৩টি বাংলাদেশী অনলাইন বিজ্ঞাপন প্রতিষ্ঠান রিভিউ- ঘরে বসে টাকা আয় করুন, নিজের ওয়েবসাইট থেকে…

0 216
অনলাইন বিজ্ঞাপন প্রতিষ্ঠান বলতে কি বুঝিয়েছি, বুঝেছেন তো নাকি? হ্যাঁ, যেসব প্রতিষ্ঠান অনলাইনে বিজ্ঞাপন প্রচার করে থাকে সেগুলোই হল অনলাইন বিজ্ঞাপন প্রতিষ্ঠান বা এজেন্সি। এরা সাধারনত বিজ্ঞাপন দাতাদের কাছে থেকে বিজ্ঞাপন নিয়ে তাদের পাবলিশারদের মাধ্যমে অনলাইনে বিভিন্ন সাইটে বিজ্ঞাপন প্রচার করে থাকেন। এই গেলো এদের প্রাথমিক পরিচয়।
৩টি বাংলাদেশী অনলাইন বিজ্ঞাপন প্রতিষ্ঠান রিভিউ
চোখ বুজে অনলাইন বিজ্ঞাপন এজেন্সির কথা মনে করলে প্রথমেই যে নামটা আসবে তা হলো অ্যাডসেন্স। হুম, অ্যাডসেন্সকে চেনেন না এমন লোক তো অনলাইনে কমই আছে মনে হয়। অ্যাডসেন্স হল গুগলের অনলাইন বিজ্ঞাপনের একটি প্রতিষ্ঠান। অ্যাডসেন্সের পর মনে আসে অনেক হাজার হাজার নাম। যাক অ্যাডসেন্স তো গেলো সারা বিশ্ব মিলিয়ে। এবার আসি মাতৃভূমি বাংলাদেশে। বাংলাদেশেও কিছু খাঁটি বাঙালি প্রতিষ্ঠান আছে যেগুলো অনলাইনে বিজ্ঞাপন প্রচারের কাজ করে থাকে। বাংলা ভাষার সাইটগুলো সাধারনত এসব বিজ্ঞাপন মিডিয়াকেই ব্যবহার করেন। এরকমই তিনটি বাংলাদেশী অনলাইন অ্যাডভারটাইজিং মিডিয়া সম্পর্কে আজ শেয়ার করছি আমার ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা। আবারো বলছি, নিজে পাবলিশার হিসেবে তাদের সাথে কাজ করার অভিজ্ঞতা থেকেই রিভিউটি লিখছি।

