আসুন জেনে নিই এন্টিভাইরাস ব্যবহারের পাঁচফোড়ন এবং সেই সাথে থাকছে ৩৬৫ দিনসহ দক্ষিণ এশিয়ার বিশ্বখ্যাত এন্টিভাইরাস ব্যবহারের সুবর্ণ সুযোগ !!! কেউ মিস করবেন না যেন…………….!!!

11 197

dd22আসসালামু আলাইকুম। আশা করি সম্মানীত ভিজিটর বন্ধুরা আপনার সবাই ভাল আছেন। আলহামদুলিল্লাহ আমিও ভাল আছি। আজকের পোস্টটি করব এন্টিভাইরাস সম্পর্কে কিছু অজানা তথ্যবলী নিয়ে এবং সেই সাথে থাকছে দক্ষিণ এশিয়ার বিশ্বখ্যত এন্টি ভাইরাস ব্যবহারের সুবর্ণ সুযোগ। অবশ্য পোস্টের শিরোনাম দেখে তা অনুভব করাটা বেশী একটা কষ্টকর নই। যাইহোক এর মধ্যে অনেকেই আগ্রহের কমতি ছিলনা কি সম্পর্কে পোস্ট করব এবং এন্টিভাইরাস হিসাবে কোন ব্যান্ডের প্রোডাক্ট থাকছে। আজ সেই অবসানের সমাপ্তি ঘটাতে যাচ্ছি। তবে মূল পোস্টের আলোচনা শুরু করার পূর্বে ভিজিটর বন্ধুসহ সকলের কাছে অনুরোধ আমার এই পোস্টটি একটু ধৈর্য্য সহকারে সম্পূর্ণভাবে পাঠ করে শেষ করবেন। অতপর কারও কোন কমেন্ট থাকলে তা পেশ করবেন।

ব্যাস এবার মূল আলোচনাতে ফিরে যাচ্ছি। গতদিনের পোস্টের শেষের দিকে আমি আপনাদের উদ্দেশ্য বেশ কয়েকটি প্রশ্ন করেছিলাম। অবশ্য যারা উক্ত পোস্টটি দেখতে মিস করেছেন তারা এই লিংকটি অনুসরন করলেই হবে।

পূর্ববর্তী পোস্ট

তবে উক্ত প্রশ্নাবলীর তেমন কোন সদুত্তর পাইনি। অনেকেই কমেন্ট করেছেন বা নিজস্ব মতামত পেশ করেছেন। সেই জন্য সবাইকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি।

গত পোস্টে আমি যে সকল প্রশ্ন করেছিলাম এখন নিজে প্রশ্ন গুলোর উত্তর প্রদান করব। এ উত্তর গুলো আমি ২/৩ মাস ধরে বিভিন্ন সিকিউরিটি বিষয়ক সাইট, ইংরাজী ম্যাগাজিন ও ব্লগ থেকে সংগ্রহ করেছি। আশা করি প্রশ্নোত্তর গুলো আমায়-আপনার সহ অনেকের উপকারে আসবে বলে মনে করি। তবে প্রশ্নের উত্তর দেয়ার পূর্বে এক নজর প্রশ্নাবলী দেখে নিই-

Animated_Avatar_2_by_Spielehorst

১। একটি ভাইরাস কি একই সাথে সব জায়গায় সমান আক্রমন করে?

২। কোন ভাইরাস আক্রান্ত ফাইল কে এন্টিভাইরাস শুধু Clean করলে উক্ত ফাইল বেশি ভাগ সময় আর কাজ করে না কিন্তু উক্ত ভাইরাস আক্রান্ত ফাইল কে এন্টিভাইরাস যদি Clean & Repair করে তবে সেই ফাইল পূর্বের মতোই কাজ করে। এখন বলুন কোন এন্টিভাইরাসটি ভালো যেটা Clean করে নাকি যেটা Clean &Repaire করে?

৩। আমাদের দেশের কম্পিউটার যে সব ভাইরাসে বেশি আক্রান্ত হয়, USA, UK, Australia এসব উন্নত দেশের কম্পিউটার ও কি সেসব ভাইরাসে ততটা আক্রান্ত হয় ?

