করা যাবেনা। জিপির বেশি স্পিড এর আলাদা 3G প্যাক রয়েছে। যদিও আপনি 2G প্যাক ব্যবহার করছেন আপনাকে 3G প্যাক সাবস্ক্রাইব করতে হবে (ভায়া USSD/SMS), এরপর আপনি 3G এক্সপেরিয়েন্স উপভোগ করতে পারবেন। 3G তে আপগ্রেডের সময় সকল 2G অব্যবহৃত ভলিউম নতুন 3G প্যাকের সাথে যোগ হবে।

ভিডিও কল করার জন্য স্পেশাল কোনো হ্যান্ডসেট এর দরকার পড়বে নাকি আমি আমার চলতি 3G সামঞ্জস্যপূর্ণ সেটই ব্যবহার করতে পারবো?

ভিডিও কল করার জন্য আপনার হ্যান্ডসেটের ক্যামেরাটি ফোনের সামনের দিকে অর্থাৎ আপনার দিকে ফোন স্ক্রিনের ক্যামেরা থাকাটা অনেক গুরুত্বপূর্ণ, এই ধরনের ফোনের সাধারণত ডুয়েল ক্যামেরা থাকে এবং এটা ডুয়েল ক্যামেরা ফোন হিসেবেই বেশি পরিচিত। যদি আপনার হ্যান্ডসেটের সামনে উপরের দিকে ক্যামেরা আছে তাহলে আপনার নতুন সেট কেনার দরকার নেই। কিন্তু সেই সাথে এটাও জানা জরুরী, ফোনের সামনে ক্যামেরা থাকলেই ভিডিও কল করা যাবে এমন কোনো নিশ্চয়তা নেই। অনুগ্রহ করে কেনার আগে বিক্রেতাকে জিজ্ঞেস করে নিন সেট দিয়ে ভিডিও কল করা যাবে কিনা।

ভিডিও কল করতে কী পরিমাণ ডাটা ব্যবহার হবে?

ভিডিও কল গ্রামীণফোন 3G নেটওয়ার্কে ডাটা চ্যানেল ব্যবহার করে না কিন্তু ভয়েস চ্যানেল অ্যাকসেস করে যার ফলে আপনি কোনো ডাটা ইউসেজ কনজিউম করবেন না। কত মিনিট কথা বলা হয়েছে এর সাথে প্রতি মিনিটের video call রেট গুণ হয়ে আপনার বিল তৈরী হবে। video call service চালু হবার পর এই রেটটি জানানো হবে।

ভিডিও কলের জন্য কী পরিমাণ টাকা চার্জ করা হবে?

প্রতি মিনিটের উপর নির্ভর করে চার্জ হবে এবং সার্ভিসটি আরম্ভ হওয়ার পর রেট জানানো হবে।

3G ফোন এবং অন্য অপারেটরের 3G সার্ভিস ব্যবহার করে আমি কি অন্য অপারেটরে ভিডিও কল করতে পারবো?

না, এই মুহূর্তে ভিডিও কল শুধুমাত্র জিপি-জিপি কলের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য।

অন্য নেটওয়ার্কে রোমিং এ থাকাকালীন আমি কি ভিডিও কল করতে পারবো?

হ্যাঁ, অন্য নেটওয়ার্কে রোমিং এ থাকাকালীন আপনি সকল 3G সার্ভিস খুব সহজেই ব্যবহার করতে পারবেন যদি আমাদের ঐ নির্দিষ্ট অপারেটরের সাথে চুক্তি থাকে, তখন সহজেই ভিডিও কল করতে পারবেন। বিদেশে রোমিং অবস্থায় ভিডিও কল রেটটি অবশ্যই জেনে নেবেন।

রোমিং এ থাকাকালীন ভিডিও কলের জন্য কত খরচ পড়বে?

অন্য নেটওয়ার্কে রোমিং এ থাকাকালীন ভিডিও কলের সময় চার্জ রোমিং ট্যারিফ অনুযায়ী হবে।

ভিডিও কল করা এবং গ্রহণ করার জন্য দুই পক্ষেরই কি 3G ফোন এবং সার্ভিস থাকা জরুরী?

হ্যাঁ, ভিডিও কল করা এবং গ্রহণ করার জন্য দুই পক্ষেরই ডুয়েল ক্যামেরাসহ ভিডিও কল সাপোর্ট করে এমন 3G ফোন এবং গ্রামীণফোন 3G নেটওয়ার্ক থাকা জরুরী।

প্রয়োজনীয় হ্যান্ডসেট এবং গ্রামীণফোনের 3G নেটওয়ার্ক থাকার পরও ভিডিও কল করতে না পারলে আমি কী করব?

