এক্সক্লুসিভ হ্যান্ডস-অন রিভিও Primo RX2

0 223

অ্যান্ড্রয়েডের সর্বশেষ সংস্করণ অ্যান্ড্রয়েড ৪.৪.২ কিটক্যাট অপারেটিং সিস্টেমের Primo RX2 হচ্ছে অ্যান্ড্রয়েড কিটক্যাট সহকারে দেশের বাজারে আসা ওয়ালটনের প্রথম স্মার্টফোন ।  এই ফোনের একটি বিশেষ দিক হলো এতে প্রথমবারের মতো Anti Theft এর মতো নিরাপত্তা ফিচার যুক্ত করা হয়েছে, যা এর আগে সাধারণত বিভিন্ন অ্যাপের সাহায্যে পাওয়া যেতো। উভয় সীম স্লটেই থ্রিজি সুবিধাসম্পন্ন প্রিমো আরএক্স২ ইতোমধ্যেই ক্রেতাদের মাঝে বেশ সাড়া ফেলেছে বলে জানা গেছে। উল্লেখ্য, এর আগে Primo RX মডেলের একটি স্মার্টফোন বাজারে এনেছিলো ওয়ালটন, সেদিক বিবেচনায়  Primo RX2 কে Primo RX এর উত্তরসূরী বলা যেতেই পারে ।

Source:tech.priyo.com

প্রিয় পাঠক, চলুন একনজরে Primo RX2 স্মার্টফোনটির উল্লেখযোগ্য ফিচারসমুহ দেখে নিইঃ

  • অ্যান্ড্রয়েড ৪.৪.২ কিটক্যাট অপারেটিং সিস্টেম
  • ৫ ইঞ্চির এইচডি আইপিএস ডিসপ্লে
  • ১৩ মেগাপিক্সেলের রিয়ার ক্যামেরা
  • ২ মেগাপিক্সেলের ফ্রন্ট ক্যামেরা
  • ১ গিগাবাইটের র‍্যাম
  • মালি ৪৫০ জিপিউ
  • ১.৫ গিগাহার্টজ গতির হেক্সাকোর প্রসেসর
  • ডুয়েল সীম
  • ৮ গিগাবাইটের ইন্টারনাল মেমোরী
  • ৩২ গিগাবাইট পর্যন্ত এক্সটারনাল মেমোরী কার্ড ব্যবহারের সুবিধা
  • ২,২০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ারের লিথিয়াম-আয়ন ব্যাটারী

এবারে তাহলে বিস্তারিত রিভিউয়ের দিকে যাওয়া যাক-

আনবক্সিং:

Primo RX2 স্মার্টফোনটির বক্সে যা যা রয়েছে –

  • হ্যান্ডসেট
  • ব্যাটারী
  • চার্জার অ্যাডাপ্টার
  • ডাটা ক্যাবল
  • ইয়ারফোন
  • ইউজার ম্যানুয়াল
  • ওয়ারেন্টি কার্ড

Primo RX2 Unboxing

Primo RX2 Unboxing 2

অপারেটিং সিস্টেমঃ ওয়ালটনের অধিকাংশ স্মার্টফোনের অপারেটিং সিস্টেম হিসেবে অ্যান্ড্রয়েড ৪.২.২ জেলিবিন ব্যবহার করা হলেও ক্রেতাদের চাহিদার কথা মাথায় রেখে প্রিমো আরএক্স২ স্মার্টফোনটির অপারেটিং সিস্টেম হিসেবে অ্যান্ড্রয়েডের সর্বশেষ সংস্করণ অ্যান্ড্রয়েড ৪.৪.২ কিটক্যাট ব্যবহার করা হয়েছে।

Primo RX2 OS

বলে রাখা ভালো, এটি অ্যান্ড্রয়েড কিটক্যাট সহকারে দেশের বাজারে আসা ওয়ালটনের প্রথম স্মার্টফোন । প্রসঙ্গতঃ উল্লেখ্য, ইতোঃপূর্বে বাজারে আসা Primo H3, Primo R3 প্রভৃতির জন্য ইতোমধ্যে কিটক্যাট আপডেট (বেটা) এনেছে ওয়ালটন।