৪। USA, UK, Australia এসব দেশের ইউজাররা যেসব সাইটে বেশি প্রবেশ করে আমরাও কি করি?
৫। আমাদের দেশ সহ দক্ষিন এশিয়ার অন্য দেশের কম্পিউটার গুলো যেসব ভাইরাসে বেশি আক্রান্ত হয় তার ডাটা কি USA এর একটি এন্টিভাইরাস কম্পানির কাছে বেশি থাকবে নাকি দক্ষিন এশিয়ার কোন এন্টিভাইরাস কম্পানির কাছে বেশি থাকবে?

৬। আপনি কোন ব্যান্ডের এন্টিভাইরাস ব্যবহার করছেন? কেন এটি আপনার কাছে প্রিয়?

এবার উত্তর গুলো জেনে নিই:

১ নং প্রশ্নের উত্তরঃ

আমাদের দেশের কম্পিউটার গুলো যেসব ভাইরাসে বেশি আক্রান্ত হয় USA, UK, Australia এর মতো দেশে ততটা হয় না, এর অনেক কারন আছে । সেগুলো হলো আমরা যে সাইট গুলো তে বেশি বিচরন করি তারা করে না। এছাড়া ইদানিং আমাদের দেশের কিছু সোনার টুকরা ছেলে যারা কিনা কম্পিউটার সায়েন্স এর মতো বিষয়ে পড়া শুনা করে শুধু মাত্র মজা করার জন্য বা প্র্যাকটিস করার জন্য পুরাতন ভাইরাস কোড গুলোকে ব্যবহার করে নতুন কিছু ভাইরাস তৈরী করছে। শুধু তৈরীই করছে না, সেই সাথে পেন ড্রাইভ, বিভিন্ন দেশী সাইটে এ্যড করে, ব্লগে দেয়া সফটওয়্যারের সাথে, ফাইল শেয়ারিং সাইটে আপলোড, পাইরেটেড সফটওয়্যারের সিডিতে কপি এর মতো বিভিন্ন পদ্ধতিতে তা আমাদের কম্পিউটারে ছড়িয়ে দিচ্ছে। আর এ ভাইরাস সহ ফাইল গুলো অনেকে না বুঝে ডাউনলোডও করে নিচ্ছে। সফটওয়্যার পেলেই হল ডাউনলোড শুরু। সফ্টওয়্যার টা আদৌ তার কাজে লাগবে কিনা, সফটওয়্যারটা নিরাপদ কিনা ভাবে না। ফলে হাজার হাজার কম্পিউটার আক্রান্ত হচ্ছে এমন ভাইরাস দিয়ে যেগুলোকে এন্টিভাইরাস ডিটেক্ট করে না । আমাদের দেশের 5 ভাগ ব্যবহারকারী বাদে বাকি সবাই চুরি করে বিকল্প ভাবে বিভিন্ন এন্টিভাইরাস ব্যবহার করি ফলে বিভিন্ন উন্নত দেশের এন্টিভাইরাস প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান আমাদের দেশের এসব ভাইরাস নিয়ে খুব একটা মাথা ঘামায় না কারন আমাদের দেশে তারা কোন ব্যবসা করতে পারে না।

২ নং প্রশ্নের উত্তরঃ

কোন ভাইরাস আক্রান্ত ফাইল কে এন্টিভাইরাস শুধু Clean করলে উক্ত ফাইল বেশির ভাগ সময় আর কাজ করে না কারন ভাইরাস উক্ত ফাইলের আভ্যন্তরীন লিংক গুলোতে যুক্ত হয়ে যায় আর এন্টিভাইরাস শুধু Clean করলে ভাইরাস কোডটা মুছে দেয় কিন্তু ফাইলের আভ্যন্তরীন লিংক গুলো যুক্ত করে দেয় না। ভাইরাস আক্রান্ত ফাইল কে এন্টিভাইরাস যদি Clean & Repaire করে তবে সেই ফাইল পূর্বের মতোই কাজ করে কারন এ ক্ষেত্রে এন্টিভাইরাস ফাইলের আভ্যন্তরীন লিংক গুলো পূর্বের মতো যুক্ত করে দেয় এর এটা করার প্রয়োজনীয় ডাটা এন্টিভাইরাসের ডাটাবেসেই থাকে।