এই ক্ষেত্রে প্রথমে চেক করে নিতে হবে যাকে কল দিচ্ছেন তার কি ভিডিও কল সাপোর্ট করে এমন সেট আছে কিনা এবং সে গ্রামীণফোন 3G Service ব্যবহার করবেন কিনা। এরপরও যদি আপনি কল করতে না পারেন সেক্ষেত্রে আমাদের কাস্টমার কেয়ারে কল দিতে পারেন।

3G সার্ভিস ব্যবহার এবং দ্রুত গতির ইন্টারনেট ব্যবহার করার জন্য আমার হ্যান্ডসেটটা কি আমার পিসি অথবা ল্যাপটপে কানেক্ট করতে পারব?

ল্যাপটপ অথবা পিসি এর সাথে হ্যান্ডসেট কানেক্ট করাকে ‘tethering’ বলে। গ্রামীণফোন 3G নেটওয়ার্কের দ্রুত গতির ইন্টারনেট আপনার পিসি অথবা ল্যাপটপেও কানেক্ট করতে পারবেন যদি আপনার ডিভাইস ‘tethering’ সাপোর্ট করে।

3G ডাটা কার্ড/USB ডঙ্গলস বলতে কী বোঝায়?

3G ডাটা কার্ড বা modem বলতে সে সকল modem কে বোঝায় যেগুলো 2100 MH3 3G ব্যানড সাপোর্ট করে।

গ্রামীণফোন 3G নেটওয়ার্কে প্রযোজ্য এমন কী কী ভ্যালু অ্যাডেড সার্ভিস রয়েছে?

আমরা বিভিন্ন সার্ভিস ব্যবহার করার জন্য আকর্ষনীয় এবং সহজ ভ্যালু অ্যাডেড সার্ভিস শুরু করব।

3G এর মাধ্যমে ইন্টারনেট অ্যাকসেস এ আমি কী পরিমাণ স্পিড পাব?

  • সাবস্ক্রাইবার কোন স্পিড টায়ারটি ব্যবহার করছেন। গ্রামীণফোন দুইটি স্পিড টায়ার অফার করছে-৫১২ kbps অথবা ১ MBPS। স্পিড টায়ারের এভারেজ likely download speed পাওয়ার সম্ভাবনাই বেশি এবং সর্বোচ্চ স্পিড পাবেন এমন কোন নিশ্চয়তা নেই।
  • সাবস্ক্রাইবারের ব্যবহৃত ডিভাইসের উপর, যেহেতু একেক হ্যান্ডসেট একেক রকম স্পিড সাপোর্ট করে, যেমনঃ ৩৮৪ Kbps, ৩.৬ Mbps, ৭.২ Mbps অথবা ২১.১ Mbps।
  • অন্যান্য বিষয় যেমন ব্যবহারকারীর লোকেশন, BTS থেকে দূরত্ব, ব্যবহারের সময়, কোন সাইট/অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহার করা হয়েছে, নেটওয়ার্ক ট্রাফিক এবং ঐ নির্দিষ্ট সময়ে কতজন গ্রাহক ব্যবহার করছেন, এসব কিছুর উপরও স্পিড নির্ভর করে।

টু’জি-এর তুলনায় থ্রি’জিএর স্পিড কেমন?

গ্রামীণফোন 3G নেটওয়ার্কে সাবস্ক্রাইব করলে, আপনি অবশ্যই টু’জিএর তুলনায় বেশ ভালো স্পিড পাবেন। যতক্ষণ পর্যন্ত 3G কাভারেজের ভেতরে থাকেন।

3G কি সয়ংক্রিয়ভাবে আমার ভয়েস এর কোয়ালিটি ভালো করে দিবে?

টুজি থেকে 3G এর ভয়েস কোয়ালিটি কিছুটা ভালো হবে।

কখন গ্রামীণফোন বাংলাদেশে 3G সুবিধা চালু করবে?

গ্রামীণফোন ক্রমান্বয়ে এদেশে 3G সুবিধা চালু করবে। প্রযুক্তিগত উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ বিধিমালা অনুসরণ সাপেক্ষে যখন কোন এলাকা, শহর এবং জেলা কাভারেজের আওতায় চলে আসবে, সেটি আমাদের ওয়েবসাইট এবং আলাদাভাবে জানিয়ে দেয়া হবে।

যখন আমি 3G থেকে টুজি’তে মুভ করবো, তখন কি ঘটবে?

