শাওমি ফোনকে না বলুন!

0 3,394

কেমন আছেন সবাই? আশা করি ভালো! হেডলাইন দেখে একটু অবাক হচ্ছেন নিশ্চয় ? আমিও অবাক হয়েছি! চলুন বিস্তারিত জানি,

খুব অল্প সময়ে জনপ্রিয় হয়েছে চায়না ব্রান্ড খ্যাত শাওমি বা জিওমি। খুব অল্প টাকায় ভালো ফিচার দিয়ে মানুষের জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে। কিন্তু তারা গ্রাহক চাহিদা অনুযায়ী বাজারে কমদামে স্মার্টফোন ছাড়লেও গ্রাহক এর নিরাপত্তার ব্যাপারে উদাসীন।তাদের বোঝা উচিৎ ছিল গ্রাহক নিরাপত্তা নিরাপত্তা সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। কারন অনেক মানুষ নিরাপত্তার কথা চিন্তা করে অ্যাপল কোম্পানির মোবাইল মুল দামের চেয়ে তিনগুন বেশি মুনাফা লাভ করে জানা সত্তেও মানুষ আইফোন কিনে। কারন অ্যাপল গ্রাহক নিরাপত্তাই মেইন বৈশিষ্ট্য। কিন্তু সবার তো আইফোন কেনার সামর্থ্য নাই। তাই মানুষ কম মূল্যের শাওমি ফোন কিনে । কিন্তু যদি তারা গ্রাহক তথ্য ফাস করে দেয় তাইলে এই ফোন কিনে লাভ কি ? আগেই ভেবেসিলাম এত কম দামে কেমনে ফোন দিচ্ছে তারা!এখন বুঝলাম সস্তার তিন অবস্থা,তার এক অবস্থা হলো এইটা !

গ্রাহকদের কোন কোন তথ্য সংগ্রহ করা হবে আর সেগুলো কিভাবে ব্যবহার করা হবে, সে ব্যাপারে নতুন নীতিমালা তৈরি করছে শাওমি। আপাতত এই নীতিমালার আওতায় শুধু যুক্তরাষ্ট্রের ব্যবহারকারীরাই পড়বেন। তবে শীঘ্রই এটি চাইনিজ ও ভারতীয় ব্যবহারকারীদের জন্যও প্রযোজ্য হতে পারে।

নীতিমালার এই পরিবর্তন ব্যবহারকারীদের বেশ চিন্তিত করেছে। শাওমি বলেছে, ব্যবহারকারীদের স্বেচ্ছায় আপলোড করা বা অন্যান্য উপায় শাওমির কাছে যেসকল তথ্য পৌঁছাবে, সেগুলো যতদিন প্রয়োজন ততদিন সংরক্ষণে রেখে ব্যবসায়ীক কিংবা অন্যান্য কাজে ব্যবহার করবে তারা। স্বেচ্ছায় আপলোডের পাশাপাশি অন্যান্য উপায় লেখার ফলে ধারণা করা হচ্ছে, ফোনে থাকা যে সকল তথ্য শাওমির ক্লাউডে ব্যাকআপ হিসেবে রাখা হবে, সেগুলোও তারা ব্যবহার করবে।

তথ্য সংগ্রহে তারা কোনো ছাড় দেয়নি। স্পষ্টভাবে বলা হয়েছে, ফোন নম্বর, সিমের তথ্য, ব্যবহারকারীর অবস্থান, ফোনের কল লিস্ট, ম্যাসেজ, পরিচয়পত্র, ব্যাংকিং তথ্য, ছবি ও রেকর্ড করা সাউন্ড, এমনকি কিছু ক্ষেত্রে অ্যাপের মধ্যে দেয়া তথ্যও তারা সংগ্রহ করবে। (এইডা কোন কথা ? )

এ অবস্থায় ধরে নেয়া যেতে পারে যুক্তরাষ্ট্রের জন্য তৈরি শাওমি ফোনগুলোতে থাকা প্রতিটি তথ্যই শাওমি নানাভাবে সংগ্রহ করে কাজে লাগাবে। দেশটিতে শাওমির বিভিন্ন পণ্য বিক্রি হলেও ফোনের বাজারে এখনো ঢুকতে পারেনি প্রতিষ্ঠানটি। তাই ফোন বাদে অন্যান্য ডিভাইসের তথ্য নিতে পারবে শাওমি। চলতি বছর শাওমি সেখানকার ফোনের বাজার ধরতে পারলেই কেবল ফোন ব্যবহারকারীদের ক্ষেত্রে এ নীতিমালা কার্যকর হবে। তবে শাওমির অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহারকারীরা এখনই এই নীতিমালার আওতায় পড়বেন।নতুন এ নীতিমালা আগামী ২৫ মে থেকে কার্যকর হবে।
বিস্তারিত তাদের ওয়েবসাইটে – http://www.mi.com/us/about/new-privacy/

পরিশেষে বলতে চাই,শুধু টাকা কম দেখে এইসব থার্ড ক্লাস সস্তা চায়না সেট কিনবেন না।নিজের নিরাপত্তার কথাটা একটু ভাবুন।টাকা একটু বেশি লাগলে ভালো মানের ফোন কিনুন।টিউনটা পড়ার জন্য ধন্যবাদ। ভুল হলে মাফ করবেন।

উত্তর দিন