!!! লেটেস্ট নিউজ !!! বাজারে ঝড় তুলতে আসছে এলজি জি২ !!

5 194

READ MORE

সম্প্রতি এলজি নতুন স্মার্টফোন এর ঘোষণা দিয়েছে যার নাম এলজি জি২। এলজি স্মার্টফোন মার্কেটে অ্যাপল,স্যামসাং এর সাথে পাল্লা দিয়ে বেশ শক্ত অবস্থানেই আছে। কিন্তু সাম্প্রতিক সময়ে রিলিজ পাওয়া মটোরোলার এক্স কিংবা স্যামসাং গ্যালাক্সি এস৪ এর সাথে পাল্লা দেবার জন্য একটা চমক এলজির জন্য দরকার ছিল আর সেই চমকটিই জি২। অসাধারণ পারফরমেন্স, চোখ ধাঁধানো ডিসপ্লে বা মানানসই ক্যামেরা কি নেই এতে। নিঃসন্দেহে বাজারের অন্যতম সেরা অ্যান্ড্রয়েড ফোন হতে যাচ্ছে এলজির জি২।

a

এটিই প্রথম বাণিজ্যিক ভাবে ব্যবহারের জন্য কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৮০০ প্রসেসর যুক্ত ফোন যা সারা দুনিয়া জুড়ে বিক্রির জন্য এলজি রিলিজ করতে যাচ্ছে। শুধু যে প্রসেসর তা কিন্তু নয়,এর ফুল এইচডি ৫.২ ইঞ্চি ডিসপ্লে এবং ১৩ মেগাপিক্সেল ক্যামেরাও জি২কে অন্যমাত্রা দিয়েছে। তবে সবচেয়ে বড় চমকটি এলজি দেখিয়েছে এর ডিজাইনে। অন্যান্য স্মার্টফোনের বাটন সামনে এবং পাশে থাকলেও এলজি জি২ তে সব বাটন স্মার্টফোনের পিছনে দিয়ে দিয়েছে। কেন দিয়েছে সেটা আমরা একটু পরেই জানব। চলুন এবার একটু বিস্তারিত বলা যাক।

১. ডিসপ্লে ও ডিজাইনঃ

a

এলজি জি২ এর দৈর্ঘ্য ৫.৪৫ ইঞ্চি,২.৭৯ ইঞ্চি চওড়া এবং এর পুরুত্ব .৩৫ ইঞ্চি। এলজি জি২ এর বডি ফিনিশিং গ্লসি হওয়ায় সহজেই আঙ্গুলের ছাপ বডিতে পড়তে পারে যা একটি খারাপ দিক। এছাড়া আর দশটা বড় আকৃতির স্মার্টফোনের মতো এই ফোনটিও ঠিকভাবে ধরতে এবং অপারেট করতে বেশ বেগ পেতে হবে। আপনি কখনই একভাবে সেটটি ধরে রেখে পুরো স্ক্রিন জুড়ে সেটটি চালাতে পারবেন না। ফলে হাতের গ্রিপ আপনাকে বারবার চেঞ্জ করতে হবে। এই সমস্যাগুলো আসলে অনেকটা ব্যক্তির উপর নির্ভর করে বলে এগুলোকে আসলেই সমস্যা বলা যায় নাকি সেটা নিয়ে বিতর্ক থাকতে পারে।

a

যাই হোক, সেটটির অন্যতম আকর্ষণীয় দিক এর ডিসপ্লে। এতে ৫.২ ইঞ্চি ফুল এইচডি আইপিএস ১৯২০*১০৮০ পিক্সেল রেজুলেশনের ডিসপ্লে রয়েছে যার পিক্সেল ডেনসিটি ৪২৩পিপিআই। অর্থাৎ অসাধারণ কালার, ঝকঝকে ছবির পাশাপাশি ওয়াইড ভিউয়িং অ্যাঙ্গেলের কারণে আপনি মুভি দেখা থেকে শুরু করে গেম খেলা প্রায় সব কাজ খুব ভালভাবে করতে পারবেন। আর সূর্যের আলোতে আপনার ডিসপ্লে দেখতে কোন সমস্যাই হওয়ার কথা না। তবে খুব সহজেই ডিসপ্লেতে আঙ্গুলের ছাপ পড়ে যায় বলে তা যথেষ্ট বিরক্তির কারণ হতে পারে।