যখন কোনো ব্যবহারকারী 3G থেকে টুজি’তে মুভ করবেন, তখন গ্রামীণফোন 3G নেটওয়ার্কে প্রদত্ত সুবিধা, যেমন- ভিডিও কল, হাইস্পিড ইন্টারনেট ইত্যাদি ব্যবহার করতে পারবেন না এবং আগের মতো টুজি এর সুবিধাগুলোই উপভোগ করবেন। 3G থেকে টুজি’তে মুভ করলে এর ডাটা এবং ভয়েস সুবিধা কমে গিয়ে টুজি এর মত হবে। সেক্ষেত্রে ডাটা স্পিড কমে গিয়ে টুজি এর মত হবে। তবে Voice call বা data session বিঘ্নিত হবেনা।

3G সুবিধা পেতে আমাদের কি পরিমাণ মূল্য প্রদান করতে হবে?

3G সুবিধা চালু হওয়া মাত্রই আমরা আমাদের ট্যারিফ আপনাদের জানিয়ে দেবো। তবে ট্যারিফ যথেষ্টই সুলভ হবে, একথা নিশ্চিত করতে পারি।

অন্য নেটওয়ার্কে রোমিং করলে, 3G সুবিধা পেতে আমাদের কি পরিমাণ মূল্য প্রদান করতে হবে?

3G roaming চালু হওয়া মাত্রই আমরা আমাদের ট্যারিফ আপনাদের জানিয়ে দেবো। তবে ট্যারিফ যথেষ্টই সুলভ হবে, একথা নিশ্চিত করতে পারি।

ডিভাইস (হ্যান্ডসেট ও মডেম)

3G সুবিধা পেতে হলে কি আলাদা হ্যান্ডসেট ব্যবহার করতে হবে?

হ্যাঁ, গ্রামীণফোন এর 3G সুবিধা পেতে হলে অবশ্যই 3G এনাবল হ্যান্ডসেট থাকতে হবে। যদি আপনার বর্তমান হ্যান্ডসেটটি 3G Support করে, তবে আর নতুন হ্যান্ডসেটের প্রয়োজন নেই। বিভিন্ন 3G হ্যান্ডসেট ভিন্ন ভিন্ন স্পিড Capablity থাকে, সেক্ষেত্রে সর্বোচ্চ স্পিড সুবিধা পেতে আপনি এইচএসপিএ উপযোগী হ্যান্ডসেট ব্যাবহার করতে পারেন।

আমার হ্যান্ডসেটটি 3G উপযোগী কি না, সেটি কেমন করে জানবো?

আপনি গ্রামীণফোন 3G কাভারেজের মধ্যে থাকলে বা আসলে আপনার হ্যান্ডসেট স্ক্রিনের উপরে “3G” অথবা “H” লিখা প্রদর্শন করবে, তবে তা থেকেই আপনি বুঝতে পারবেন যে আপনার হ্যান্ডসেটটি 3G উপযোগী এবং আপনি এর সুবিধা উপভোগ করতে পারবেন। এছাড়াও আপনার হ্যান্ডসেটটি শুধুমাত্র “টুজি” উপযোগী কি না, সেটি অবশ্যই নিশ্চিত হয়ে নিতে হবে। বিকল্প পদ্ধতি হিসেবে গ্রামীণফোন ওয়েবসাইটে গিয়েও হ্যান্ডসেটের কনফিগারেশন চেক করা যাবে।

মূলত ২ ধরণের হ্যান্ডসেট পাওয়া যায়- WCDMA (R99) এবং HSPA.

WCDMA (R99) ডিভাইসগুলো 3G ডিভাইস, কিন্তু তা সর্বোচ্চ ৩৮৪কেবিপিএস স্পিডে 3G সুবিধা প্রদান করে থাকে। অপরপক্ষে HSPA হ্যান্ডসেট হাইস্পিড ডিভাইস এবং এগুলো ৩.৬ থেকে ৭.২ এমবিপিএস স্পিডে 3G সুবিধা প্রদান করে থাকে। অতএব সর্বোচ্চ সুবিধা পেতে আপনি HSPA হ্যান্ডসেট ব্যাবহার করতে পারেন।>

যদি আমি 3G হ্যান্ডসেট কিনতে চাই, সেক্ষেত্রে কি গ্রামীণফোন থেকে আমার হ্যান্ডসেটটি কিনতে হবে? অন্য কোথাও থেকে কিনলেও কি এটি ঠিকঠাক কাজ করবে?

