লিনাক্স অনেক কঠিন, ফালতু আর বাজে এক জিনিস এইসব কি কেউ চালায় নাকি???

0

বর্তমানে লিনাক্স নিয়ে অনেক লেখালিখি হয়, এবং এসব দেখে অনেকে হয়ত ঝোঁকের বশে লিনাক্স চালাতে গিয়ে কিছু বুঝতে না পেরে হতাশ হয়ে ছেড়ে দেয় বা অনেকে ঠিক মত ইন্সটল করতে না জানার ফলে পুরো হার্ডডিস্ক ফরম্যাট দিয়ে বসে।

আবার অনেকে আছে যারা কিনা ইন্সটল করার পর ভালো না লাগার পরে আনইন্সটল করতে গিয়ে বুট লোডার নষ্ট করে ফেলেন ইত্যাদি আরো কত সমস্যা……

ফলাফল কি হয়?
লিনাক্স অনেক কঠিন, ফালতু আর বাজে এক জিনিস এইসব কি কেউ চালায় নাকি???

হ্যা যারা এরকম বলেন তাদের জন্য আজকের এই লেখা। আপনাদের জন্য বলছি আসুন দেখি আমাদের সাথে আর কে কে লিনাক্স চালায়……

Google

হ্যা নামটি ঠিকই পড়েছেন, Google – The search engine giant। বিশ্বাস করুন আর নাই করুন, গুগলের সার্চ ইঞ্জিন এবং সকল সেবা নিয়ন্ত্রন এবং প্রদান করা হয় লিনাক্স পাওয়ারড সার্ভার পিসি দিয়ে! তাছাড়া তাদের প্রতিস্থানের সকল পিসি চলে লিনাক্স দিয়ে। গুগল মূলত “Goobuntu” ব্যাবহার করে। এটি মূলত গুগলের কাস্টমাইজড করা উবুন্টু ভার্সন।

NASA

হ্যা আবারো অবাক হবার বিষয় যে নাসা ও তাদের সকল কাজ এই লিনাক্স পাওয়ারড পিসি দিয়ে করে! শুধু তাই নয়, সবচেয়ে বেশি লিনাক্স ব্যবহারকারি বড় প্রতিষ্ঠান গুলোর মধ্যে অন্যতম হল নাসা। নাসা তাদের প্রেরিত সকল রোবটে হাইলি কাস্টমাইজড ইউনিক্স অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহার করে থাকে। আর পৃথিবীতে বসে তাদের কন্ট্রোলও করা হয় লিনাক্স দিয়ে!

IBM

International Business Machine (IBM) তাদের সকল পিসি এবং সার্ভারে লিনাক্স ব্যবহার করত। যদিও বর্তমানে এই কোম্পানিটি কোন পিসি বাজারজাত করে না তারপর আজকের লিনাক্স ডেভেলপমেন্ট এর পিছনে এই কোম্পানিটির বেশ আর্থিক সহযোগিতা ছিল। বর্তমানে এদের পিসি উৎপাদনের শেয়ার লেনোভো নামের একটি কম্পানি কিনে নেয় এবং এরাই এখন তাদের নামে নিজস্ব ব্রান্ডের ল্যাপটপ ও ডেস্কটপ সরবারহ করে থাকে।

Green Hosting

Wikipedia

উইকিপিডিয়া হল বিশ্বের অন্যতম জনপ্রিয় এনসাইক্লোপিডিয়া । আমরা যারা ইউনিভার্সিটি স্টুডেন্ট আছি তাদের কাছের উইকিপিডিয়া হল সকল সমস্যার সমাধান। আর উইকিপিডিয়ার সার্ভার চালিত হয় উবুন্টু দিয়ে।২০০৮ সালে প্রথম উইকিমিডিয়াতে উবুন্টু ব্যবহার শুরু হয়। অবিশ্বাস্য হলেও সত্যি প্রতিমাসে উইকিপিডিয়ায় প্রায় ১০ বিলিয়ন ওয়েব পেজ দেখা হ্য় আর তা দেখা সম্ভব হয় লিনাক্সের কল্যাণে!