২.ক্যামেরাঃ

এলজি জি২ এর ক্যামেরা লুমিয়া ১০২০ এর মতো হয়ত ততোটা ভাল না তবে যথেষ্টই ভাল বলা যায়। স্যাফায়ার ক্রিস্টাল গ্লাস লেন্সের এই ক্যামেরা লো লাইট ও আউটডোরে বেশ ভাল ছবি তুলতে পারে। ছবি যেকোন কন্ডিশনেই কালারফুল এবং সবগুলো অব্জেক্টকেই বেশভালভাবে ফোকাসে রাখতে পারে। এছাড়া এর ক্যামেরা দিয়ে ফুল এইচডি ভিডিও রেকর্ডিং করা যায় যার মান অসাধারণ। স্মুথ ভিডিও রেকর্ডিং ও ন্যাচারাল সাউন্ডের কারণে আপনি এই সেটকে খুব সহজেই পার্সোনাল হ্যান্ডি ক্যাম হিসেবে ব্যবহার করতে পারবেন।
a

তবে ক্যামেরার সবচেয়ে আকর্ষণীয় দিক হলো অপটিক্যাল ইমেজ স্ট্যাবিলাইজেশন। অনেক ফোনের ক্যামেরাতে এই সুবিধা থাকলেও জি২ এর মতো এত ভাল ইন্টিগ্রেশন আর কোন ক্যামেরা বোধহয় করতে পারেনি। আপনি দৌড়ানো অবস্থায় ছবি তুললেও ছবি অবিশ্বাস্য রকম শার্প এবং এতে আপনি কোন মোশন ব্লার দেখতে পাবেন না। এছাড়া জুম করা অবস্থায়ও ওআইএস বেশ ভাল পারফর্ম করে। নিচের ছবিটি দৌড়ানোর সময় তোলা হয়েছে।

a

৩.হার্ডওয়্যার ও পারফরমেন্সঃ

a

আগেই বলেছি এলজি জি২ তে ২.২৬ গিগাহার্জ কোয়াড কোর স্ন্যাপড্রাগন ৮০০ প্রসেসর আছে যা এই মুহূর্তে সেরা প্রসেসর। ২ জিবি এলপিডিডিআর৩ ৮০০ মেগাহার্জ র‍্যামের পাশাপাশি এতে ৩২ জিবি ননএক্সপান্ডেবল ইন্টারনাল স্টোরেজ রয়েছে। এছাড়াও গ্রাফিক্স হ্যান্ডেল করার জন্য এর প্রসেসর ডেডিকেটেড জির‍্যাম ব্যবহার করে থাকে। গেম খেলার জন্য একদম আদর্শ ডিভাইস বলতে যা বোঝায় জি২ ঠিক তাইই।

a

তবে ইন্টারনাল স্টোরেজ জি২ এর প্রতিদ্বন্দ্বীদের তুলনায় কমই বলা যায়। যেখানে গ্যালাক্সি এস৪ এর ১৬/৩২/৬৪ জিবি স্টোরেজ ও মাইক্রোএসডি সাপোর্টসহ তিনটি মডেল পাওয়া যায় সেখানে এলজি জি২ এর ৩২ জিবি স্টোরেজ এই ধরণের হাই এন্ড সেটের জন্য কমই বলা যায়। এর ব্যাটারি ৩০০০mAh এবং এটি নন রিমুভেবল ফলে আপনি ব্যাটারি নষ্ট হয়ে গেলে পরিবর্তন করতে পারবেন না।

