প্রসেসর সম্পর্কে এই ব্যাপারগুলো জানেন কি ? :P

0 35

আসসালামু আলাইকুম ভাইলোগ ,যে যেখানে যেভাবে আছেন আশা করি ভাল আছেন।কিংকর্তব্যবিমুঢ় আবার আপনাদের মাঝে হাজির হয়েছে হার্ডওয়্যার এর টিউন নিয়ে। আজকের টপিক প্রসেসর । ১৯৬০ থেকে প্রসেসর কে আদর করে ডাকা হয় সি পি ইউ বা সেন্ট্রাল প্রসেসিং ইউনিট ।এখন প্রসেসর আমরা বাচ্চাকাল থেকে চিনি , কিন্তু আসলে প্রসেসর করেটা কি? প্রসেসর কে কল্পনা করা যায় মানুষের ব্রেইন এর মত । মানুষ ব্রেইন দিয়ে চিন্তা করে আর ব্রেইন মানুষের অন্যান্য অংগানুকে অর্ডার দেয় কোন স্পেসিফিক কাজ সম্পাদন করার জন্য। প্রসেসর এর কাজ একই রকম। প্রসেসর কে বলা যেতে পারে ইস্ট্রাকশন আর এল্গরিদম এর ভান্ডার।আমার আগের টিউঙ্গুলো পরা থাকলে আপনারা এতক্ষনে জেনে গেছেন যে র‍্যাম কিভাবে প্রসেসর থেকে ইন্সট্রাকশন নিয়ে কাজ করে।  চাইলে পুরো একটা প্রবন্ধ লিখে ফেলা যায় এ প্রসেসর এর উপরে ।আমি সে দিকে যাবোনা আজকে আলোচনা করা হবে ফোর্থ জেনারেশন প্রসেসর কোর আই থ্রী , আই ফাইভ আর আই সেভেন নিয়ে ।

পারসোনালি ইন্টেল আমার খুবই প্রিয় একটি কোম্পানি । ওয়ার্ল্ড ক্লাস প্রোডাক্ট বানানোয় তাদের জুড়ি মেলা ভার। কিন্তু তাদের প্রোডাক্টের নামগুলো বড়ই আজব । যেমন যখন আমি প্রথম কোর আই সেভেন এর কথা জানতে পারি আমার মাথায় এসেছিল “What the hell is Core i7 -4770-k ?” আমার মনে হয় আমার মতই আপনি এখন মাথা চুল্কাচ্ছেন। কি দরকার ছিল তাদের আলাদা আলাদা নাম দেবার , তারা কত গিগাহার্টজ স্পিড প্রোভাইড করছে সেটা জানলেই ত ল্যাঠা চুকে যায় ।কিন্তু এখানেও সমস্যা আছে , ফর এক্সাম্পল যখন পেন্টিয়াম ফোর লঞ্চ করা হল তখন এজ এ কাস্টমার অনেকে পেন্টিয়াম থ্রী না কিনে পরবর্তিতে পেন্টিয়াম ফোর কিনেছে । কিন্তু আসলে পেন্টিয়াম থ্রী পেন্টিয়াম ফোরের চাইতে অধিক শক্তিশালী কারন প্রতি সাইকেলে থ্রী ,ফোর এর চাইতে দেড়্গুন ক্যাল্কুলেশন বেশি করতে পারে ।এটাই মেগাহার্জ এর সমস্যা এক টাইপ এর কম মেগাহার্জ ওয়ালা প্রসেসর আরেক টাইপের বেশি মেগাহার্জওয়ালা প্রসেসরের চাইতে ভাল সার্ভিস দিতে পারে । এখন মেগাহার্জ দিয়ে প্রসেসরের তুলোনা করা আর একটা রেসিং কার কয় লিটার তেল ধরতে পারে সেটার প্রেক্ষিতে গাড়ির তুলোনা করা একই জিনিস । শুরু হল কনফিউশন । কোন সিপি ই তাহলে বেশি কার্যকর । সো ইন্টেল নিয়ে এল তাদের কোর সিরিজ। কোর সিরিজ তাদের পুর্বপুরুষ পেন্টিয়াম কে পুরোপুরি মার্কেট আউট করে দিল এবং তাদের রাজত্ত শুরু হল। এখন কোর সিরিজের সাম্রাজ্যের তিনটি পরিচিত মুখ কোর আই থ্রী , ফাইভ এবং সেভেন ।

