প্রথম সপ্তাহেই ১০,০০০ ভিউয়ার্স লুফে নিন ইউটিউবে (Youtube Backlinking)

1 186

বর্তমানে আমরা অনেকেই ইউটিউবে অর্থ উপার্জনের চেষ্টা করি। তবে ইউটিউবে চ্যানেল মনেটাইজেশন (Monetization) করতে প্রাথমিকভাবে ১০০০০+ ভিউয়ার্‌স প্রয়োজন। এজন্যে আমরা ফেসবুকে আমাদের ভিডিওগুলো শেয়ার করি। কিন্তু শেয়ার করে কতদিন চলবে? এভাবে করলে নষ্ট গাড়ির মতো শুধু পিছন দিক দিয়ে ঠেলতে হবে।

যাতে আপনিও একসময় হাপশে উঠবেন। তাই আর শেয়ার নয়। এবার এমন পদ্ধতি অবলম্বন করবেন যেন দর্শক আপনার ভিডিও খুঁজে বের করে। আপনি নয়, দর্শকরাই আপনার ভিডিও শেয়ার করে ছড়িয়ে দিবে। তাহলে চলুন, শুরু করা যাক।

ইউটিউবে ভিউ পেতে হলে আপনার কিছু পন্থা অবলম্বন করতে হবে। যা হলোঃ

  1. ইউটিউব টাইটেলঃ এর উপর অনেকটাই নির্ভরশীল যে আপনার ভিডিও সার্চ করলে পাওয়া যাবে কি না?
  2. ইউটিউব ডেসক্রিপশনঃ সার্চ ইঞ্জিনে আপনার ভিডিও দেখাতে অনেকটা ভূমিকা পালন করে।
  3. থাম্বনেইলঃ আগে দর্শনধারী পরে গুণবিচারী। থাম্বনেইল দেখেই দর্শক ঠিক করে আপনার ভিডিও দেখবে কি না?
  4. ভিডিও কোয়ালিটিঃ সব সময় চেষ্টা করবেন HD ভিডিও আপলোড করতে। সাথে কণ্ঠ থাকলে সার্চ র‍্যাঙ্কিং-এ উপরে চলে আসে।
  5. ইউটিউব ট্যাগঃ যদিও এখন এর ভূমিকা কিছুটা কম। তবুও ভালো মানের ট্যাগ ব্যবহার করা উচিত।
  6. (অপশনাল) ভিডিওটি বড় হলেও সার্চ ইঞ্জিনে উপরে চলে আসে। বড় বলতে ১০ মিনিট+।

এগুলো অবলম্বন করলে ইউটিউবে যে আহামরি ভিউয়ার্স পাবেন এমনটা নয়। তবে ইউটিউবে সাকসেসফুল হতে  হলে এগুলোই প্রয়োজন। তবে আজকের টিউনটি হলো মূলত ইউটিউব ব্যাকলিঙ্কিং নিয়ে। যার মাধ্যমে আপনি সার্চ ইঞ্জিনে আপনার ইউটিউব ভিডিও র‍্যাঙ্ক করতে পারবেন।

Youtube Backlinking

এটি মূলত আপনার ইউটিউব ভিডিও-কে অন্য ওয়েবসাইটে পাবলিশ করা। এর মাধ্যমে সার্চ ইঞ্জিনের রোবট বুঝতে পারে আপনার ভিডিও উন্নতমানের, যা বিভিন্ন ওয়েবসাইটে রয়েছে। তাই তারাও আপনার ভিডিও র‍্যাঙ্ক করে। ফলে ভিউয়ার যখন সার্চ করে তখন আপনার ভিডিও সহজেই দেখতে পায়। নিচের ভিডিওটি দেখে আপনি ব্যকলিঙ্কিং শিখতে পারেনঃ

https://www.youtube.com/watch?v=DwfliI_kHhI

[youtube https://www.youtube.com/watch?v=DwfliI_kHhI?feature=oembed]

ব্যাকলিঙ্ক তৈরির ওয়েবসাইট। এর মাধ্যমে ১-২ মিনিটে ১০০+ ওয়েবসাইটে ব্যাকলিঙ্ক তৈরি করতে পারেন। তবে মনে রাখবেন দিনে ১০০ টা ব্যাকলিংক তৈরি করলে আপনি Safe। কিন্তু এর বেশি করলে এর দায়িত্ব ইউটিউবের। তারা আপনার চ্যানেলকে স্প্যাম মনে করতে পারে। এবার আপনাদের দেখাই যে আমি ব্যাকলিঙ্ক করে কেমন ভিউ পেলাম ?

আমার আসলে ইউটিউবিং করে উপার্জনে কোন ইচ্ছে নেই। সখের বসে ২-১টা ভিডিও আপলোড করি। মাঝে মধ্যা আপনাদের সাথে শেয়ার করি।

দেখতেই পাচ্ছেন, সকল ভিউ এসেছে সার্চ করে। আর এর বেশিরভাগ ভিউয়ার্সই হলো আমেরিকার। এই ভিডিওটা আমি ৬ দিন আগে প্রকাশ করেছি। কোন শেয়ার বিহীন এতে এখন পর্যন্ত ৬০০০+ ভিউ এসেছে। আরেকটি ভিডিও-এর স্ক্রিনশটঃ

এই ভিডিওর বেশিরভাগ ভিউ এসেছে ইউটিউব সার্চ করে। কোন শেয়ার প্রয়োজন হয় নি। অন্যরাই এটি শেয়ার করেছে।

রকেট সাজেশন

ইউটিউব ভিডিও যথাসম্ভব ট্রেন্ডস বিষয় নিয়ে করবেন। যা সম্পর্কে খুব কম ভিডিও ইউটিউবে রয়েছে। তবে এর চাহিদাও প্রচুর। অনুসন্ধান করবেন ভিডিও-এর টাইটেল নিয়ে, সব সময় কাস্টম থাম্বনেইল অ্যাড করবেন। ট্রেন্ডস বিষয় নিয়ে ভিডিও করলে খুব কম সময়ে অধিক ভিউয়ার্স পাওয়া যায়।

আমার ইউটিউব চ্যানেলঃ 

1 টি মন্তব্য
  1. Shohorab_Naeem বলেছেন

    thanks

উত্তর দিন