৩ নং প্রশ্নের উত্তরঃ

একটি ভাইরাস এক সাথে সব জায়গায় সমান আক্রমন করে না এর কারন অনেক ভাইরাস লেখক বিশেষ কিছু শ্রেনীর ব্যবহারকারী, দেশ, বা সাইটের ক্ষতির উদ্দ্যেশে ভাইরাস ছাড়ে। আবার অনেকে পুরো পৃথিবীর কম্পিউটারের ক্ষতির উদ্দ্যেশেও ভাইরাস তৈরী করে। যেমন কিছুদিন আগে প্রথম আলো সাইটে প্রবেশ করলে আমাদের কম্পিউটার একটি বিশেষ ভাইরাসে আক্রান্ত হচ্ছিল যদিও দু একটি( এভাস্ট ) বাদে অন্যান্য এন্টিভাইরাস এটিকে ডিটেক্ট করতে পারেনি। এখন দেখা যাচ্ছে প্রথম আলো শুধুমাত্র আমরা যারা বাঙ্গালি অর্থাৎ বাংলাদেশের এবং ভারতের পশ্চিম বাংলার বাংলা ভাষা ব্যবহার কারীরা পড়ি। এটা বোঝা যায় যে এ ভাইরাসটি শুধু বাঙ্গালিদের উদ্দ্যেশে তৈরী করা হয়েছিল। অন্য ভাষা ব্যবহার কারীরা যেহেতু এই সাইটে প্রবেশ করে না সুতরাং তারা আক্রান্ত হবে না। যা ক্ষতি হবার শুধু বাঙ্গালিদের হবে। এটি ছাড়াও আরেকটি উদাহরন দেয়া যেতে পারে, আমরা যারা পেন ড্রাইভ ব্যবহার করি তারা এমন কিছু ভাইরাসের সম্মুখিন হই যেটা শুধুমাত্র পেন ড্রাইভ এর মাধ্যমে এক কম্পিউটার থেকে অন্য কম্পিউটার এ যায়। যারা পেন ড্রাইভ ব্যবহার করে না তারা এই ভাইরাসে আক্রান্তও হয় না। এ ক্ষেত্রেও দেখা যাচ্ছে যে একটি বিশেষ শ্রেনীর ব্যবহারকারী এই পেন ড্রাইভ ভাইরাসের লেখকের লক্ষ্য।

৪ নং প্রশ্নের উত্তরঃ

USA, UK, Australia এসব দেশের ইউজাররা যেসব সাইটে বেশি প্রবেশ করে আমরা সেগুলোতে প্রবেশ করি তবে খুব কম আর আমরা সাধারনত ঐসব সাইটের এশিয়ান সার্ভারে প্রবেশ করি। যেমনঃ USA এর ইউজাররা http://www.google.com টাইপ করলে http://www.google.com এই প্রবেশ করে কিন্তু আমরা যখন বাংলাদেশ থেকে http://www.google.com টাইপ করি আমরা রিডাইরেক্ট হয়ে http://www.google.com.bd প্রবেশ করি। এখানে আমরা একই সাইটে প্রবেশ করলেও দুটি আলাদা সার্ভারে প্রবেশ করি।

৫ নং প্রশ্নের উত্তরঃ

আমাদের দেশ সহ দক্ষিন এশিয়ার অন্য দেশের কম্পিউটার গুলো যেসব ভাইরাসে বেশি আক্রান্ত হয় তার ডাটা কি USA এর একটি এন্টিভাইরাস কম্পানির কাছে বেশি থাকবে ? না কারন তাদের মূল ব্যবসা যেসব দেশে তারা সেসব দেশের ইউজারদের সুবিধার কথা ভাবে। আগে যেমন বলেছি আমাদের দেশের কম্পিউটার ব্যবহারকারীরা যেহেতু এসব কম্পানি থেকে বৈধ ভাবে এন্টিভাইরাস কেনে না সুতরাং আমাদের নিয়ে তাদের ভাবার সময় নেই। তবে বেশ কিছু দিন পর যখন আমাদের এসব স্থানীয় ভাইরাস নেটের মাধ্যমে ছড়িয়ে এন্টিভাইরাস কম্পানির কোন বৈধ গ্রাহকের মাথা ব্যথার কারন হয় তখন এন্টিভাইরাস কন্পানি তাদের এন্টিভাইরাস এর আপডেটে ঐ ভাইরাস রিমুভ করার অপশন দিয়ে দেয়। কিন্তু দক্ষিন এশিয়ার এন্টিভাইরাস কম্পানি যেহেতু আমাদের এদিকেরই (তাদের বৈধ ইউজাররাও এদিকেরই) সেহেতু আমাদের এসব স্থানীয় ভাইরাসের আক্রমনের সাথে সাথে তাদের বৈধ ইউজাররাও আক্রান্ত হয় ফলে তারা তাদের আপডেটে এসব ভাইরাসের তথ্য যত তাড়াতাড়ি সম্ভব দিয়ে দেয়।