Android Kitkat

বিল্ড কোয়ালিটি ও ডিজাইনঃ Primo RX2 স্মার্টফোনটি বেশ আকর্ষণীয় ও নজরকাড়া ডিজাইনের। এর উপরের অংশে রয়েছে ৩.৫ মিলিমিটার অডিও পোর্ট আর নিচের অংশে ইউএসবি ২.০ পোর্ট । ফোনটির একপার্শ্বের অংশে রয়েছে ভলিউম কী ও অপরপার্শ্বে পাওয়ার কী।

Primo RX2 Design

হালকা গড়নের এই স্মার্টফোনটির ওজন মাত্র ১৩৭ গ্রাম। এই ফোনটি মাত্র ৮.২৫ মিলিমিটার পুরু। এটি উচ্চতায় ১৪৭ মিলিমিটার আর প্রস্থে ৭২ মিলিমিটার।

প্রিমো আরএক্স২ স্মার্টফোনটির পেছনের দিকে উপরের অংশে আছে রিয়ার ক্যামেরার লেন্স ও ফ্ল্যাশলাইট আর নিচের দিকে রয়েছে স্পীকার।

Primo RX2 Back

এছাড়া সম্মুখভাগে ফ্রন্ট ক্যামেরা, সেন্সর, স্পীকার প্রভৃতি তো রয়েছেই। এই ফোনে ৩ টি বাটন রয়েছে – হোম/মেনু, অপশন ও ব্যাক।

ডিসপ্লেঃ এই স্মার্টফোনটিতে রয়েছে ৫ ইঞ্চির এইচডি আইপিএস ডিসপ্লে। এর ডিসপ্লের রেজ্যুলেশন হলো ১২৮০x৭২০ পিক্সেলের। এর ডিসপ্লের নিরাপত্তার জন্য এতে কর্নিংয়ের ২য় প্রজন্মের গরিলা গ্লাস ব্যবহার করা হয়েছে। এর ডিসপ্লের পিক্সেল ডেনসিটি ২৯৪ পিপিআই।

Primo RX2 Display

নোটিফিকেশন বারঃ

সিপিউঃ সিপিউ হিসেবে এই ফোনে রয়েছে ১.৫ গিগাহার্টজের হেক্সাকোর প্রসেসর। উল্লেখ্য, Primo RX2 ওয়ালটনের তো বটেই দেশের বাজারেই প্রথম হেক্সাকোরের স্মার্টফোন। অপেক্ষাকৃত দ্রুতগতির প্রসেসর থাকায় এই ফোনে মাল্টিটাস্কিং, এইচডি গেমিং প্রভৃতি বেশ স্মুথলি করা যায়।

Primo RX2 CPU

চিপসেটঃ ওয়ালটনের অধিকাংশ স্মার্টফোনের ন্যায় এই ফোনেও মিডিয়াটেকের চিপসেট ব্যবহার করা হয়েছে। এতে মিডিয়াটেকের হেক্সাকোর চিপসেট MT6591 ব্যবহৃত হয়েছে । উল্লেখ্য, স্বল্পমূল্যের স্মার্টফোনসমূহে সাধারণত তূলনামূলক সস্তা মিডিয়াটেক চিপসেট ব্যবহার করা হয়ে থাকে।

জিপিউঃ ইতোঃপূর্বে বাজারে আসা ওয়ালটনের অধিকাংশ স্মার্টফোনে জিপিউ হিসেবে অপেক্ষাকৃত নিম্নমানের মালি-৪০০ জিপিউ ব্যবহার করা হলেও আকর্ষণীয় ডিজাইনের Primo RX2 স্মার্টফোনটিতে অপেক্ষাকৃত শক্তিশালী মালি-৪৫০ জিপিউ ব্যবহার করা হয়েছে। ফলশ্রুতিতে এই ফোনের গ্রাফিক্স কোয়ালিটি কিংবা গেমিং পারফরম্যান্স অন্যান্য সাধারণমানের জিপিউসমৃদ্ধ স্মার্টফোনের তুলনায় বেশ সন্তোষজনক।

