কম্পিউটারের নিরাপত্তা বাড়াতে পারেন সাধারণ কিছু নিয়ম মেনেই

0 128

প্রত্যেক ব্যবহারকারীরই উচিত কম্পিউটারের নিরাপত্তা নিয়ে ভাবা। ভাইরাস, ওয়ার্ম, হ্যাকিং, তথ্য চুরি ঠেকাতে কম্পিউটারের নিরাপত্তা বাড়াতে পারেন সাধারণ কিছু নিয়ম মেনেই।

ফায়ারওয়াল: ফায়ারওয়াল এক বিশেষ ধরনের সফটওয়্যার। আগত ও বহির্গামী ইন্টারনেট সংযোগকে নিয়ন্ত্রণ করে। হ্যাকারদের হুটহাট আক্রমণ এবং নিজে থেকেই ছড়িয়ে পড়া ওয়ার্ম প্রতিহত করতে ফায়ারওয়াল কাজ করে। এ ছাড়াও কম্পিউটারের অনেক নিরাপত্তাব্যবস্থা নিয়ন্ত্রণ করে। উইন্ডোজের জন্য Run-এ গিয়ে firewall.cpl লিখে এন্টার করলে ফায়ারওয়াল সেটিংস খুলে যাবে এবং প্রয়োজনে সক্রিয় করা যাবে।

অ্যান্টিভাইরাস: কম্পিউটারের নিরাপত্তার দায়িত্ব যদি অ্যান্টিভাইরাস সফটওয়্যারের ওপরই ছেড়ে দেবেন বলে ভেবে থাকেন! তবে অবশ্যই একটি ভালোমানের অ্যান্টিভাইরাস বেছে নিন। বিনা মূল্যে অনেক অ্যান্টিভাইরাস পাওয়া যায় কিন্তু সেটিতে নিরাপত্তার সব সুবিধা থাকে না। কোনটি ব্যবহারে কম্পিউটারের গতি ধীর হয় না এবং অবশ্যই নিয়মিত হালনাগাদের (আপডেট) মাধ্যমে নিরাপত্তাব্যবস্থা জোরদার করে তুলবে সেটিই বেছে নিন।

পাসওয়ার্ড বাছাই: অধিকাংশ ব্যবহারকারী ই-মেইল বা ফেসবুকের পাসওয়ার্ড বাছাইয়ের ক্ষেত্রে সাবধানি নন। সহজেই মনে রাখা যায় এমন পাসওয়ার্ড সবাই ব্যবহার করতে চায়। কিন্তু আপনার কাছে যেটি মনে রাখা সহজ, হ্যাকারদের কাছে সেটি অনুমান করা তার চেয়েও সহজ। তাই পাসওয়ার্ড বাছাইয়ের ক্ষেত্রে বিশেষ অক্ষর! @ # $ % ^ & মিলিয়ে পাসওয়ার্ড নির্ধারণ করুন। তাহলে হ্যাকার এবং দুষ্কৃতকারীরা সহজে অনুমান করতে পারবে না ফলে অনলাইনেও নিরাপদ থাকা যাবে।

সতর্ক থাকুন ইন্টারনেটে: ইন্টারনেটের যথাযথ ব্যবহার অনেকেই করতে পারেন না। না বুঝে এবং আকর্ষণীয় বিজ্ঞাপন দেখে হুটহাট তাতে ক্লিক করা থেকে বিরত থাকুন। ই-মেইলের স্ক্যাম ফোল্ডারের আসা মেইলের লিগে যত্রতত্র ক্লিক করা থেকে বিরত থাকুন। সতর্ক হন কোন ধরনের তথ্য আপনি নামাতে (ডাউনলোড) চাচ্ছেন।

ভুলবশত কোনো ওয়ার্ম বা ভাইরাস নামাচ্ছেন না তো? হ্যাকার এবং দুষ্কৃতকারীরা সব সময় আপনাকে আকর্ষণীয় বিজ্ঞাপন এবং ডলারের প্রলোভন দেখিয়ে আপনার গুরুত্বপূর্ণ তথ্য হাতিয়ে নিতে পারে। তাই আকর্ষণীয় বিজ্ঞাপনে ক্লিক করার আগে ভেবে-চিন্তে ক্লিক করুন। নয়তো এক ক্লিকেই কম্পিউটারের কখনো বা নিজের বিপদ ডেকে আনবেন।

উত্তর দিন