Green and Red Technologies Limited

Green Red হলো বাংলাদেশের সর্ববৃহৎ অনলাইন বিজ্ঞাপনী প্রতিষ্ঠান। রবি, গ্রামীন, বাংলালিংক, এয়ারটেল ছাড়াও অনেক বড় বড় ব্র্যান্ডের বিজ্ঞাপন অনলাইনে প্রচার করে থাকে এই Green Red। দীর্ঘদিন যাবত এরা বাংলাদেশে বিজ্ঞাপনী সংস্থা হিসেবে কাজ করে যাচ্ছে। অ্যালেক্সা র‍্যাংকের হিসেবে বিচার করলেও দেখা যাবে বাংলাদেশী বিজ্ঞাপনী প্রতিষ্ঠান হিসেবে প্রথমে Green Red রয়েছে। অনেক বড় বড় ব্র্যান্ড যেমন তাদের মাধ্যমে অনলাইনে বিজ্ঞাপন প্রচার করে থাকে তেমনি অনেক বড় বড় বাংলাদেশী ওয়েব সাইটও পাবলিশার হিসেবে বিজ্ঞাপন প্রচার করে ভালো আয় করছে। হুম, এবার আসি আমার কথায়। নিজের ব্লগটিও (ব্লগার মারুফ ডট কম) যখন একটু ভিজিটর পেতে শুরু করল (৬-৭ মাস আগে) ঠিক তখন Green Red এর বাহ্যিক চাকচিক্য দেখে তাদের সাইটে পাবলিশার হিসেবে যোগ দিয়েছিলাম। টাকা তুলতে সর্বনিম্ন ১০০০ টাকা হতে হয়। কিন্তু ভিজিটর অল্প থাকায় অতঃপর ৬ মাস বিজ্ঞাপন প্রচারের পর আমার অ্যাকাউন্টে ১৩০০ টাকার মতন কিছু জমা হয়। এখন টাকা তোলার পালা। আর তখন থেকেই শুরু হয় Green Red এর সাথে আমার জঘন্য অভিজ্ঞতা। ওদের হেল্পলাইন নম্বরে তো মাশাল্লাহ। ফোন দিতে দিতে নিজে বিরক্ত হওয়ার আগ পর্যন্ত কখনও ওদের পাইনি। সম্ভবত গত মাসের ৩ তারিখে বেশ কয়েকবার ফোন দিলাম অতঃপর ফোনে পেলাম। জানালাম, টাকা তুলতে চাই কিন্তু ওয়েব সাইটে তো ক্যাশ আউট করার কোন বাটন পাচ্ছিনা! ওরা আরেকটা নম্বর ধরায় দিয়া বলল এটাতে বলুন আমি টাকা তুলব। সেটাও করলাম। ফোন ধরলেন এক সু-কন্ঠের রমনী (সম্ভবত কাস্টমার কেয়ার ম্যানেজার)। জানালাম টাকা তুলব। বিকাশ নম্বর, ওয়েব সাইট ইত্যাদি ইত্যাদি নিলেন এবং বললেন যে ওই মাসের ১০ তারিখের মাঝে টাকা পেয়ে যাবো। এরপর অপেক্ষার পালা। কিন্তু দুঃখের ব্যাপার আমি ভুলেই গেছিলাম ১০ তারিখ পার হয়ে যাওয়ার পর। একটু টাকার প্রয়োজন পড়েছিল আর তখনই মনে পড়ল Green Red এর কথা। দিলাম আবার ফোন, বললাম যে আমার টাকা কৈ? ১০ তারিখে তো দেয়ার কথা ছিল। এবার বলল, না! এই মাসের মাঝেই পাবেন!!! অতি মেজাজ খারাপের পরও বললাম ঠিক আছে। তারপর চলে আসল ডিসেম্বর মাস। ফোন দেওয়ার একটু আগে অ্যাকাউন্টে ঢুকে দেখি অ্যাকাউন্টে সব ব্যলান্সে পেইড লেখা। আমিতো বেজা খুশি। ভাবলাম এবার ফোন দিলেই টাকা পাব। অনেক অনেক ফোন দেওয়ার পর উনাদের পেলাম (মনে মনে ভাবলাম আমি কি ভিক্ষা নেওয়ার জন্য ফোন দিতাছি?), আবার একই মুখস্ত ভঙ্গিতে বললাম, টাকা কোথায়? এবার উনারা যা বললেন তাতে আর মেজাজ ঠিক রাখা সম্ভব না। উনাদের মার্কেটে নাকি কত কোটি টাকা পড়ে আছে!!!! সিইও নাকি বিদেশ গেছে। ফোন কেটে দিলাম। ধরেই নিলাম টাকা শেষ। আর পাওয়া হইতেছেনা। আমার সাইট থেকে ওদের সব এড উঠায় দিলাম। এই লেখা লিখতেও আমার মেজাজ বারবার বিগড়ে যাচ্ছে। ঐ ব্যাটারা কি বাকীতে বিজ্ঞাপন নেয় নাকি বিজ্ঞাপন দাতাদের কাছে? আর যেমনেই নেক না কেনো আমার তাতে কি? আমার টাকা জমা হলেই আমি উঠাবো এটাই তো সোজা হিসেব। নাকি??? আজ ১৫ ডিসেম্বর, দেড় মাস হয়ে গেলেও টাকা হাতে পাইনি। সেজন্যই এই চমৎকার রিভিউ লিখলাম। চকচকে প্রতিষ্ঠানের আড়ালে এরা করে যাচ্ছে বাটপারি। দোয়া করেই যাচ্ছি যেন অচিরেই উনাদের ব্যবসায় লাল, নীল, বেগুনী বাতি জ্বলে। অ্যাকাউন্ট ব্যালান্সে পেইড লিখে রেখে দিয়া যে প্রতিষ্ঠান টাকা দেয়না তাদের কে বাটপার বললে মন্দ হয় না। কি বলেন? Green and Red Technologies একটি বাটপার অনলাইন বিজ্ঞাপনী প্রতিষ্ঠান।