Primo RX2 GPU

মেমোরীঃ Primo RX2 স্মার্টফোনটিতে রয়েছে ৮ গিগাবাইটের ইন্টারনাল মেমোরী। তবে ব্যবহারকারী চাইলে এতে ৩২ গিগাবাইট পর্যন্ত এক্সটারনাল মেমোরী কার্ড ব্যবহার করে এর মেমোরী বাড়িয়ে নিতে পারবেন।

Primo RX2 Memory

Primo RX2 Memory

 

Primo RX2 Internal Memory

র‍্যামঃ এই ফোনে ১ গিগাবাইটের র‍্যাম দেওয়া হয়েছে, যার মধ্যে প্রায় ৯৫৩ মেগাবাইট ব্যবহারযোগ্য। র‍্যাম অধিক হওয়ার কারণে এতে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক অ্যাপস ইন্সটল করলেও র‍্যাম মোটামুটিভাবে ফাঁকাই থাকে। এতে Facebook, Google Chrome, Whatsapp সহ প্রয়োজনীয় নানা অ্যাপ্লিকেশন রানিং থাকার পরেও প্রায় ৩৫০ মেগাবাইট র‍্যাম ফাঁকা ছিলো।

Primo RX2 RAM

ক্যামেরাঃ Primo RX2 স্মার্টফোনটিতে রয়েছে ১৩ মেগাপিক্সেলের রিয়ার ক্যামেরা। উন্নতমানের ছবি তোলা নিশ্চিত করতে এর ক্যামেরায় BSI সেন্সর ব্যবহার করা হয়েছে।

Primo RX2 Camera Specs

এছাড়া ক্যামেরায় অটোফোকাস, এলইডি ফ্ল্যাশ, স্মাইল ডিটেক্টর, প্যানোরোমা মোড, ফেস ডিটেকশন প্রভৃতি সুবিধাতো থাকছেই। এর ক্যামেরায় তোলা ছবির মান বেশ সন্তোষজনক।

Primo RX2 Camera

Primo RX2 Camera 2

 

 

 

এসবের পাশাপাশি সেলফি তোলা কিংবা ভিডিও কলিংয়ের জন্য আছে BSI সেন্সরযুক্ত ২ মেগাপিক্সেলের ফ্রন্ট ক্যামেরা।

মাল্টিমিডিয়াঃ Primo RX2 এ রয়েছে ৩.৫ মিলিমিটারের অডিও জ্যাক। এর সাথে যে হেডফোনটি দেওয়া হয় তার সাউন্ড কোয়ালিটি বেশ ভালোই। এর অডিও সাউন্ড কোয়ালিটিও অনেক সুন্দর। এই ফোনে আরো আছে এফএম রেডিও, সে সাথে থাকছে এফএম রেডিও রেকর্ডার। ফলে আপনি আপনার পছন্দের কোন রেডিও প্রোগ্রাম অনায়াসেই রেকর্ড করতে পারবেন।

Multimedia

আর এই ফোনের ডিসপ্লে কোয়ালিটি বেশ উন্নত হওয়ায় এতে দারুণভাবে ভিডিও উপভোগ করা যায়। Primo RX2 স্মার্টফোনটিতে জনপ্রিয় ভিডিও প্লেয়ার MX Player আগে থেকেই ইন্সটল করে দেওয়া আছে। ফলে আপনি এতে যেকোন ফরম্যাটের ভিডিও চালাতে পারবেন। উল্লেখ্য, এতে ১০৮০ পি ফুল এইচডি ভিডিও কোন ধরণের ল্যাগ ছাড়াই চলে।