গ্রামীণফোন থেকে আপনার হ্যান্ডসেটটি কিনতে হবে, এমন কোন বাধ্যবাধকতা নেই। আপনি যেকোনো যায়গা থেকেই HSPA কিংবা HSPA+ 3G হ্যান্ডসেট কিনেই গ্রামীণফোন নেটওয়ার্কের সকল 3G সুবিধা উপভোগ করতে পারবেন।

আমার ফোনে 3G ব্যাবহার করতে কি কোনো স্পেশাল কনফিগারেশন এর প্রয়োজন আছে?

না, 3G ব্যাবহার করতে কোনো স্পেশাল কনফিগারেশন এর প্রয়োজন নেই। আপনার ফোনে ইন্টারনেট সেটিংস ঠিক থাকলেই আপনি দীর্ঘ সময়ের জন্য 3G সুবিধা উপভোগ করতে পারবেন। আরও বিস্তারিত জানতে আমাদের কল সেন্টারে যোগাযোগ করুন।

ভিডিও কল এর জন্য আলাদা কোনো হ্যান্ডসেটের প্রয়োজন আছে কি? অথবা, বর্তমান 3G ডিভাইস দিয়ে কি আমি এই সুবিধা পেতে পারি?

ভিডিও কল এর ক্ষেত্রে হ্যান্ডসেটের সামনে এবং পিছনে দুইটি আলাদা আলাদা ক্যামেরা থাকাটা জরুরী। যদি আপনার হ্যান্ডসেটে ইতিমধ্যে এই সুবিধা থাকে, তাহলে নতুন কোনো হ্যান্ডসেটের প্রয়োজন নেই। যদিও সামনের দিকে ক্যামেরা থাকা মানেই সেটি ভিডিও কল এর জন্য উপযোগী তা নয়। তাই অনুগ্রহপূর্বক ভিডিও কল এর সুবিধা পেতে 3G হ্যান্ডসেট ক্রয় এর পূর্বে আপনার নিকটস্থ বিক্রেতাকে জিজ্ঞেস করে নিশ্চিত হয়ে নেবেন।

3G ডাটা কার্ড/ USB Dongles কি?

3G ডাটা কার্ড/ USB Dongles এমন একটি ডিভাইস যার মাধ্যমে যেকোনো সময় এবং যেকোনো জায়গা থেকে Internet/ Email এক্সেস করা যায়। কোন তার, Fixed Line সাইবার ক্যাফ বা Hot spot Internet এর প্রয়োজন নেই। আপনার Laptop-ই আপনাকে পূর্ণ স্বাধীনতা দিবে।

আমার বর্তমান জিপি মডেমটি কি 3G তে কাজ করবে?

যদি মডেমটি অক্টোবর ২০১০ এর পরে কেনা হয়, তাহলে এটিতে 3G এর সুবিধা পাওয়া যাবে। নিচের গ্রামীনফোন মডেমগুলোতে 3G সুবিধা পাওয়া যাবে (পূর্বে বিক্রিত)।

নেটওয়ার্ক

গ্রামীণফোন অন্যান্যদের থেকে কেন সেরা?

জিপি 3G সার্ভিস আপনাকে দ্রুতগতির ইন্টারনেট সুবিধা দিবে যা আপনার মোবাইল ব্যবহারে নতুন মাত্রা যোগ করবে।

আমরা অন্যদের থেকে সেরা, কারন:

  • বিস্তৃত কাভারেজ: জিপি’র ইতিমধ্যে সারাদেশে বিস্তৃত কাভারেজ রয়েছে এবং আমরা যথাসম্ভব আমাদের 3G সুবিধা ছড়িয়ে দিতে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ।
  • নিরবিচ্ছিন্ন অভিজ্ঞতা: আমাদের 3G সুবিধাটি অনেক এডভান্সড একটি টেকনোলজি- যা আপনাকে সর্বোচ্চ গতি এবং এক্সেস এর সুবিধা দিবে। এর IP RAN ট্রান্সপোর্ট টেকনোলজি দ্বারা জিপি 3G সকল এলাকায় একইসাথে ডাটা আদান-প্রদানে মান বজায় রাখতে সক্ষম।
  • মোবিলিটি: দেশব্যাপী বিস্তৃত নেটওয়ার্কের কারণে, গ্রামীণফোন 3G আপনাকে নিরবিচ্ছিন্ন এবং বিরতিহীন সুবিধা প্রদানে সক্ষম। যদি আপনি আমাদের 3G কাভারেজ থেকে বেরিয়ে যান, সেক্ষেত্রে কোনো ঝামেলা ছাড়াই EDGE তে ফিরে আসবেন।
  • সাশ্রয়ী প্যাক: আপনার চাহিদা অনুযায়ী গ্রামীণফোন এর বেশকিছু সাশ্রয়ী ডাটা প্যাক এবং স্মারটপ্ল্যান রয়েছে। জিপি 3G এর সাথে নিজের স্মার্টফোন দিয়ে আপনি ইচ্ছেমতন মোবাইল লাইফস্টাইল এনজয় করতে পারবেন।

