৮০ লাখ বাংলালিংক রবি গ্রামীণফোন মোবাইল ফোনে জীবন বীমা গ্রাহক

0 152

দেশের তিন বাংলালিংক রবি ও গ্রামীণফোন শীর্ষ অপারেটরের গ্রাহকদের মধ্যে অন্তত ৮০ লাখ জন মোবাইল ফোনের মাধ্যমে জীবন বীমা সুবিধা নিতে শুরু করেছেন। আর দিনে দিনে জীবন বীমা’র এই তালিকায় আরো নতুন নতুন গ্রাহক যুক্ত হচ্ছেন। কোনো রকম প্রিমিয়াম দেওয়া ছাড়াই কেবল মাত্র নিয়মিত ব্যবহারেও পরে গ্রাহকরা অপারেটরদের কাছ থেকে এই সুবিধা পেতে পারছেন।

Jibon Bimaগ্রাহক সংখ্যার দিকে দিয়ে রবি তৃতীয় অপারেটর হলেও জীবন বীমার তালিকায় তারাই সবার আগে। ২০১২ সালে তারাই প্রথম এই পথ দেখায়। তাদের দেখা দেখি গ্রামীণফোন ও আসে সেবা নিয়ে। আর কিছু দিন আগে এর মধ্যে যুক্ত হয়েছে বাংলালিংক। তবে জীবন বীমা সুবিধা দেওয়ার ক্ষেত্রে চমক দেখিয়েছে বাংলালিংক। রবির গ্রাহকদের মধ্যে বর্তমানে ৪৯ লাখ গ্রাহক জীবন বীমার জন্যে রেজিস্ট্রেশন করেছেন। ২০১২ সালের জুলাই মাসে চালু হওয়া এই সেবাটির জন্যে শর্ত হল গ্রাহককে প্রতি মাসে নূন্যতম ২৫০ টাকা খরচ করতে হবে। আর সেটি করলে কোনো রকম প্রিমিয়াম দেওয়া ছাড়াই গ্রাহক এই বীমা সুবিধা পেয়ে যাবেন যেখানে তিনি সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা পর্যন্ত ক্ষতিপূরণ পেতে পারেন।

এ পর্যন্ত রবি ২৭৩টি দাবি পরিশোধ করেছে যেখানে তারা দিয়েছে ৮৬ লাখ টাকা। সূত্র জানিয়েছে, রবি যখন অফারটি চালু করে তখন তাদের মূল কোম্পানি আজিয়াতা একই সঙ্গে শ্রীলংকা এবং ইন্দোনেশিয়াতেও তাদের গ্রাহকদের জন্যে একই সেবা চালু করে। আর তখন পর্যন্ত এটি ছিল পৃথিবীতে নতুন ধরনের এক মোবাইল সেবা। অভিনব এই সেবাটির জন্যে ২০১৩ সালে ইমার্জেং মার্কেট ইনিশিয়েটিভ অব দ্যা ইয়ার পুরস্কারও জিতেছে অপারেটরটি।

গত বছর জুন মাসে রবির মতোই একই শর্তে সেবাটি নিয়ে আসে দেশ সেরা অপারেটর গ্রামীণফোন। আর এ পর্যন্ত তাদের নিবন্ধিত গ্রাহক পৌঁছেছে ২৫ লাখে। আর এ পর্যন্ত তারা ২৪ লাখ টাকার দাবি পরিশোধ করেছে বলে জানিয়েছে গ্রামীণফোন কর্তৃপক্ষ। আর রবি ও গ্রামীণফোনের পর এবছর জুনে গ্রাহকদের জন্যে বীমা সুবিধা চালু করল দ্বিতীয় গ্রাহক সেরা অপারেটর বাংলালিংক। আর এক্ষেত্রে তারা চমক হিসেবে নিয়ে এসেছে ১০ লাখ টাকা পর্যন্ত বীমা দাবি পরিশোধের সুযোগ।

এক্ষেত্রে তাদের পার্টনার প্রগতি লাইফ ইনসুরেন্স ও ডেল্টা লাইফ ইন্সুরেন্স। তবে আরো কয়েকটি ইনসুরেন্স কোম্পানিকে এর সঙ্গে যুক্ত করা হচ্ছে বলে জানিয়েছে অপারেটরটি। বাংলালিংক জানিয়েছে, বর্তমানে তাদের গ্রাহক সংখ্যা ৫ লাখ ছাড়িয়ে গেছে এবং প্রতিদিনই তা বাড়ছে।

তিনটি অপারেটরই বলছে, অনাকাঙ্খিত দুর্ঘটনা ঘটলেও যাতে প্রিয়জনদের ভবিষ্যত নিশ্চিত হয় সেই বিষয়টি মাথায় রেখে এই অফারটি সাজানো হয়েছে। সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, দেশে সব মিলে এক শতাংশের কম লোক জীবন বীমার আওতায় আছে। আর এই প্রক্রিয়ার মাধ্যমে তিনটি মোবাইল ফোন অপারেটর খানিকটা হলেও সাধারণ মানুষের উপকার করতে পারছেন বলে দাবি তাদের।

উত্তর দিন