কোর আই থ্রী : এটা বেসিক প্রসেসর হিসেবে ধরা যায় । যার দুইটি কোর , হাইপারথ্রেডিং সুবিধা (এটা নিয়ে অন্য পোষ্ট এ আলোচনা করা হবে ),ক্ষুদ্র ক্যাশ , কম পাওয়ার ইউস করে কিন্তু কোর আই ফাইভের চাইতে দুর্বল । সো এটার দাম সবচাইতে কম ।

কোর আই ফাইভ : কোর আই ফাইভে থাকে  চারটি ( কোন কোন ভার্সনে  দুইটি ) কোর থাকে , নো হাইপার থ্রেডিং , বড় ক্যাশ , কম পাওয়ার ব্যাবহার  ।যেটা কোর আই ফাইভকে থ্রী থেকে এগিয়ে রাখে তা হচ্ছে টার্বো বুস্ট যা কোর আই ফাইভের এফিসিয়েন্সি অনেকগুন বাড়িয়ে দেয় । (টার্বো বুস্ট গ্রাফিক্স এর সাথে সম্পর্কিত ,এটা পিসিকে সাময়িক সাভাবিকের চাইতে বেশি কার্যকর করে তোলে প্রয়োজন অনুসারে । অন্য   কোন টিউনে বিস্তারিত বলা হবে )  । যারা ট্রাস্ট করবেন না যে কোর আই ফাইভে দুটা কোর থাকতে পারে তাদের জন্য এই ফটো

Untitled

কোর আই সেভেন : আমার ফেভারেট কোর আই সেভেনে আছে  সুপারিয়র হাইপারথ্রেডিং , কোর থাকে পারে ২ টি (যেমন আল্ট্রবুক) থেকে ৮ টি (যেমন ওয়ার্ক স্টেশন ),২-৮ টি মেমোরি স্টিক সাপোর্ট করতে পারে , প্রচুর ক্যাশ মেমোরি, সুপারিয়র টার্বো বুস্ট , বেটার অনবোর্ড গ্রাফিক্স। সংক্ষেপে কোর আই সেভেন ইন্টেলের গড়া সর্বশ্রেষ্ঠ প্রসেসর গুলোর একটি ।

সো কোন প্রসেসর এখনকার জন্য ভাল সেটা জানতে যেতে হবে মডেল নাম্বারে , কোর সংখ্যা এবং অবশ্যই ক্লক স্পিড । এখন নিচের ফটোতে দেখতে পারবেন মডেল নাম্বারের কোন সংখ্যা আসলে কি মিন করে ।

sad

 

স্ক্রীন শট টা ইন্টেলের ওয়েব থেকে নেয়া :p  যাই হোক হাইপারথ্রেডিং সম্পর্কে একটা ছোট হিন্ট দিয়ে যাই, নন হাইপার থ্রেডিং প্রসেসর এক হাত দিয়ে কাজ করে আর হাইপার থ্রেডিং প্রসেসর  দুই হাত দিয়ে। সো বুঝতেই পারছেন দুই হাত দিয়ে কাজ করা ভাল।

আজকে এই পর্যন্তই । পরের টিউন হবে সম্ভবত ডি ডি আর ফোর র‍্যাম নিয়ে  (আমি সম্প্রতি একটি কিনব ভাবছি ) ভাল থাকুন সুস্থ থাকুন। আল্লাহ হাফেজ।

Leave A Reply