করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) প্রাদুর্ভাব রোধে জনসচেতনতা মূলক তথ্যাবলী

করোনাভাইরাসের লক্ষণসমূহ:

  • ভাইরাস শরীরে ঢোকার পর সংক্রামণের লক্ষণ দেখা দিতে প্রায় ২-১৪ দিন লাগে।
  • বেশির ভাগ ক্ষেত্রে প্রথম লক্ষণ জ্বর।
  • এছাড়া শুকনো কাশি/গলা ব্যথা হতে পারে।
  • শ্বাসকষ্ট/নিউমোনিয়া দেখা দিতে পারে। অন্যান্য অসুস্থতা (ডায়াবেটিস/ উচ্চ রক্তচাপ/ শ্বাসকষ্ট/ হৃদরোগ/ কিডনী সমস্যা/ ক্যান্সার ইত্যাদি) থাকলে দেহের বিভিন্ন প্রতঙ্গ বিকল হতে পারে।

করোনাভাইরাস সংক্রমণের ঝুঁকি রোধে করণীয়:

  • বাহিরে যাওয়ার পূর্বে নাক-মুখ ঢাকার জন্য সর্বদা মাস্ক ব্যবহার করতে হবে।
  • জরুরী প্রয়োজন ছাড়া বাড়ির বাহিরে যাওয়া যাবে না।
  • ঘন ঘন দুই হাত সাবান পানি বা অ্যালকোহলযু্ক্ত হাত-ধোয়ার সামগ্রী দিয়ে কমপক্ষে ৬০ সেকেন্ড যাবৎ পরিষ্কার করতে হবে।
  • যেখানে সেখানে কফ এবং থুতু ফেলা যাবে না।
  • অপরিষ্কার হতে চোখ, নাক এবং মুখ স্পর্শ থেকে বিরত থাকতে হবে।
  • হাঁচি-কাশির সময়ে টিস্যু অথবা কাপড় দিয়ে বা বাহুর ভাঁজে নাক-মুখ ঢেকে ফেলতে হবে। ব্যবহৃত টিস্যু ঢাকনাযুক্ত ময়লার পাত্রে ফেলে হাত পরিষ্কার করতে হবে।
  • সুস্থ ব্যাক্তি হতে ৩ ফুট দূরত্ব বজায় রাখতে হবে।
  • ফল এবং শাকসবজি রান্না বা খাওয়ার পূর্বে পরিষ্কার পানি দিয়ে ভালো করে ধুয়ে নিতে হবে।
  • মাছ-মাংস ভালোভাবে রান্না করে খেতে হবে।
  • আপনার যদি জ্বর, কাশি এবং শ্বাস নিতে সমস্যা হয় তবে তাড়াতাড়ি চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।

করোনা সন্দেহ বা আক্রান্ত হলে করণীয় (পরামর্শ ):

  • দ্রুত স্বাস্থ্য সেবা কেন্দ্রে যোগাযোগ করে পরামর্শ নিতে হবে।
  • আক্রান্ত ব্যক্তির যথেষ্ট বিশ্রাম নিতে হবে।
  • পুষ্টিকর খাবার খেতে হবে।
  • প্রচুর পানি আর তরল পান করতে হবে।
  • আক্রান্ত ব্যক্তির সেবা কাজে, মেডিকেল মাস্ক পরে নিতে হবে। হাত দিয়ে মাস্ক ধরা যাবে না। কাজ শেষে মাস্ক ঢাকনাযুক্ত ময়লার পাত্রে ফেলে দিতে হবে।
  • অসুস্থ ব্যক্তির সংস্পর্শে এলে খাবার তৈরির পূর্বে, খাবার খাওয়ার পূর্বে এবং টয়লেট ব্যবহারের পর সাবান পানি দিয়ে বা অ্যালকোহলযু্ক্ত হাত-ধোয়ার সামগ্রী দিয়ে হাত পরিষ্কার করতে হবে।
  • অসুস্থ ব্যক্তির জন্য আলাদা বাসনপত্র, তোয়ালে, বিছানার চাদর সাবান দিয়ে পরিষ্কার করতে হবে।
  • অসুস্থ ব্যক্তি যা যা হাত দিয়ে স্পর্শ করবে, সেগুলো বারবার জীবাণু মুক্ত করতে হবে।
  • অসুস্থ ব্যক্তির অবস্থা শোচনীয় হলে বা শ্বাসকষ্ট হলে দ্রুত স্বাস্থ্য সেবাকেন্দ্রে যোগাযোগ করতে হবে।