CERN

CERN এর নাম হয়ত অনেকেই শোনেননি অথবা শুনলেও জানেন না যে এটা আসলে কি? এটা হল একটি আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠান যার লক্ষ্য হল পৃথিবীর সবচেয়ে বড় Particle Physics Laboratory নিয়ন্ত্রন করা । বর্তমান বিশ্বের সবচেয়ে বড় এবং সবচেয়ে ব্যায়বহুল রিসার্চ (Particle Collisions) যা Large Hadron Collider (LHC) নামের একটি মেশিন দিয়ে করা হচ্ছে। এটি করতে প্রায় ১০বিলিয়ন ডলার খরচ করা হচ্ছে। এটি দিয়ে একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ সাবএটমিক রিসার্চ করা হচ্ছে (আর বিস্তারিত লিখলাম না)। তাছাড়া LHC এর সম্পূর্ণটাই কন্ট্রোল করা এবং পরিচালানাও করা হচ্ছে এই লিনাক্স দিয়ে!

আমরা এখন এই যে ইন্টারনেট ব্যবহার করি, মানে WWW (World Wide Web) এর জন্মও কিন্তু এই CERN এ, যা আমরা অনেকই জানি না। এর আবিস্কারক হলেন টিম বারনাস লি – একজন পদার্থবিজ্ঞানী, যিনি ৮০’দশকে CERN এ কাজের সুবিধার জন্য Hypertext Link আবিস্কার করেন যা পরে WWW তে রূপ নেয়। মজার বিষয় হলেও সত্যি যে CERN তার শুরু থেকেই লিনাক্স ব্যবহার করে আসছে! বর্তমান এই ইন্টারনেট যা ছাড়া আমরা একদমই অচল তাও কিন্তু এসেছে লিনাক্সের হাত ধরে।

মূলত CERN তাদের ডেভেলপ করা SCIENTIFIC LINUX তাদের নিজস্ব ২০,০০০ হাজার সার্ভারে ব্যবহার করে।

IBM iDataPlex

নাম শুনে মনে হতে পারে এ আবার কি জিনিস রে বাবা? এটা হল একটি সুপারকম্পিউটার যা কিনা কানাডার টরেন্টো ইউনিভার্সিটি তে অবস্থিত। অবিশ্বাস্য হলেও সত্যি এতে অপারেটিং সিস্টেম হিসেবে ব্যাবহার করার জন্য বেছে নেয়া হয়েছে লিনাক্স কে। শুধু তাই নয় বিশ্বের প্রায় ৯১% সুপার কম্পিউটার এ ব্যবহার করা লিনাক্স। এর মূল কারন হচ্ছে লিনাক্স এর superior performance, flexibility, speed এবং lower cost।

Laptop

বর্তমানে অনেক বিশ্বখ্যাত ব্র্যান্ড তাদের ল্যাপটপ রিলিজ করার সময় প্রিইন্সটল্ড অপারেটিং সিস্টেম হিসেবে বেছে নিয়েছে লিনাক্সকে। এদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য নাম হল ডেল, এইচ পি এসার, লেনোভো, আসুস। ডেল ব্যবহার করে উবুন্টু, এইচপি ব্যবহার করে রেড হ্যাট লিনাক্স, লেনোভো ব্যবহার করে সুসে ইত্যাদি।

Green Hosting

Panasonic

ইলেক্ট্রনিকস জায়ান্ট প্যানাসনিক প্রথম দিকে তাদের কিছু ক্ষেত্রে লিনাক্স ব্যবহার করত। আর তাদের কাজের সকল ক্ষেত্রে ব্যবহার হত WINDOWS NT OS। কিন্তু দেখা গেল উইন্ডোজ তাদের ভয়েস মেইল সিস্টেম এর জন্য একটি পরিপূর্ণ সিস্টেম নয়। তাছাড়া উইন্ডোজ এর উচ্চ লাইসেন্স ফি থেকে মুক্তি পেতে এবং ভয়েস মেইল সিস্টেম ম্যানেজ এর জন্য তারা লিনাক্স কে বেছে নেয় এবং একটি পরিপূর্ণ ভয়েস মেইল টেকনোলজি ডেভেলপ করে। এই ডেভেলপকৃত সিস্টেম এতটাই কার্যকর এবং স্বয়ংসম্পূর্ণ হিসেবে কাজ করা শুরু করে যে প্যানাসনিক অবশেষে সম্পূর্ণভাবে উইন্ডোজকে বিদায় করে দিয়ে লিনাক্স বেজড সিস্টেম ব্যবহার করা শুরু করে।