Primo RX2 Video

গেমিং পারফরম্যান্সঃ এই ফোনের গেমিং পারফরম্যান্স সন্তোষজনক। Primo RX2 স্মার্টফোনটিতে হেক্সাকোর প্রসেসর ব্যবহৃত হওয়ায় ও এর র‍্যাম ১ গিগাবাইট থাকায় এতে বিভিন্ন ধরণের এইচডি গেম বেশ স্মুথলি খেলা যায়। এই ফোনে ফিফা’১৪, অ্যাসফাল্ট ৮, ডিড ট্রিগার ২, মডার্ন কমব্যাট ৪, টেম্পল রান ২ প্রভৃতি জনপ্রিয় গেম কোন ধরণের ল্যাগিং ছাড়াই খেলা গেছে।

Primo RX2 Gaming

কানেক্টিভিটিঃ এই ফোনে ব্লুটুথ ৪.০, ওয়াইফাই, ওয়্যারলেস হটস্পট প্রভৃতি কানেক্টিভিটি সুবিধা রয়েছে। এছাড়া জিপিএস নেভিগেশন সুবিধাতো থাকছেই।

সেন্সরঃ Primo RX2 স্মার্টফোনটিতে এক্সিলেরোমিটার, প্রক্সিমিটি, লাইট প্রভৃতি সেন্সর রয়েছে।

Primo RX2

সীমঃ ওয়ালটনের অধিকাংশ স্মার্টফোনের মতো প্রিমো আরএক্স২ স্মার্টফোনটিতেও রয়েছে ২টি সিম ব্যবহারের সুবিধা। উল্লেখ্য, এর উভয় সীম স্লটেই থ্রিজি সুবিধা উপভোগ করা যাবে ।

ব্যাটারীঃ অ্যান্ড্রয়েড ব্যবহারকারী মাত্রই ডিভাইসের চার্জিং নিয়ে খানিকটা চিন্তিত থাকেন। আর তাইতো অপেক্ষাকৃত দীর্ঘস্থায়ী ব্যাটারী ব্যাকআপ নিশ্চিত করার জন্য Primo RX2 স্মার্টফোনটিতে ২,২০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ারের লিথিয়াম-আয়ন ব্যাটারী ব্যবহার করা হয়েছে। এর ব্যাটারী ব্যাকআপ সন্তোষজনক। একবার ফুল চার্জ দিলে টানা ৫ ঘণ্টারও অধিক সময় নেট চালানো যায়। আর একবার ফুল চার্জে টানা ৫-৬ ঘন্টা এইচডি ভিডিও দেখা যায়। তবে আরেকটু বেশি মিলিঅ্যাম্পিয়ারের ব্যাটারী দিলে তা আরও ভালো হতো।

Primo RX2 Battery

ওটিজিঃ ওয়ালটনের নতুন স্মার্টফোন Primo RX2 এ OTG (USB On The Go) সুবিধা রয়েছে। ফলে ব্যবহারকারী এতে মাউস, কীবোর্ড, পেনড্রাইভ, এক্সটারনাল হার্ডডিস্কসহ বিভিন্ন ধরণের ইউএসবি ড্রাইভ ব্যবহার করতে পারবেন।

Primo RX2 OTG

বেঞ্চমার্কঃ কোন ডিভাইসের সক্ষমতা যাচাইয়ের জন্য সাধারণত বেঞ্চমার্ক স্কোর যাচাই করা হয়ে থাকে। Primo RX2 এর বেঞ্চমার্ক স্কোর যাচাইয়ের জন্য বেঞ্চমার্ক যাচাইয়ের জনপ্রিয় অ্যাপ AnTuTu বেছে নেওয়া হয়েছিলো। AnTuTu তে এর স্কোর এসেছে ২২৫১০

Primo RX2 AnTuTu Benchmark

AnTuTu স্কোরের দিক থেকে Samsung Galaxy Note 2, Xperia Z,  Google Nexus 10 প্রভৃতির থেকে Primo RX2 এগিয়ে রয়েছে  ।

