কী-ওয়ার্ডের সঠিক ব্যবহার ও বাছাইকরণ ২য় অংশ ।”SEO টিউটোরিয়াল” [পর্ব-৪]

3 154
This entry is part 8 of 18 in the series এসইও | Search Engine Optimization

শুরু করছি সার্চ ইন্জিন অপটিমাইজেশন (SEO) নিয়ে আমার ধারাবাহিক পোষ্ট “SEO টিউটোরিয়াল”।আজ থাকছে SEO টিউটোরিয়াল এর ২য় পর্বের কী-ওয়ার্ডের সঠিক ব্যবহার ও বাছাইকরণ ২য় ও শেষ অংশ।

কিভাবে ব্যবহার করবেন কী-ওয়ার্ড

কী-ওয়ার্ড সম্পর্কে আমরা মোটামুটি একটা ধারণা পেয়েছি।এখন দেখা যাক কিভাবে এই কী-ওয়ার্ড ব্যবহার করবেন।কী-ওয়ার্ড আপনি ২ ভাবে ব্যবহার করতে পারেন।যেমন

  • ১।মেটা ট্যাগের মাধ্যমে
  • ২।সাইটের কনটেন্ট বা আর্টিকেল এর মাধ্যমে।

আসুন নিচে থেকে আরো বিস্তারিত জেনে নেয়া যাক।

১।মেটা ট্যাগের মাধ্যমে

ওয়েব সাইট ডিজাইনের সময় আমরা অনেক ধরনের মেটা ট্যাগ নিয়ে কাজ করি।এর মধ্যে
< meta name=”keywords” content=”some keyword,another keyword” />
এই ট্যাগটি “মেটা কী-ওয়ার্ড ট্যাগ” নামে পরিচিত।এই মেটা কী-ওয়ার্ড ট্যাগ দ্বারা আপনি আপনার সাইটের কী-ওয়ার্ড ব্যবহারের কাজ করতে পারবেন।এ জন্য আপনি আপনার সাইটের HTML এডিটর পেজে গিয়ে <head> ও </head> ট্যাগ এর মধ্যে আপনার বাছাই করা কী-ওয়ার্ডটি বসিয়ে দিন।

ব্যাস হয়ে গেল আপনার সাইটে মেটা ট্যাগ ব্যবহার করা।আরো অনেক মেটা ট্যাগ আমরা সাইটে ব্যবহার করে থাকি ।এসব ট্যাগের ব্যবহার জানতে এই টিউনটি আপনারা দেখতে পারেন।তবে মেটা ট্যাগ ও কী-ওয়ার্ড এর ব্যবহারের বেশ কিছু নিয়ম বা টিপস মেনে চলা উচিত।ড়তে করে আপনি আরো ভালো ফলাফল পেতে পারেন।যেমন:

  • ১।আপনর সাইটের যে কী-ওয়ার্ডটির উপর ভিত্তি করে বানাবেন সেই কী-ওয়ার্ডটি যেন আপনার মেটা কী-ওয়ার্ড ট্যাগে ৩ বারের বেশি না থাকে।
  • ২।আপনার সাইটে মেটা কী-ওয়ার্ড ট্যাগ ব্যবহার করুন সর্বোচ্চ ১ বার।
  • ৩।মেটা কী-ওয়ার্ড ট্যাগে একটি কী-ওয়ার্ড বার বার না লিখে অন্য ভাবে তা লেখার চেষ্টা করুন,যেমন প্রথমে যদি লেখেন Download hindi movie hindi movie তা হলে সেটাকে একটু ঘুরিয়ে নিয়ে download hindi movie বা আরএকটু পরিবর্তন করে download hindi movie online করে নিতে পারেন।
  • ৪।কী-ওয়ার্ড এর বানান যেন কোনমতেই ভুল না যায় সেদিকে কড়া নজরদারি রাখতে হবে।যেমন বুশ লাদেন কে নজরদাড়িতে রেখেছিল :)
  • ৫।প্রতিটি কী-ওয়ার্ডের পর একটি করে কমা(,) ব্যবহার করুন.

তারপর আপনি আপনার বাছাই করা কী-ওয়ার্ড গুলো অন্যান ট্যাগে ব্যবহার করুন।যেসকল ট্যাগে আপনি আপনার কী-ওয়ার্ড ব্যবহার করতে পারেন সেগুলো হলো:

  • ১।description- Meta Tag
  • ২।Titel – Meta Tag
  • ৩।author- Meta Tag

২।সাইটের কনটেন্ট বা আর্টিকেলের মাধ্যমে

আমরা অনেক মনে করি যে সার্চ ইন্জিন গুলো কেবল মেটা ট্যাগ নিয়ে সাইট ইনডেক্স করে।অনেক আবার এ ও মনে করেন যে মেটা কী-ওয়ার্ড ট্যাগ ব্যবহার না করলে হয়তো সাইট ইনডেক্স হবে না,ভালো ফল পাবে না ইত্যাদি ইত্যাদি।তাই তাদের জন্য বলছি মেটা কী-ওয়ার্ড ট্যাগটি সার্চ ইন্জিনের জন্য অবশ্যই গুরুত্বপূর্ণ।কিন্তু তা মানে এই নয় যে সাইট ইনডেক্স হবে না কিংবা সাইট ইনডেক্স হলেও ভালো ফল পাওয়া যাবে না।মেটা কী-ওয়ার্ড ট্যাগটি সার্চ ইন্জিনের ক্রাউলিং করার কাজকে অনেক সহজ করে দেয়।যেমন আপনি যদি একটি বই পড়ার সময় বইয়ের সূচিপত্র দেখে কোন তথ্য খোজ করেন তা সহজেই আপনি খুজে পাবেন।আর মেটা কী-ওয়ার্ডটি আপনার সাইটের সূচিপত্রের মত কাজ করে।যেটা থাকলে সার্চ ইন্জিন গুলোর কাজ করতে সুবিধা হয়।তো আসল কথায় আসি,

