Home মোবাইলীয় স্মার্টফোনের ঈদ বাজার

স্মার্টফোনের ঈদ বাজার

4953
0
SHARE

জমে উঠেছে ঈদের বাজার। শুধু পোশাক-আশাকই ঈদের বাজারের পণ্য নয়, ঈদের কেনাকাটার তালিকায় এখন স্থান পায় স্মার্টফোনও। রাজধানীর বাজারগুলোতে প্রায় সব ব্র্যান্ডেরই নতুন ফোন এসেছে ঈদ উপলক্ষে। ঈদের বাজারে আসা ফোনগুলোর খোঁজখবর থাকছে এখানে।

নতুন স্মার্টফোন

স্যামসাং

গ্যালাক্সি সি৯  প্রো ফোনের দাম ৪৯ হাজার ৯০০ টাকা। এই ফোনে রয়েছে ৬ গিগাবাইট র‍্যাম, ৬৪ গিগাবাইট অভ্যন্তরীণ মেমোরি ও ২৫৬ গিগাবাইট পর্যন্ত বাড়তি মেমোরি ব্যবহারের সুবিধা। এতে ব্যবহার করা হয়েছে ৬৪ বিট অক্টাকোর প্রসেসর। এতে রয়েছে এফ ১.৯ অ্যাপারচারসম্পন্ন ১৬ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা।

গ্যালাক্সি এ৭ (২০১৭) ৪৪ হাজার ৯০০ টাকা। এর ৫.৭ ইঞ্চি পর্দার নিচের দিকে রয়েছে হোম বাটন। ৩২ জিবি অভ্যন্তরীণ স্টোরেজ আছে এতে। আর র‍্যাম ৩ জিবি।

 অপো

সেলফি এক্সপার্ট এফ ৩ প্লাস ফোনের দাম ৩৯ হাজার ৯৯০ টাকা। এতে রয়েছে ৬ ইঞ্চি পর্দা। সামনের ক্যামেরা ১৬ মেগাপিক্সেল ক্ষমতার। এতে আছে অক্টাকোর প্রসেসর, ৪ জিবি র‍্যাম এবং ৬৪ জিবি রম।
অপো এফ৩ ফোনের দাম ২৫ হাজার ৯৯০ টাকা। এতে রয়েছে সেলফি তোলার জন্য একটি ১৬ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা ও গ্রুপ সেলফি তোলার জন্য একটি ওয়াইড অ্যাঙ্গেল ক্যামেরা।

সিম্ফনি

জেড ৯ ফোনের দাম ১৪ হাজার ৯০০ টাকা। এতে রয়েছে ১৩ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা, ৩ জিবি র‍্যাম, ৩২ জিবি রম ইত্যাদি।

ওপি৯ ফোনের দাম ১২ হাজার ৯৯০ টাকা। এতে রয়েছে ১৩ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা। ৫.৫ ইঞ্চি পর্দা, ৩ জিবি র‍্যাম, ৩২ জিবি রম ইত্যাদি।

ওয়ালটন

প্রিমো এন ৩ ফোনের দাম ১০,২৯০ টাকা। এতে রয়েছে ৬ ইঞ্চি পর্দা। ১.৩ গিগাহার্টজের কোয়াড কোর প্রসেসর, ২ জিবি র‍্যাম, ১৬ জিবি রম ইত্যাদি।

প্রিমো আরএম৩ এস ফোনের দাম ১৪,৪৯০ টাকা। এই ফোনটিতে রয়েছে ৫.২ ইঞ্চি পর্দা, ১.৩ গিগাহার্টজ গতির অক্টাকোর প্রসেসর, ১৩ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা ইত্যাদি।

প্রিমো এইচ৬ প্লাস ফোনের দাম ১১,৯৯০ টাকা। এতে ৫ ইঞ্চির পর্দা ব্যবহার করা হয়েছে।  ১৩ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা আছে এতে।

