অ্যামাজনের তৈরী প্রথম স্মার্টফোন – ফায়ার ফোন থ্রিডি

0 167
ফায়ার ফোন: অ্যামাজনের প্রথম স্মার্টফোন

ফায়ার ফোন: অ্যামাজনের প্রথম স্মার্টফোন

অভিজাত রেস্তোরাঁর আবেদন যতটা মেন্যুতে তার থেকে বেশী সম্ভবত পরিবেশনায়। কিছুটা অদ্ভুত কিন্তু চমৎকারভাবে মানানসই আসবাবপত্র, দূরাগত সংগীত, জায়ান্ট স্ক্রীনে আকর্ষণীয় পরিবেশনা – এদের সামঞ্জস্য মিলে তৈরী হয় এক আকর্ষণীয় আব‌হ। আপনি চাইলে ঐ অদ্ভুতদর্শন আসবাব, কি হঠাৎ কানে আসা শ্রূতিমধুর সংগীত অথবা সামনের স্ক্রীনের নাম না জানা চলচ্চিত্রটি এখন স‌হজেই চিনতে(এবং কিনতে) পারবেন অ্যামাজনের সদ্য ঘোষিত ফায়ার ফোন দিয়ে। আসবাব, সংগীত কি ভিডিও – যেকোনকিছুই সনাক্ত করতে সক্ষম অ্যামাজনের এই উচ্চ প্রযুক্তির থ্রিডি ফোন। সেই সাথে অ্যামাজনের বিশাল আকারের অনলাইন স্টোরে সনাক্তকৃত পণ্যের পেইজে পৌঁছে দেবে আপনাকে।

আসবাব, সংগীত কি ভিডিও - যেকোনকিছুই সনাক্ত করতে সক্ষম ফায়ার ফোন

আসবাব, সংগীত কি ভিডিও – যেকোনকিছুই সনাক্ত করতে সক্ষম ফায়ার ফোন

অ্যান্ড্রয়েডের পরিবর্তিত(forked) সংস্করণ ফায়ার ওএস নিয়ে বাজারে আসবে অ্যামাজনের প্রথম স্মার্টফোন। অ্যাপল আইফোন ফাইভ আর স্যামসাং গ্যালাক্সি এস ফাইভ-এর সমমূল্যের ফোনটি পাওয়া যাবে ৩২ ও ৬৪ গিগাবাইট স্টোরেজ সংস্করণে। যেকোন পণ্য, সংগীত, লেখনী বা ভিডিও সনাক্তকরণের প্রযুক্তি ফায়ারফ্লাই ছাড়াও ফোনটিতে রয়েছে মে-ডে সুবিধা। প্রয়োজনে মাত্র ১৫ সেকেন্ডের মাঝে একজন অ্যামাজন প্রতিনিধির সাথে সরাসরি কথা বলতে পারবেন ফায়ারফোন ব্য‌ব‌হারকারীরা। সকল ছবি ফোন থেকে সরাসরি সংরক্ষণ করা যাবে অ্যামাজনের ক্লাউড অবকাঠামোয়। আর অ্যামাজনের নিজস্ব অ্যাপলিকেশন স্টোরে পাওয়া যাবে অসংখ্য ফায়ার অ্যাপস। প্রায় সাড়ে ছয়শত ইউএস ডলার মূল্যের ফায়ারফোন বর্তমানে পাওয়া যাচ্ছে শুধু কালো সংস্করণে।

ক্যামেরা:  ওআইএস প্রযুক্তি

ক্যামেরা: ওআইএস প্রযুক্তি

এক নজরে অ্যামাজন ফায়ার ফোন

– অপারেটিং সিস্টেম: ফায়ার ফোন ৩.৫.০

– পর্দা: ৪.৭ ইঞ্চি এইচডি এলসিডি

– প্রসেসর: ২.২ গিগাহার্জ কোয়াডকোর স্ন্যাপড্রাগন ৮০০

– মেমরী: র‍্যাম ২ গিগাবাইট, রম ৩২/৬৪ গিগাবাইট

– ক্যামেরা: ১৩ মেগাপিক্সেল, ওআইএস প্রযুক্তি

– গঠন : ১৩৯.২ মিমি x ৬৬.৫ মিমি x ৮.৯ মিমি

– ওজন: ১৬০ গ্রাম

Source : Exclusive Mobile Zone

উত্তর দিন