Cisco Systems

কম্পিউটার নেটওয়ার্কিং এবং রাউটিং জায়ান্ট সিসকো সিস্টেমস ও তাদের সার্ভারে Windows NT অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহার করত। কিন্তু এতে করে সিসকোর নেটওয়ার্ক প্রিন্টিং সিস্টেম ঠিক মত কাজ করত না। তাই এই সমস্যা কাটিয়ে উঠতে তারা লিনাক্সকে বেছে নেয়। বর্তমানে তাদের সকল সিস্টেমই লিনাক্স চালিত।

US Department of Defense

বর্তমান বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী এবং সবচেয়ে সুরক্ষিত সিস্টেম হল এই আমেরিকান ডিফেন্স সিস্টেম। এরা মূলত রেড হ্যাট লিনাক্স ব্যাবহার করে। তাদের মতে ওপেন সোর্স সফটওয়্যার গুলো হল একটি ইন্ট্রিগ্রেটেড ফ্যাব্রিক এর মত যা কিনা তাদের কমান্ড এবং কন্ট্রোল সিস্টেমকে নিয়ন্ত্রন করতে পারে খুবই দক্ষতার সাথে।

Green Hosting

গ্রীন হোস্টিং এর সার্ভার ও কিন্তু লিনাক্স অপারেটিং সিস্টেমে সজ্জিত। গ্রীন হোস্টিং এর সার্ভার এর শক্তিশালী নিরাপত্তা ব্যবস্থা শুধুমাত্র লিনাক্স এর কারনেই সম্ভব হয়েছে। আপনার ওয়েবসাইট তাই অনেক বেশি নিরাপদ ও ধ্রুত এখন গ্রীন হোস্টিং এ।

একবার ভেবে দেখবেন কি আপনি ছোট বেলায় যখন উইন্ডোজ ৯৮ চালানো শুরু করেছিলেন তখন আপনি এর ব্যাপারে কতটুকুই বা জানতেন?

লিনাক্স একটি নতুন জিনিস তাই শিখতে অবশ্যই সময় লাগবে, কিন্তু আমাদের সেই ধৈর্য এবং সময় কোনটাই নেই। বরং আমরা চুরি করা উইন্ডোজ চালাতেই বেশি স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করি।

আসলে এতগুলো কথা শুধু একটি কারনেই লেখা, আর তা হল আমরা জাতি হিসেবে সব সময় নিজের দোষ আরেক জনের উপরে চাপিয়ে দিতে চাই।
আপনি লিনাক্স চালাতে না পারলে তা আপনার ব্যর্থতা, লিনাক্সের নয়। আর যদি তাই হত তাহলে বিশ্বের এই বাঘা বাঘা কম্পানিগুলো কি কখনো লিনাক্সকে বেছে নিত?

কেউ হয়ত বলতে পারেন এগুলা বলে আমার কি লাভ?
দেখুন ক্যানোনিকাল লিমিটেড যদি তার নিজের টাকা খরচ করে বিদেশ থেকে আমার জন্য উবুন্টুর ডিভিডি পাঠাতে পারে তাহলে আমি তাদের জন্য এইটুকু কি সবাইকে বলতে পারি না?

কিন্তু আপনি যদি একটি ওরিজিনাল উইন্ডোজ এর ডিভিডি পেতে চান তাহলে? এর উত্তর আমি বা নাই দিলাম……

Green Hosting

তথ্যসুত্র ও সংগ্রহঃ এখানে

লেখক- সাজ্জাত

ফেসবুক থেকে মন্তব্যঃ

Leave A Reply