আপনি যখন আপনার সাইটের কোন কনটেন্ট বা আর্টিকেল লিখবেন তখন আপনি যে সকল শব্দ ব্যবহার করবেন তাই হল কী-ওয়ার্ড।তাই আপনার বাছাই করা কী-ওয়ার্ড এর উপর ভিত্তি করে আপনার কনটেন্ট বা আর্টিকেল লিখুন।এটাই আপনার প্রথম কাজ।তাছাড়া অন্যান টিপস গুলো হলো….

  • ১।প্রথমে আপনি আপানর বাছাই করা কী-ওয়ার্ড গুলোর একটা খসড়া তালিকা তৈরী করুন।এই খসড়া তালিকায় কী-ওয়ার্ড গুলো আপনার পছন্দ আনুসারে সাজান।
  • ২।আপনার বিষয় বস্তুর সাথে কোন কী-ওয়ার্ডটি বেশি মানায় সেটা নির্বাচন করুন।
  • ৩।আপনি আপনার কনটেন্ট বা আর্টিকেল লেখার সময় কী-ওয়ার্ড ব্যবহারের উপর জোর দিন।
  • ৪।আপনি আপনার বাছাই করা কী-ওয়ার্ডটি আপনার লেখা কনটেন্ট বা আর্টিকেলের প্রথম ২০০টি শব্দের মধ্যে রাখুন।এটা কিন্তু খুবই গুরুত্বপূর্ণ।এতে করে সার্চ ইন্জিন অপটিমাইজেশনে অনেক ভালো ফল পাওয়া সম্ভব।
  • ৫।শুধু মাত্র ১ টি কী-ওয়ার্ড নিয়ে পড়ে থাকবেন না।একই ধরণের কী-ওয়ার্ড গুলো ঘুরিয়ে ফিরিয়ে ব্যবহার করার চেষ্টা করুন।

গুগল সহ অন্যান সার্চ ইন্জিন কিন্তু কনটেন্ট বা আর্টিকেলে দেয়া কী-ওয়ার্ড গুলোর দিকে বেশি নজর দেয়,যা মেটা ট্যাগের চেয়ে অনেক গুন বেশি

কিভাবে? আসুন দেখে নিই

মনে করুন আপনি গুগল সার্চ ইন্জিনে গিয়ে সার্চ করলেন “download indian movie” লিখে।এর পর যে সাইট গুলো আসবে তার পাশে লেখা “Cached” এ ক্লিক করুন।

তারপর গুগলের Cached করা সাইটের পাতাটি আপনার সামনে হাজির হবে।

সেখানে তারা মার্কিং করে দেখাবে যে সাইটে আপনার দেয়া কী-ওয়ার্ড গুলো কেমন ভাবে তারা ব্যবহার করেছে।

তো বুঝলেন সাইটের কনটেন্ট বা আর্টিকেলে আপনি যদি আপনার সার্চ কী-ওয়ার্ড ব্যবহার না করেন তাহলে কেমন ফল আপনি পেতে পারেন।

আজ এই পর্যন্তই।আশা করি আপনারা কী-ওয়ার্ড সম্পর্কে এই দুই টিউনে অনেক কিছু জানতে পেরেছেন।আপনাদের কাজে আসলেই আমার চেষ্টা সার্থক হবে।আর যদি আরো কিছু জানার থাকে তাহলে আমাকে মোবাইল বা মেইল করতে পারেন।আমি চেষ্টা করবো সে সকল সমস্যার সমাধান করে দিতে।তো সবাই ভালো থাকবেন ।ধন্যবাদ।

আগামী পর্বে যা থাকছে

আমার সার্চ ইন্জিন অপটিমাইজেশন (SEO) নিয়ে ধারাবাহিক টিউন “SEO টিউটোরিয়াল” এর ৩য় পর্বটি সাজানো হবে অন-পেজ অপটিমাইজেশন (On-page Optimaizetion) নিয়ে।যেটা সার্চ ইন্জিন অপটিমাইজেশন (SEO) জন্য খুব খুব খুবই গুরুত্বপূর্ণ।তো আশা করি মিস করবেন না।

SEO নিয়ে লিখা আমার আগের  পর্ব গুলো- ১ম , ২য়  ৩য়   আমার ওয়েব সাইট-www.sojibrahman.com

 

Series Navigation<< আপডেট গুগলকে খুশি রেখেই এসইও করুন ।অন-পেজ অপটিমাইজেশন কি,কেন কিভাবে এর ২য় অংশ। SEO টিউটোরিয়াল [পর্ব-৬] >>
3 মন্তব্য
  1. নাঈম প্রধান বলেছেন

    শেয়ার করার জন্য ধন্যবাদ।

  2. Nafiz Ur Rahman বলেছেন

    THanks for shareing…….

  3. Nafiz Ur Rahman বলেছেন

    THanks for shareing

উত্তর দিন