 হুয়াওয়ে

জিআর ৩ (২০১৭) ফোনের দাম ১৯ হাজার ৯০০ টাকা। এতে ১.৭ গিগাহার্টজের প্রসেসর, ৩ জিবি র‍্যাম, ১৬ জিবি অভ্যন্তরীণ মেমোরি রয়েছে।

হুয়াওয়ে পি১০ ফোনের দাম ৫৬ হাজার ৯০০ টাকা। এতে অ্যান্ড্রয়েডের সর্বশেষ অপারেটিং সিস্টেম ন্যুগাট ৭.১ ব্যবহার করা হয়েছে।

নকিয়া

নকিয়া ৩ স্মার্টফোনের দাম ১৩ হাজার ৫০০ টাকা। ৫ ইঞ্চি পর্দার এই ফোনে আছে ২ জিবি র‍্যাম, ৮ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা ইত্যাদি।

অ্যালকাটেল

আইডল ৪ ফোনের দাম ২৩ হাজার টাকা। এর পর্দা ৫.২ ইঞ্চি।

উই

এল ৫ ফোনের দাম ৫ হাজার ২৯০ টাকা। এতে  ৫ ইঞ্চি পর্দা, ১ জিবি র‍্যাম, ৮ জিবি রম, ১৩ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা রয়েছে।

এক্স ৩ ফোনের দাম ১৪ হাজার ৯৯০ টাকা। ৫.৫ ইঞ্চি পর্দার এই ফোনে ৩ জিবি র‍্যাম, ৩২ জিবি রম, ১৩ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা রয়েছে।

শাওমি

রেডমি৪ এক্স ফোনের দাম ১৫ হাজার ৪৯০ টাকা। এতে রয়েছে ৫ ইঞ্চি পর্দা, ৩ জিবি র‍্যাম, ৩২ জিবি রম, ১৩ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা ইত্যাদি।

স্মার্টফোন আসল-নকল চেনার উপায়

বাজারে আসল ফোনের পাশাপাশি নকল ফোনও বিক্রি হয় বলে জানালেন অনেক বিক্রেতা। সবচেয়ে বেশি স্যামসাংয়ের নকল ফোন পাওয়া যায়।

 স্যামসাংয়ের নকল ফোন চিনবেন যেভাবে:

*  পর্দার চারপাশে একটি কালো আকৃতির খালি অংশ থাকে।

*  আসল স্মার্টফোনের হোম বাটনটি পর্দার নিচে খুব কাছাকাছি থাকবে। নকলগুলোতে একটু নিচে থাকে, যা খেয়াল না করলে বোঝা যায় না।

*  নকল ফোনে স্যামসাংয়ের লোগোতে নখ বা অন্য কিছু দিয়ে আঁচড় কাটলে সেটি উঠে যায়।

*  নকল স্মার্টফোনের প্যাকেটের সঙ্গে সাধারণত একটি ফ্লিপ কভার বিনা মূল্যে দেওয়া হয়, যা আসল ফোনের সঙ্গে থাকে না।

*  ওপরের পদ্ধতিগুলো প্রয়োগ করেও যদি বুঝতে না পারেন যে সেটি আসল না নকল ফোন সে ক্ষেত্রে ‘এলসিডি টেস্ট’ করে নিতে পারেন। ফোনটিতে *#০ *# চাপুন। ফোন আসল হলে সঙ্গে সঙ্গে পর্দায় এলসিডি টেস্ট দেখা যাবে। নকল সেটে এটি কখনোই আসবে না।

*  আসল ফোনে *# ১২৩৪# চাপলে ভার্সন এপি, সিপি ও সিএসসি* সিরিয়াল নম্বর, *# ০ *# চাপলে জেনারেল টেস্ট মোড এবং *# ০২২৮# দিয়ে ব্যাটারি স্ট্যাটাস দেখা যাবে। নকল ফোনে এসব ‘কোড’ কাজ করে না।