জি২তে অ্যান্ড্রয়েড ৪.২.২ জেলিবিন অপারেটিং সিস্টেম রয়েছে। সাধারণ ইন্টারনেট ব্যবহার বা গেম খেললে এই সেটটিতে প্রায় দেড় দিন চার্জ থাকে। শুনতে কম বলে মনে হলেও আপনি স্মার্টফোনে এর চেয়ে বেশি ভাল ব্যাটারি ব্যাকআপ হয়ত আশা করতে পারেন না। সুপার ফাস্ট প্রসেসর এবং ভাল র‍্যামের কারণে অ্যাপ লঞ্চ কিংবা মাল্টি টাস্কিং খুব সহজ ও স্মুথলি করতে পারবেন। দেখা গেছে এই সেটটি প্রায় ৩০ সেকেন্ডে স্টার্ট এবং রিস্টার্ট হতে পারে। আসলে এই সেটে এত ভাল কনফিগারেশন দেয়া হয়েছে যে তাতে পারফরমেন্স কেমন হবে এই নিয়ে প্রশ্ন করাটাই অস্বাভাবিক!

কথা হলো কি কি বিষয় জি২ কে অন্য স্মার্টফোন থেকে আলাদা করেছে?

১. দারুন প্রসেসর।
২. সকল ফিজিক্যাল বাটন সেটের পিছনে। এতে আপনি হয়ত ইউজ করতে কিছুটা সমস্যায় পড়তে পারেন তবে ফিজিক্যাল বাটন পিছনে থাকাকেই এলজি স্বাভাবিক বলে মনে করেছে।

a

৩. কিছু জেসচার কন্ট্রোল ও ফিচার যেমন নকঅন,স্লাইড এসাইড, ক্লিপ ট্রে, অ্যান্সার মি এবং গেস্ট মোড।
৪. অডিও জুমিং- আপনি যেকোন ভিডিও চলার সময় ভিডিওর যেকোন অডিও সোর্সের সাউন্ড বন্ধ করে দিতে পারবেন। যেমন ধরুন একটি ভিডিওতে তিনজন লোক কথা বলছে। আপনি সবার কথা বন্ধ করে দিয়ে একজনের কথা শুনতে পারবেন বা যেকোন মানুষ/অডিও সোর্সের সাউন্ড বন্ধ করে দিতে পারবেন।
৫. ডুয়াল রেকর্ডিং- আপনি একই সাথে ফ্রন্ট ও রিয়ার ক্যামেরা ব্যবহার করে একটি ভিডিও রেকর্ড করতে পারবেন।

a

৬. কুইক রিমোট- আপনি এই ফিচারের মাধ্যমে আপনার স্মার্টফোনকে টিভি,ডিভিডি প্লেয়ার কিংবা প্রজেক্টরের ইউনিভার্সাল রিমোট হিসেবে ব্যবহার করতে পারবেন।

এলজি জি২ নিঃসন্দেহে স্মার্টফোন বাজারে ঝড় তুলতে যাচ্ছে। এই স্মার্টফোনের হয়ত কিছু সমস্যা আছে তবে তা মোটেই গুরুতর কিছু নয়। পারফরমেন্স যেখানে এত ভাল সেখানে এইসব ছোটখাট সমস্যা মাফ করে দেয়া যায় কি বলেন? তবে এলজি জি২ কে মটো এক্স, গ্যালাক্সি এস৪ এর সাথে তীব্র প্রতিযোগিতার মুখে পড়তে হবে। তবে বিশেষজ্ঞরা আশা করছেন জি২ এলজিকে হতাশ করবেনা। দেখা যাক কাস্টমাররা জি২কে কিভাবে গ্রহন করেন। এলজি জি২ আগামী ১২ সেপ্টেম্বর আমেরিকায় রিলিজ পাচ্ছে।

ফেসবুক ফ্যান ফেইজ থেকে তথ্য পেতে ক্লিক করুন ঃ এইখানে

5 মন্তব্য
  1. হামিদ খান বলেছেন

    thanks for ur share

  2. আকাশ বলেছেন

    পোস্টটি উপহার দেওয়ার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ। 🙂

  3. Nafiz Ur Rahman বলেছেন

    শেয়ার করার জন্য ধন্যবাদ…

  4. লিটন হাফিজুর বলেছেন

    thanks for share

  5. নাঈম প্রধান বলেছেন

    ছবি গুলো রি সাইজ করুন ।

উত্তর দিন