বাংলা সাইটের জন্য কিসের এড দেখানো সবচেয়ে লাভজনক

0 350

বাংলা সাইটের জন্য এডসেন্স এর সেরা বিকল্প

অনেকেই আছেন যারা ভাল ইংরেজী লিখতে না পারলেও ইংরেজীতে লিখছেন এডসেন্স পাওয়ার জন্য। এডসেন্স যদিও বাংলা সাইটের জন্য খুব একটা ভাল না। বেশী দামী দামী যেসব বিজ্ঞাপন এডসেন্সে দেখান হয় সেগুলো মূলত ইংরেজী কি ওয়ার্ড এর জন্য। তারপরও সবাই এডসেন্স পেতে চায় মূলত কয়েকটি কারণে-
প্রথমত, বাংলাদেশে জনপ্রিয় কোন মাধ্যম নেই যারা বিজ্ঞাপন প্রকাশক(ওয়েবসাইটের মালিক যত ছোটই হোক) এবং যারা বিজ্ঞাপনদাতা(রবি, ফেয়ার এন্ড লাভলি ইত্যাদি) তাদের উদ্দেশ্য সিদ্ধিতে তৃতীয় পক্ষ হিসেবে কাজ করে।
আমাদের এড নামে একটা ওয়েবসাইট শুরু করেছিল কিন্তু এখন ওরা হারিয়ে গেছে। এছাড়া নুফা এড, পয়সা করি এরকম আরো কয়েকটা সাইট চেষ্টা করেছিল এখনো আছে কোনরকমে। গ্রীন রেড নামে আরেকটি সাইট এখনো মোটামুটি ভালভাবে টিকে আছে যারা খুবই কম টাকা দেয়। নতুন এসেছে reditads, চন্দ্রবিন্দু এডস। এরা অন্যদের এড নিয়ে দেখায়। এর চেয়ে ভাল ওরা যাদের কাছ থেকে এড আনে সরাসরি তাদের কাছ থেকে এড এনে দেখানো।
দ্বিতীয়ত, গুগোলের প্রডাক্ট হচ্ছে এডসেন্স। স্বভাবতই এটার প্রতি সবাই আগ্রহী হবে। একটা এডে ক্লিকের জন্য ৫০ ডলার পর্যন্ত গুগোল দেয়। এই আশায় যে বাংলা সাইটে দেখালেও অন্তত একটা ক্লিকে ১ ডলারের দশ ভাগের এক ভাগ হলেও পাওয়া যাবে। বাস্তবে সেটার কোনটাই হয় না। আর বাংলা সাইটে এরা এড দেখায় না।
তৃতীয়ত, আরো কিছু সাইট আছে যেমন yllix, Revenuehits এবং আরো আছে এই মুহূর্তে নাম মনে পড়ছে না…পপক্যাশ, পপএড এরা শুধুই ভিজিটরদের বিরক্তি সৃষ্টি করে। জোর করে এড দেখায় যার ফলে ওই ভিজিটর আর আসে না। এতেও খুব একটা লাভ হয় না।
চতুর্থত, অল্প ভিজিটরের সাইটে সরাসরি বিজ্ঞাপনদাতাদের সাথে যোগাযোগ করে ওদের এড নিয়ে এড দেখান সম্ভব হয় না। নিজের রেফারেল লিংক দেখিয়েও খুব একটা লাভ করা যায় না।

কার্যত যেটা ঘটে

ছোট ছোট সাইটের মালিকেরা মানে ছোটখাট  বানিজ্যিক উদ্দেশ্যের লেখকেরা কিছুদিন পরে হাল ছেড়ে দেন এবং বাংলা সাইটে লেখা ছেড়ে দেন। খুব কমই খুজে পাওয়া যাবে যারা  লেখালেখিতে বানিজ্যিকভাবে সফল হয়েছেন।

আমার লেখা পুরোপুরি নেগেটিভ হয়ে গেল হয়ত। Adhitz বা, a-ads ব্যবহার করে দেখতে পারেন। আপনার সাইটে প্রতিদিন ১০০০ এর মত ইউনিক ভিজিটর থাকলে আনুমানিক ১-৫ ডলারের মত আয় করতে পারবেন। আমি গবেষণা করে এখন এই দুইটিই ব্যবহার করছি। নিচের লিংক থেকে একাউন্ট খুলুন-

এই Anonymous Ads বা, A-ads কিন্তু টাকা দেয় Bitcoin এ। বাংলাদেশে যেহেতু Virtual Currency তে লেনদেন বৈধ না, সেহেতু বিটকয়েনে পাওয়া টাকা আপনি বাংলাদেশ থেকে তুলতে পারবেন না। এজন্য বিভিন্ন Exchanger এর শরণাপন্ন হতে পারেন। Exchanger গুলো যেহেতু বাংলাদেশের না সেহেতু ওদের মাধ্যমে বিটকয়েন লেনদেন বাংলাদেশে ঘটছে না। আপনি বাংলাদেশে আনবেন ডলার Payza এর মাধ্যমে। Payza নিজেই সাজেস্ট করে এরকম একটি Exchanger হচ্ছে Goldux. সুতরাং এটাকে বিশ্বাস করতেই পারেন। এতে একাউন্ট খুলতে নিচের লিংক ব্যবহার করুন-
আশা করি এই লেখাটা পড়ার পরে যারা নিজের বাংলাদেশী বাংলা সাইটে লেখালেখি করেন তাদের হতাশা কিছুটা হলেও কমবে। কমেন্টে আপনার মতামত কিংবা প্রশ্ন জানাতে পারেন।

আরো কিছু কথা

Anonymous Ads এ একাউন্ট খোলাটা একটু ঝামেলার মনে হতে পারে, কিন্তু বাংলা সাইটের Publisher দের জন্য এরচেয়ে ভাল কোন এডমিডিয়া এখনো আমি খুজে পাই নি। আপনি একাউন্ট না খুলেও এড দেখাতে পারবেন, এজন্য একটি Bitcoin Wallet থাকতে হবে। Wallet Adress দিয়ে খুব সহজে আপনি একটি এড ইউনিট তৈরি করতে পারবেন। এজন্য মেনুবারে Earn অপশনটি সিলেক্ট করুন। আর Goldux, Payza নিজেই সাজেস্ট করে তাই এদের সম্পর্কে কিছু বললাম না। এই দুইটি সাইটই বিশ্বাসযোগ্য।Anonymous Ads খুব কম btc জমা হলেও টাকা তুলতে দেয়। Withdraw দেয়াও লাগে না, অটোমেটিক্যালি টাকা Wallet Adress এ চলে যায়।
আর দেরি না করে, এখনই A-ads আপনার সাইটে লাগিয়ে নিন(অন্তত একমাস দেখুন)। পছন্দ না হলে ১ মাস পরে বাদ দিয়ে দেবেন।
অভিযোগ করতে পারেনঃ এরা এডে ক্লিকের জন্য টাকা দেয় না, ইউনিক impression এর জন্য দেয়। যার সাইটে ইউনিক ভিজিটর যত বেশী তাঁর আয়ও তত বেশী হবে। তবে যে সাইটে যত বেশী ক্লিক পড়ে সেই সাইটে Ad Campaign চলার সম্ভাবনা তত বেশী। আশা করি খারাপ লাগবে না। আরো কোন তথ্য লাগলে নিচের  কমেন্ট বক্সে কমেন্ট করুন।

উত্তর দিন