Primo RX2 Antutu Compare

দেখুন Primo RX2 ও Samsung Galaxy Note 2 এর তূলনামূলক AnTuTu স্কোরঃ

Primo RX2 vs Galaxy Note 2

Primo RX2 ও Xperia Z এর তূলনামূলক AnTuTu স্কোরঃ

Primo RX2 vs Xperia Z

বেঞ্চমার্ক যাচাইয়ের আরেক অ্যাপ NenaMark এ Primo RX2 এর স্কোর এসেছে ৫৪.৫

Primo RX2 Nenamark

স্পেশাল ফিচারঃ এই ফোনে স্পেশাল ফিচার হিসেবে রয়েছে স্মার্ট কভার টেকনোলোজি, এয়ার শাফল, ইন্টেগ্রেটেড মোবাইল সিকিউরিটি প্রভৃতি। Primo RX2 এর একটি বিশেষ দিক হলো এতে প্রথমবারের মতো Anti Theft এর মতো নিরাপত্তা ফিচার যুক্ত করা হয়েছে। এই ফিচারের সাহায্যে ব্যবহারকারী তার ফোন হারিয়ে গেলে দূর থেকেই ফোন লক, ডাটা মুছে ফেলা প্রভৃতি কাজ সম্পন্ন করতে পারবেন। উল্লেখ্য, এর আগে এই ফিচার ব্যবহার করতে বিভিন্ন ধরণের অ্যাপের সাহায্য নিতে হতো।

Primo RX2 Special Features

মূল্যঃ ক্রেতাদের সাধ্যের কথা বিবেচনা করে বেশ উন্নত কনফিগারেশনের Primo RX2 স্মার্টফোনটির মূল্য ১৫,৯৯০ টাকা  নির্ধারণ করেছে ওয়ালটন কর্তৃপক্ষ। স্পেসিফিকেশনের তুলনায় এই মূল্য বেশ সহনশীল ।

Primo RX2 এর ভালো লাগার দিকসমূহঃ

  • আপগ্রেডেড অপারেটিং সিস্টেম
  • আকর্ষণীয় ডিজাইন
  • মালি ৪৫০ জিপিউ
  • দ্রুতগতির প্রসেসর
  • ভালো ক্যামেরা পারফরম্যান্স

Primo RX2 Mali 450 GPU

Primo RX2 এর সীমাবদ্ধতাঃ বেশ উন্নত কনফিগারেশনের Primo RX2 স্মার্টফোনটিতে উল্লেখযোগ্য কোন সীমাবদ্ধতা নেই। তবে এতে মিডিয়াটেক চিপসেট ব্যবহার না করে কোয়ালকমের শক্তিশালী চিপসেট ব্যবহার করা হলে এর পারফরম্যান্স হয়তো আরো উন্নত হতো। এছাড়া এর ব্যাটারীটা আরেকটু অধিক মিলিঅ্যাম্পিয়ারের হলে ব্যবহারকারীদের বেশ সুবিধা হতো।

চূড়ান্ত সিদ্ধান্তঃ হেক্সাকোর প্রসেসরের Primo RX2 বাজারে থাকা প্রায় একই কনফিগারেশন কিংবা একই মূল্যের অন্যান্য স্মার্টফোন থেকে বেশ এগিয়ে রয়েছে। মধ্যম বাজেটে অপেক্ষাকৃত ভালো স্মার্টফোন কিনতে চাইলে Primo RX2 স্মার্টফোনটি পছন্দের তালিকায় শীর্ষেই থাকবে – এমনটা বলা নিশ্চয়ই অত্যুক্তি হবেনা। আপনি যদি তুলনামূলক বড় স্ক্রীনের স্মার্টফোন কিনতে চান, সেইসাথে চান উন্নত পারফরম্যান্স, তবে এই মুহূর্তে দেশের বাজারে Primo RX2 এর কোন বিকল্প পাবেননা।

Primo RX2 Black

দেশীয় ক্রেতাদের হাতে সুলভ মূল্যে অপেক্ষাকৃত মানসম্পন্ন স্মার্টফোন তুলে দেওয়ার লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে ওয়ালটন। ভবিষ্যতে আরও উন্নত কনফিগারেশনের স্মার্টফোন সুলভমূল্যে বাজারে আনবে তারা – এমনটাই প্রত্যাশা।

Our FB Page:https://www.facebook.com/BDearntips

MY BLOG SITE : http://edustro.blogspot.com/

উত্তর দিন