Amader Ad – Online Ad Media

 আমাদের অ্যাড ডট কম ও একটি অনলাইন অ্যাড মিডিয়া। সম্ভবত ১ বছর হয়ে গেছে এর প্রতিষ্ঠার। অনেক সাড়া ফেলে দিয়েছিল অনলাইনে এই Amader Ad। আমিও বেশ কয়েক মাস আমিও পাবলিশার হিসেবে ছিলাম Amader Ad -এ। কিন্তু এদের করুন অবস্থা দেখতে দেখতে আমারই মন খারাপ হয়ে গেলো। কোন বিজ্ঞাপন না পাওয়ায় বিরক্তিকর ডিফল্ট অ্যাড দেখতেই লাগলাম শুধু। তারপর মেজাজ খারাপ করে তুলে দিছিলাম। তারপর আবার একদিন দেখলাম এরা কিছু অ্যাড দেখানো শুরু করছে। আমি আবারো ব্লগে ওদের অ্যাড বসালাম। বিজ্ঞাপন ঠিকই দেখালো কিন্তু এদের ক্লিকের হার আর টাকার হারের কোন পার্থক্যই পাইনা বলে শেষ পর্যন্ত এদেরকে বাদ দিছি। এখন আর Amader Ad ব্যবহার করিনা বলে বর্তমান ধারণা নেই। তবে Amader Ad এর প্রতি শুভ কামনা রইল তাঁরা যেন বাংলাদেশী অনলাইন অ্যাড জগতে দাড়াতে পারে।

Nufa Ad

নুফা অ্যাড নামে একটি নতুন বাংলাদেশী অনলাইন অ্যাড এজেন্সি যাত্রা শুরু করেছে। আমাকে ইমেইলের মাধ্যমে পাবলিশার হওয়ার আমন্ত্রন জানিয়েছিলেন উনারা দু মাস আগে। বর্তমানে এটিই ব্যবহার করছি। খারাপ না, ভালোই। তবে ভবিষ্যৎ তো আর বলা যায় না। এই দু’মাসে দুবার পেমেন্ট পেয়েছি। মাসে মাত্র ৫০ টাকা হলেই টাকা বিকাশের মাধ্যমে তুলতে পারবেন। এখান থেকে আমার যা আয় হয় তা বেশি ভালো না হলেও অন্তত খারাপ না। মাসিক মোবাইল বিল টা উঠে যায়। নুফা অ্যাডের আরেকটা বৈশিষ্ট্য ভালো লেগেছে যে ক্লিক কাউন্টের ক্ষেত্রে লুকাচুরি করেনা। তবে জানিনা তাঁরা ভালো সার্ভিস চালিয়ে যেতে পারবে কিনা। আশা করছি আরও উন্নত সার্ভিস দিতে পারবে নুফা অ্যাড। এই প্রতিষ্ঠানের পাবলিশার হিসেবে ২ মাসের অভিজ্ঞতাতে মনে হলো নাই মামার চেয়ে কানা মামাই ভালো। কারণ এ পর্যন্ত ৩টি অ্যাড মিডিয়া ব্যবহার করে এটি থেকেই শুধু টাকা তুলতে পেরেছি।
nufaaddotcom
আরও বেশ কিছু বাংলাদেশী অ্যাড মিডিয়া আছে। তবে আমি যে তিনটি অ্যাড মিডিয়া ব্যবহার করেছি নিজের অভিজ্ঞতার আলোকে সেগুলোই শুধু তুলে ধরলাম। আপনার অভিজ্ঞতাও শেয়ার করবেন আশা করছি।
Green Hosting

তথ্যসুত্র ও সংগ্রহঃ এখানে

লেখক- ব্লগার মারুফ ডট কম

উত্তর দিন