করোনার সময়ে জরুরি সাহায্যের জন্য কিছু তথ্য:

করোনাবিষয়ক সকল তথ্য পেতে ওয়েবসাইট: corona.gov.bd

সর্দি-কাশি ও জ্বরে চিকিৎসকের পরামর্শ
জাতীয় রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের (আইইডিসিআর)
নম্বর: ১০৬৫৫ ও ০১৯৪৪৩৩৩২২২
ই–মেইল: [email protected]

মুখ ও দাঁতের চিকিৎসা পেতে বাংলাদেশ ডেন্টাল সোসাইটির সদস্যদের মুঠোফোনে যোগাযোগ করে চিকিৎসা নেওয়া যাবে। নম্বর: ০১৭১১১৩৬৩৬২, ০১৭৪১৪৯০১৩৪, ০১৭১১৫৪০০৪৫, ০১৭১১৯৩৭৫৯০, ০১৭১১৮০০০৪৯, ০১৭১২৪৮৬৫৪৮ ০১৭১৫০৭৫৭৪০, ০১৭১৭২১১১০৫, ০১৮১৭৫৪১০০৫ ও ০১৮১৭০৯৪৩৩১

স্বাস্থ্য বাতায়নের হটলাইন নম্বর ১৬২৬৩
স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হটলাইন নম্বর ৩৩৩
সশস্ত্র বাহিনীর যোগাযোগ নম্বর: ০১৭৬৯০৪৫৭৩৯

দাফন কার্যক্রমে সহায়তা পেতে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত দুই যুগ্ম সচিবের মুঠোফোন নম্বর: ০১৭১২০৮০৯৮৩ ও ০১৫৫২২০৪২০৮

নারী ও শিশু নির্যাতন প্রতিরোধে ন্যাশনাল হেল্পলাইন সেন্টারে ফোন করা যাবে, প্রতি দিন এবং যেকোনো সময়। টোল ফ্রি নম্বর: ১০৯

বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি মানসিক স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে মনঃসামাজিক সহায়তা সেল চালু করেছে। যা রোববার থেকে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টার মধ্যে ফোনকলের মাধ্যমে সেবা মিলবে। ফোন নম্বর: ০১৮১১৪৫৮৫৪১, ০১৮১১৪৫৮৫৪২

জরুরি ত্রাণ পেতে

  • ঢাকা জেলা প্রশাসনের হটলাইন: ০২৪৭১১০৮৯১, ০১৯৮৭৮৫২০০৮
  • ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন: ০১৭০৯৯০০৭০৩, ০১৭০৯৯০০৭০৪

পাঁচটি অঞ্চলে করোনাভাইরাস সংক্রান্ত চিকিৎসা তথ্য ও পরামর্শ সেবা চালু।

  • মগবাজার: ৯৩৫৫২৭৭
  • মোহাম্মদপুর: ০১৩১১-৯৪৬৪৩২
  • মাজার রোড, মিরপুর: ০১৩০১-৫৯৬৮৩৯
  • বর্ধিত পল্লবী, মিরপুর: ০১৭৭০-৭২২১৯৪
  • উত্তরা: ০১৩১৪-৭৬৬৫৪৫

মিথ্যা বা গুজব প্রচারের বিষয়টি নজরে এলে ফোন করুন: ৯৯৯ অথবা ৯৫১২২৬৪, ৯৫১৪৯৮৮ নম্বরে।

নিজে জানুন, পোস্টটি শেয়ার করে অন্যকে জানান।

Leave a Reply