১০ টি এক বাক্যের কিলার এসইও টিপস

2 116

সব ব্লগার চায় নিজের ব্লগের ভিজিটর ধরে রাখতে। আর সেজন্য এসইও হচ্ছে প্রধান মাধ্যম। সার্স ইন্জিনে ভিজিবিলিটি বাড়ানো, কিওয়ার্ড রেঙ্কং, পেজ রেঙ্ক বাড়ানো এবং এলেক্সা রেঙ্ক কমানোর জন্য এসইও করা হয়। এসইও করার আরও একটি উদ্দেশ্য হল একটি বিশেষ জোন থেকে ভিজিটর আনা। আমি অতটা এসইও বিশেষঙ্গ না তবুও আপনাদের জন্য ১০ টি এক বাক্যের কিলার এসইও টিপস শেয়ার করলাম আশা করি কাজে লাগবে।

১০ টি এক বাক্যের কিলার এসইও টিপস
১০ টি এক বাক্যের কিলার এসইও টিপস

১. কন্টেন্ট কপি মুক্ত কমপক্ষে ৫০০ ওয়ার্ড হতে হবে এবং রিলেটেড ইমেজ বা ভিডিও অবশ্যই থাকতে হবে।

২. টাইটেলে, ক্যাটাগরিতে, কন্টেন্টে, ইমেজ Alt তে আবশ্যই কিওয়ার্ড থাকতে হবে এবং কন্টেন্টের শুরুতে ও শেষে টাইটেল থাকতে হবে।

৩. লিঙ্ক বিল্ডিং এর সময় পরিমানের চাইতে গুনগত মানের দিকে জোর দিন।

৪. কন্টেন্ট এর শেষে আবশ্যই সোসাল শেয়ারিং বাটন রাখবেন কারন সোসাল শেয়ারিং রেঙ্কং এর সাথে ওতপ্রোত ভাবে জড়িত।

৫. অবশ্যই গুগল ওয়েব মাষ্টার টুল ইউস করে ব্রোকেন লিঙ্ক চেক করুন এবং সমাধান করুন।

৬. ইমেজ রিসাইজ, হোষ্টিং আপগ্রেড করে পেজ লোডিং টাইম কমিয়ে আনুন।

৭. গুগল প্লাস প্রোফাইল লিঙ্ক সব ব্লগে রাখুন যদি কন্টেন্ট চোরদের হাত থেকে রক্ষা পেতে চান।

৮. নিজে ব্যাক লিঙ্ক করতে পারলে করুন নতুবা লিঙ্ক বিল্ডিং বন্ধ রাখুন।

৯. নোফলো এবং ডুফলো উভয় প্রকার লিঙ্ক বিল্ডিং করুন এবং একটি সাইটে একটিই ব্যাক লিঙ্ক করুন।

১০. সোসাল মিডিয়া গুলেতে একটিভ হন এবং যত বেশি সম্ভব অন্যকে দিয়ে শেয়ার করান এবং নিজে করুন।

আজ এ পর্যন্তই। এখন সময় আপনার। ১০ টি এক বাক্যের কিলার এসইও টিপস সম্পর্কে কোন মতামত বা প্রশ্ন থাকলে কমেন্ট করে জানান।

 

সময় পেলে ঘুরে আসবেন: আমার ব্লগ

2 মন্তব্য
  1. ব্লগার ভাই বলেছেন

    শেয়ার করার জন্য অনেক ধন্যবাদ । কাজে লাগবে।

  2. MD. Abdullah বলেছেন

    ধন্যবাদ এমন একটি প্রয়োজনীয় কন্টেন্ট পাবলিশ করার জন্য। বিশেষ করে যারা SEO নিয়ে কাজ করবেন বা করছেন তাদের কিছুটা হলেও কাজে আসবে।

উত্তর দিন