৬ নং প্রশ্নের উত্তরঃ

এটা সম্পূর্ণ ব্যবহার কারীর উপর নির্ভর করে। যেমন- অনেকেই Eset, Norton, Kaspersky, Avira, Avast, AVG, Bitdefender, F-secure, Panda সহ বিভিন্ন এন্টিভাইরাস ব্যবহার করছেন। মুলত বাজারে প্রায় ২৫ টির উপর ব্রান্ডের এন্টিভাইরাস ক্রয় করতে পাওয়া যায়। এর মধ্যে সকল এন্টিভাইরাস একই মাপের কাজ করলে বেশ কিছু পার্থক্য রয়েছে যেমন- কোনটি পিসি স্লো করে, কোনটি আবার ভাইরাস ডিটেক্ট করতে পারেনা, আপডেট হতে সমস্যা করে ইত্যাদি।

এতক্ষন অনেক ব্যাপারে আলোচনা করেছি এবার বলি একটি ভাল এন্টিভাইরাস এর কি কি বৈশিষ্ঠ্য থাকা দরকার তা এক নজরে জেনে নিই।

  • এন্টিভাইরাস যতদুর সম্ভব কম রিসোর্স ব্যবহার করে সবচেয়ে বেশি প্রটেকশন দিবে।
  • এন্টিভাইরাস কম্পিউটার স্লো করবে না।
  • যতদুর সম্ভব নিজের দেশের বা সবচেয়ে কাছের দেশের এন্টিভাইরাস হতে হবে যাতে তার ভাইরাস ডাটাবেসে দেশে যেসব ভাইরাসের প্রর্দুভাব বেশী তার সলিউশন তাড়াতাড়া পাওয়া যায়।
  • এন্টিভাইরাসের ফাইল ডিলেট বা ক্লিন না করে রিপেয়ার করার ক্ষমতা থাকতে হবে।
  • প্রতিদিন এর আপডেট অনলাইন বা অফলাইন এর মাধ্যমে নেয়ার ব্যবস্থা থাকতে হবে।
  • অনলাইন বা অফলাইন এর মাধ্যমে একটিভেশন করার অপশন থাকতে হবে।

উপরে বর্নিত সব বৈশিষ্ঠ্য আছে এমন এন্টিভাইরাস পাওয়া আসলেই অনেকটা কঠিন।

উদাহরন হিসাবে বলা যায় Avira, Mcafee, Avast, Norton Anti Virus, Kasparsky এর কোনটাই আমাদের দেশের নয় এমন কি এশিয়ার ও নয়। ফলে এদের ডাটাবেসে আমাদের স্থানীয় ভাইরাস এর সলিউশন অনেক দেরি তে দেয়। ততদিনে আমাদের পিসির অনেক ফাইল আক্রান্ত হয়ে যায় আর আপডেটে সলিউশন আসা মাত্র সব ভাইরাস আক্রান্ত ফাইল হয় ডিলিট নয় তো ক্লিন হয়ে যায় আর সেই ঐসব জরুরী ফাইল ও নষ্ট হয়ে যায়। Avast, Kasparsky বেশিরভাগ ভাইরাস ইনফেক্টেড ফাইল ডিলিট করে দেয়। Mcafee, Norton Anti Virus ইন্সটল করলে পিসি এতো স্রো হয় যে নড়তেই চায় না। Mcafee, Norton Anti Virus ফাইল ক্লিন করার পরও ঐ ফাইল আর চলে না।

তাহলে দক্ষিণ এশিয়ার সেরা এন্টিভাইরাস কোনটি? এবং ৩৬৫ দিনের জন্য ব্যবহার করুন এন্টি ভাইরাস

অনেকেই হয়ত এই ভেবে উত্তর পাচ্ছেন না দক্ষিণ এশিয়ার কোন দেশ এন্টিভাইরাস প্রস্তুত করে এবং এটি সেরা কিভাবে হল?

