কেন ওয়ার্ডপ্রেস ডেভেলপমেন্ট সবচেয়ে জনপ্রিয়

0 153

বর্তমান সময়ের সবচেয়ে জনপ্রিয় সিএমএস(কন্টেন্ট ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম) এর মধ্যে ওয়ার্ডপ্রেস অন্যতম। ওয়ার্ডপ্রেসকে অনেকে বলে থাকেন বর্তমান সময়ের সেরা কন্টেন্ট ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম। এই সিএমএস ব্যবহার করে আপনি খুব সহজেই যেকোন কর্পোরেট ওয়েবসাইট কিংবা ব্লগ সাইট বানিয়ে ফেলতে পারেন, সময়ও লাগবে খুবই কম। ওয়ার্ডপ্রেসের থিম ডিরেক্টরিতে থাকা লক্ষ থিম থেকে বেছে নিয়ে যেমন একটি ওয়েবসাইট তৈরি করা যায় তেমনি যেকোন থিমকে ইচ্ছামত ডিজাইনও করে নেয়া সম্ভব।

ওয়ার্ডপ্রেস এর বর্তমান চাহিদাঃ

ওয়ার্ডপ্রেসে সহজেই সবকিছু করা যায় বলে বিশ্বব্যাপী এই কনটেন্ট ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম(সিএমএস) এর এত চাহিদা। ছোট এবং মাঝারি ব্যবসা থেকে শুরু করে বড় বড় কর্পোরেট এবং বহুজাতিক কোম্পানিগুলোও এখন ওয়ার্ডপ্রেস (সিএমএস) দিয়ে নিজেদের ওয়েবসাইট তৈরি করছে। আর এ কারণেই ওয়ার্ডপ্রেস ডেভেলপারদের চাহিদা বাড়ছে দিন দিন বাড়ছে! বাংলাদেশী অনেক ওয়ার্ডপ্রেস ডেভেলপার রয়েছেন যারা ফ্রিল্যান্সার এবং ওডেস্ক সহ বিভিন্ন মার্কেটপ্লেসে ঘন্টায় ৩০ থেকে ৪০ ডলার রেটে কাজ করে থাকেন। একজন ওয়ার্ডপ্রেস ডেভেলপার কাজ শুরু করতে পারেন ন্যূনতম ১০ থেকে ১২ ডলার প্রতি ঘন্টা রেটে। অর্থ্যাৎ দিনে যদি কেউ ৮ ঘন্টা কাজ করেন তবে একজন ওয়ার্ডপ্রেস ডেভেলপারের প্রাথমিক আয় শুরু হবে প্রতি দিন ৮০ থেকে ১০০ ডলার, মাসে ৩ হাজার ডলার।

এ তো গেল ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসগুলোর কথা, আবার একজন ওয়ার্ডপ্রেস ডেভেলপার চাইলে ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ না করে নিজস্ব ওয়ার্ডপ্রেস প্রোডাক্ট তৈরি করেও বিশাল আন্তর্জাতিক বাজার ধরতে পারেন। যেমন ওয়ার্ডপ্রেস থিম তৈরি করেও সেগুলো বিক্রি করতে পারেন বিভিন্ন থিম মার্কেটপ্লেসে। থিম বিক্রির জনপ্রিয় মার্কেটপ্লেস থিমফরেস্টের কর্পোরেট ক্যাটেগরির শীর্ষ বিক্রি হওয়া থিমগুলোই একবার দেখুন, কি পরিমাণ রেভুন্যু এসেছে একেকটা থিম থেকে!! এক ‘ইউ ডিজাইন’ থিম টা-ই বিক্রি হয়েছে ৮ কোটি টাকা!! এখনও প্রতিদিনই বিক্রি হচ্ছে এ থিমটি। এর পরের থিমগুলোও বিক্রি হয়েছে ৬ কোটি টাকা-৭ কোটি টাকা!! চিন্তা করে দেখুন একবার, এক থিম ডেভেলপ করে ওয়ার্ডপ্রেস থিম ডেভেলপাররা কি পরিমাণ টাকা ঘরে নিচ্ছেন। থিম বিক্রির এ মার্কেটপ্লেসে থিম বিক্রির গড় হার ১০ লাখ টাকা করে। অর্থ্যাৎ সময় এবং নিজের ক্রিয়েটিভিটিকে কাজে লাগিয়ে থিম তৈরি করেও বিপুল পরিমাণ আয় করার সুযোগ রয়েছে। বিপুল পরিমাণ এ অর্থের একটা অংশ আসতে পারে নিজের ঘরেও!!

কেবল প্রোডাক্ট কিংবা ফ্রিল্যান্স ক্যারিয়ারই নয়, কর্পোরেট এবং বহুজাতিক কোম্পানিগুলোতেও এখন ওয়ার্ডপ্রেস ডেভেলপারদের চাহিদা অনেক। বিদেশী কোম্পানিগুলোতে ওয়ার্ডপ্রেস ডেভেলপারদের প্রচুর চাহিদা, আর এখন বাংলাদেশী প্রতিষ্ঠানগুলোতেও ওয়ার্ডপ্রেস ডেভেলপারদের চাকুরির সুযোগ বাড়ছে। বিডিজবস, প্রথম-আলো জবস এবং জবসইনবিডি সাইটে একবার ঢুকে দেখুন, ওয়ার্ডপ্রেস ডেভেলপারদের চাকুরির বিজ্ঞপ্তি রয়েছে প্রচুর।

ওয়ার্ডপ্রেস ডেভেলপমেন্ট এখন এমন একটি ক্ষেত্র, যেখানে কাজের আসলে কোন অভাব নেই। বিশাল এই কাজের ক্ষেত্রে প্রবেশের জন্য এখন কেবল প্রয়োজন দক্ষতা। আপনার যদি মনোবল আর ইচ্ছা থাকে, তবে এই দক্ষতা অর্জন কোন ব্যাপার নয়।

ওয়েব ডেভেলপমেন্ট শিখুন প্রকৃত এক্সপার্টদের কাছ থেকে!

এখন প্রশ্ন হল কিভাবে ওয়ার্ডপ্রেস শিখবেন? ইন্টারনেটে ওয়ার্ডপ্রেসের অনেক রিসোর্স আছে। তবে ইন্টারনেট থেকে শিখতে প্রচুর সময় নষ্ট হতে পারে, আর স্টেপ বাই স্টেড গাইডলাইনও তেমন পাওয়া যায় না। যারা হাতে কলমে ওয়ার্ডপ্রেস ডেভেলপমেন্ট শিখতে চান এ এম ওয়েব ক্রিয়েশন  ইনস্টিটিউট তাঁদের জন্য চালু করেছে ওয়ার্ডপ্রেস ডেভেলপমেন্ট প্রশিক্ষণ। দুই মাসব্যাপী এ প্রশিক্ষণে এসইচটিএমএল, সিএসএস, বেসিক পিএইচপি, পিএসডি টু এইচটিএমএল কনভার্সন, এইচটিএমএল টু ওয়ার্ডপ্রেস কনভার্সন এবং ওয়ার্ডপ্রেস থিম অপশন পেজ ডেভেলপমেন্ট শেখানো হবে। এছাড়া ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসে, লোকাল মার্কেটে অর্থ্যাৎ ফ্রিল্যান্সার হিসেবে ওয়েব ডিজাইন কাজ করার গাইডলাইন তো রয়েছেই।

আপনি এ সম্পর্কে আরও বিস্তারিত জানতে এই লিংকে ক্লিক করুন

 

উত্তর দিন