আমাদের শক্তিশালী ডিস্ট্রিবিউশন, রিটেইল স্টোর এবং জিপি কেয়ার আপনাকে সর্বোত্তম সেবা দিতে প্রস্তুত।

কি ঘটবে, যখন আমি 3G থেকে টুজি তে স্থানান্তরিত হবো?

যখন কোনো ব্যবহারকারী 3G থেকে টুজি’তে move করবেন, তখন গ্রামীণফোন 3G নেটওয়ার্কে প্রদত্ত কিছু সুবিধা, যেমন- ভিডিও কল, হাইস্পিড ইন্টারনেট ইত্যাদি থেকে বঞ্চিত হবেন এবং এখনকার মতো টুজি এর সুবিধাগুলোই উপভোগ করবেন। যদি 3G থেকে টুজি’তে মুভ করার সময় ভয়েস কল সুবিধা অন থাকে, তাহলে তা বহাল থাকবে। ডাটা সুবিধার ক্ষেত্রেও একই কথা প্রযোজ্য। 3G কাভারেজ থেকে বেরিয়ে আসলে কোনো ঝামেলা ছাড়াই (ডাটা কিংবা ভয়েস সেশনে কোনো পরিবর্তন আসবেনা) টুজি কাভারেজ সুবিধা পাবেন। সেক্ষেত্রে ডাটাস্পিডও টুজি এর মতই হবে।

সার্ভিস

3G সার্ভিস কি প্রিপেইড এবং পোস্টপেইড দুটোর জন্যই প্রযোজ্য?

হ্যাঁ, 3G সার্ভিস প্রিপেইড এবং পোস্টপেইড দুটোর জন্যই প্রযোজ্য।

আমার কি আলাদা সিম কার্ড ব্যবহারের প্রয়োজন আছে?

না, আপনার বর্তমান সিম কার্ড দিয়েই 3G সার্ভিস পাওয়া সম্ভব, যদি আপনার 3G উপযোগী হ্যান্ডসেট থাকে এবং আপনি গ্রামীণফোন 3G নেটওয়ার্কে যুক্ত থাকেন। এক্ষেত্রে আপনাকে কোনো একটি 3G ভ্যালু প্যাক এ সাবস্ক্রাইব করতে হবে। যদি ব্যবহারকারী ২০০৩ সালের পূর্ব থেকে সিমটি ব্যবহার করেন, তাহলে তিনি চাইলেই বিনামূল্যে সিমটি 3G তে রিপ্লেস করে নিতে পারেন।

3G সার্ভিসের অনুসন্ধান কিংবা অভিযোগ এর জন্য কি আলাদা কোনো হেল্পলাইনের দরকার আছে?

না, 3G সার্ভিসের অনুসন্ধান কিংবা অভিযোগ এর জন্য গ্রামীণফোন এর হেল্পলাইনে কল করলেই হবে।

ভিডিও কল করলে আমার কতখানি ডাটা খরচ হবে?

ভিডিও কলের ক্ষেত্রে কোনো ডাটা খরচ হবেনা, কিন্তু প্রতি মিনিটে নির্দিষ্ট রেট অনুযায়ী বিল আসবে। সার্ভিস চালু হলে আমরা এই কলরেট জানিয়ে দিব।

ভিডিও কলে কত চার্জ প্রদান করতে হবে?

প্রতি মিনিটে নির্দিষ্ট রেট অনুযায়ী বিল আসবে। সার্ভিস চালু হলে আমরা এই কলরেট জানিয়ে দিব।

3G ফোন এবং 3G সার্ভিস সমৃদ্ধ অন্য কোনো অপারেটরে কি ভিডিও কল করা যাবে?