201314718122_quickheal_intrnet20131

আসলে দক্ষিন এশিয়ার যে সকল দেশ রয়েছে বর্তমানে তাদের মধ্য একমাত্র ভারত ব্যতিত কেউ ভালো এন্টিভাইরাস সেবা দিতে পারছেনা। অপর দিকে অন্য সকল দেশ তো এন্টিভাইরাসই প্রস্তুত করতে পারেনা আবার করলেও সেই রকম বাজার পরিচিতি নাই। যেমন- পূর্বে প্রায় ২/৩ বছর হবে শুনেছিলাম বাংলাদেশের কোন প্রতিভাবাণ একদল তরুনেরা একটি দেশী এন্টি ভাইরাস তৈরি করেছিল। নাম সম্ভাবত কোবরা কিং হবে। কিন্তু সেইরকম কোন জনপ্রিয়তা অর্জন করতে পারেনি। কেননা, একটি এন্টিভাইরাস প্রস্তুত করতে হলে অনেক টাকা বিনিয়োগ করতে হয়, প্রচুর মেধা শক্তির প্রয়োজন হয়, আন্তজার্তিক বাজারে প্রবেশ করতে AV Tes, VB100 Virus Cheeck সহ ইত্যাদি খ্যাতনামা প্রতিষ্ঠানের ছাড়পত্র নিতে হয়। ভারত এর মধ্য তাদের নিজস্ব ভাবে একটি এন্টিভাইরাস সিকিউরিটি তৈরি করেছে প্রায় ৪ বছর যাবত নিজেদের দেশে ৪৫% বেশী চাহিদা মিটিয়ে বিশ্বের প্রায় ২৫ টি দেশে উক্ত এন্টিভাইরাসটি রপ্তানী করছে। অবশ্য তারা অন্য সকল এন্টিভাইরাসের মতই AV Tes, VB100 Virus Cheeck সহ প্রতিষ্ঠানের সনদ পেয়েছে।

এর মধ্য  বিভিন্ন দেশের ইউজারদের মধ্য প্রশাংসা কুড়িয়েছে এবং নিজেদের থলিতে ভরেছে বিশ্বের থ্যাতনামা প্রতিষ্ঠানের বেশ কয়েকটি পুরস্কার ও সনদ। তাদের এই বিশ্বখ্যাত এন্টিভাইরাসটির নাম হচ্ছে-Quick Heal Antivirus. এবং দক্ষিন এশিয়ার মধ্য Quick Heal কেন সেরা তা হয়ত উপরের আলোচনা হতে অনেকেই বুঝতে শুরু করেছেন। Quick Heal নতুন একটি প্রডাক্ট হলেও কাজে কিন্তু কোন অংশে কম নই। অন্য বিশ্বখ্যত এন্টিভাইরাসের সমমানের মত কাজ করবে যেমন- Avira, Mcafee, Avast, Norton Anti Virus, Kasparsky এর মতই। তবে Quick Heal Antivirus এর অআরেকটি সুবিধা হচ্ছে- যে কোন রিমুভেবল ড্রাইভে পিসিতে প্রবেশেবের সাথে সাথেই নিজেই স্ক্যান করে নিবে। এবং যাবতীয় অটোরান ফাইলকে ব্লক করে দেয় যা অন্য কোন এন্টিভাইরাসে এই সুবিধাটি তেমন নই (অবশ্য একমাত্র ইসেটে এই পদ্ধতি রয়েছে)

ScreenShot002

আমি অবশ্য Quick Heal Antivirus টি নিজে ব্যবহার না করলেও আমার বেশ কয়েকজন বন্ধু ১ বছরের বেশী সময় ধরে এই ভারতীয় এন্টিভাইরাসটি ব্যবহার করে আসছে। অবশ্য আমি পরীক্ষামূলক হিসাবে প্রায় ১০ দিন ধরে এই এন্টিভাইরাসটি পিসিতে রান করেছিলাম খুবই ভাল কাজ করেছে। মূলত সহজ সরল ইন্টারফেস, পিসি স্লো করেনা। মূল কথা এটি ব্যবহার করলে অন্য এন্টিভাইরাস হতে মূল পার্খক্যটা বুঝতে পারবেন। অবশ্য অআমার ফেসবুকে ভারতীয় বেশ কিছু ফ্যানফ্রেন্ড আছে তাদের কাছেও এই ব্যাপারে শুনেছি এবং তাদের অধিকাংশই নিজেদের দেশের তৈরি Quick Heal Antivirus ব্যবহার করে থাকে। তারপরও ভারতের অনেকেই বিভিন্ন ব্রান্ডের এন্টিভাইরাস ব্যবহার করছে।

নিয়ে নিন Quick heal Internet Security ৩৬৫ দিনের ব্যবহারের সুযোগ:

হ্যা বন্ধুরা এবার যারা Quick heal Internet Security ব্যবহার করতে চান তারা প্রথমত Quick heal Internet Security অফিসিয়াল সাইট হতে Quick heal Internet Security নামিয়ে নিন প্রায় (২৩০ এম বি সাইজের ফাইল)। অতপর এন্টিভাইরাস পিসিতে ইন্সটল করার করে নিন > এই ক্ষেত্রে ৩০ দিনের ট্রায়াল শো করবে। এবার সম্পূর্ণ সক্রিয় করতে সেটিংস ট্যাব হতে রেজি: বাটনে ক্লিক করতে হবে > নতুন ইন্টারফেস আসলে সেখানে যাবতীয় তথ্যাদি প্রেরন করুন এবং মেইল প্রদান করুন  এবং পরিশেষে সিরিয়াল কি পেস্ট করে সাবমিট করলেই হবে। সঠিক ভাবে সাবমিট করলে ৩৬৫ দিন ব্যবহারের সুযোগ পাবেন। অবশ্য উক্ত রেজি: কাজটি এন্টিভাইরাস ইন্সটলের সময় করলেও হবে।

ScreenShot001

এবার রেজি: কি পেতে নিচের mediafire লিংক হতে ডাউনলোড করে নিন (Password: bornochura)

ifacuh-21

 Quickheal License

new_peaceপরিশেষে আশা করি ভিজিটর বন্ধুরা উপরের বর্ণিত আলোচনা হতে এন্টিভাইরাস নিয়ে বেশ কিছু অজানা বিষয়াবলী সম্পর্কে সম্যক ধারনা পেলেন। এবং আপনারা অন্যান্য এন্টিভাইরাসের মতই একই পদ্ধতিতে Quick heal Internet Security পিসিতে ডাউনলোড ও ইনস্টল করতে পারবেন। এবং আমার প্রেরিত কী প্রদান করলেই জেনুইন লাইসেন্স হিসাবে ৩৬৫ দিনর জন্য এই সুখ্যাত এন্টিভাইরাসটি আরামসে ব্যবহার করতে পারবেন। অপরদিকে এই পোস্টটি অত্যন্ত দ্রুততার সহিত এডিট ও অলংকরনে বিচ্যুতি থাকলে তাহা ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখার আহবাণ করছি। তাছাড়া আমি তো পিসি হেল্প লাইনের সাথেই আছি ও থাকছি, তাই কোন সমস্যা পরিলক্ষিত হলে কমেন্ট বক্সে ফিডব্যাক করবেন। So, Do not Wait! Hurray Quick get this Product!!! 

——————————————————-

11 মন্তব্য
  1. faruq20 বলেছেন

    Your given serial key does not work.! if possible give new one please.

  2. আকাশ বলেছেন

    পোস্টটি উপহার দেওয়ার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ। 🙂

  3. sabuj বলেছেন

    সুন্দর ভাবে পোষ্টটি লিখেছেন তাই আপনাকে অনেক ধন্যবাদ ।

  4. K. J. M. REZAUR RAHMAN বলেছেন

    ভাই আপনার দেওয়া সিরিয়াল কি কাজ করছে না। Maximum use limit পার হয়ে গেছে। কোনো ব্যাবস্থা করা যায়?

  5. salman nirjor বলেছেন

    tnx vhi, quick heel antivirus tar bepare ami ageo soncilam. tnx for share

  6. লিটন হাফিজুর বলেছেন

    thanks for share

  7. snrshishir বলেছেন

    Setting থেকে Registation কোন অপশন নেই, ইন্সতল করার পর registration করতে পারছি না । দয়া করে সাহায়্য করবেন

  8. মোহাম্মদ জাকারিয়া বলেছেন

    ধন্যবাদ শেয়ার করার জন্য ।আবদুল্লাহ ভাই আপনার কাছে কি এন্টিভাইসের গোডান আছে ।

  9. নাঈম প্রধান বলেছেন

    Thanks For Share

  10. সিহাব সুমন বলেছেন

    nice post, thanks for share.

  11. ইফতি মাহমুদ বলেছেন

    শেয়ার করার জন্য ধন্যবাদ।

উত্তর দিন