না, প্রাথমিকভাবে শুধুমাত্র জিপি টু জিপি ভিডিও কল করা যাবে।

ইন্টারনেট সারফিং এর সময় কি ভিডিও কল করা যাবে?

হ্যাঁ, আমাদের এডভান্সড 3G নেটওয়ার্কের মাধ্যমে ইন্টারনেট সারফিং এর সময়ও ভিডিও কল করা যাবে। গ্রামীণফোনের উন্নত নেটওয়ার্কের জন্য ইন্টারনেট ও ভয়েস কল একই সাথে চালানো যাবে।

কিভাবে জানবো যে আমি ভিডিও কল রিসিভ করেছি?

ফোন নিজেই ইনকামিং ভিডিও কল হিসেবে এটি প্রদর্শন করবে।

3G তে ডাউনলোডিং এবং আপলোডিং স্পিড কেমন?

3G তে ডাউনলোডিং এবং আপলোডিং স্পিড কেমন হবে সেটি হ্যান্ডসেট, কি ডাউনলোড হচ্ছে এবং নেটওয়ার্ক স্ট্যাটাসের উপর নির্ভর করে।

আমি 3G তে আছি কি না, সেটি কিভাবে জানবো?

3G নেটওয়ার্কের আওতায় থাকলে আপনার 3G হ্যান্ডসেটটিতে একটি নির্দিষ্ট আইকন প্রদর্শিত হবে “M” অথবা “3G”।

যদি 3G নেটওয়ার্কে আসার পরও আপনার 3G এনাবল ডিভাইসে 2G নেটওয়ার্ক Show করে, তবে নীচের পদ্ধতি অনুসরণ করুন।

  • Network Selection এ যান
  • UTMS অথবা 3G সিলেক্ট করুন

অন্যান্য

বাণিজ্যিকভাবে চালু হবার পূর্বে কাস্টমারগণ কি কোন ফ্রি ট্রায়াল এর সুযোগ পাবে?

হ্যাঁ, বানিজ্যিকভাবে চালু হবার পূর্বে কাস্টমারগণ ফ্রি ট্রায়াল এর সুযোগ পাবে।

বাণিজ্যিকভাবে চালু হবার সময় স্পিড কেমন হবে?

এটি চালু হবার সময় জানিয়ে দেয়া হবে।

বাণিজ্যিকভাবে চালু হবার সময় কয়টি 3G প্যাকেজ থাকছে?

এটি চালু হবার সময় জানিয়ে দেয়া হবে।

3G প্যাকেজ এর মূল্য কেমন হতে পারে?

মূল্য এখনও ঠিক করা হয়নি। এটি চালু হবার সময় জানিয়ে দেয়া হবে।

কাস্টমার কিভাবে এই 3G প্যাকেজ একটিভ করবে?

কাস্টমার USSD, SMS, E care, Mobile App এর মাধ্যমে এই 3G প্যাকেজ একটিভ করতে পারবে।

EDGE ব্যবহারকারীগণ কি 3G তে মাইগ্রেট করতে পারবে?

হ্যাঁ, EDGE ব্যবহারকারীগণ 3G তে মাইগ্রেট করতে পারবে।

কিভাবে কাস্টমার ম্যানেজার 3G প্যাকেজের ডিটেইল চেক করবেন?

CRM এ সবকিছুই প্রদর্শিত হবে।

টুজি থেকে কি 3G তে ভলিউম ফরোয়ার্ড হবে?

হ্যাঁ, টুজি থেকে 3G তে মাইগ্রেট করলে ভলিউম ফরোয়ার্ড হবে।

টুজি স্মার্টপ্ল্যান এর ভলিউম কি 3G ভলিউম প্যাকে ফরোয়ার্ড হবে?

না, টুজি স্মার্টপ্ল্যান এর ভলিউম 3G ভলিউম প্যাকে ফরোয়ার্ড হবে না।

তথ্যসুত্রঃ Grameenphone

5 মন্তব্য
  1. Nafiz Ur Rahman বলেছেন

    দপোস্টটি শেয়ার করার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ ।

  2. লিটন হাফিজুর বলেছেন

    thanks for share

  3. হামিদ খান বলেছেন

    thanks for share

  4. নাঈম প্রধান বলেছেন

    শেয়ার করার জন্য অনেক ধন্যবাদ।

  5. B Islam বলেছেন

    ধন্যবাদ শেয়ার করার জন্য …।

উত্তর দিন