কিভাবে ফ্রিল্যান্সিং শুরু করবেন

0

ফ্রিল্যান্সিং হচ্ছে সম্পূন্ন বিশ্বাসের জায়গা কনফিডেন্সের জায়গা। যার যতো বেশি বিশ্বাস যতো বেশি কনফিডেন্স, সে ততো বেশি সফল। আর এ্ই সফলতার প্রধান কৌশল হচ্ছে যোগাযোগ তথা ইংরেজী জানা। আর বাঙালীদের ইংরেজী হবে না ফ্রিল্যান্সিং এ ভদ্র হতে হবে। বলতে হবে ইংরেজদের মতো ভদ্রভাবেই। অনেকেই বাঙালীদের মতো করেই বলেন। ভদ্রভাবে মানে স্যার বলা নয়; পেশাদারিত্বটাই আসল। সেটি রপ্ত করতে হবে সবকিছুর আগেই।

যেভাবে কাজের জন্য আবেদন করবেন:: ওডেস্ক বা যেকোন অনলাইন মার্কেটপ্লেসে প্রথমে আপনি জানেন সেরকম একটি কাজ পছন্দ করবেন। কাজের বিবরণটুকু ভালভাবে পড়বেন। প্রয়োজনে বেশ কয়েকবার পড়বেন। তারপর ওই কাজটির জন্য একটি স্যাম্পল বানাবেন। যদি সম্ভব হয় হুবুহু ওই কাজটিই করে ফেলুন। এবার আসল কভার লেটার। কভার লেটার কখনো বেশি লম্বার কিংবা অযথা কথার যেন না হয়। কাজের বিবরণের একটি প্রতিউত্তরই হবে কভার লেটার। আমি এই এক্সপার্ট, সেই এক্সপার্ট, কয়েক হাজার বছরের অভিজ্ঞতা আছে; এসবের চেয়ে বেশি জরুরী তার কাজের বিবরণের সাথে কতটুকু সামঞ্জস্য রেখে আপনি কভার লেটারটি লিখতে পারলেন এটি। বায়ান আপনার কভার লেটার পরেই বুঝে ফেলবেন আপনার অভিজ্ঞতা কি। আর কাজের স্যাম্পলটি কভার লেটারের সাথে

স্যার বলে ডাকবেন না: স্যার বলে ডাকলে বেশি তোশামোদ হয়ে যায়। আপনি কাজ না জেনে স্যার ডেকে লাভ নেই; কাজ পাবেন না নিশ্চিত। কাজ জানেন সেটা প্রমাণ করুন; হাই, হ্যালো বলে সম্বোধন করুন। কাজ পাবেন।

সব সময় প্রানবন্ত রাখুন: নিজেকে খুব প্রাণবন্ত হিসেবে উপস্থাপন করাটাও জরুরী।:-) স্মাইল চিহ্নসহ বিভিন্ন মজার মজার সিম্বল ব্যবহার করুন সঠিক স্থানে। মনটাকে ভাল হয়ে যাওয়ার মতো করে ব্যবহার করুন।

কম দামে আবেদন করবেন না: কম দামে আবেদন করলে ভাববেন কাজ জানেনা বলেই এতো কম দামে আবেদন করেছে। ক্লাইনের বিস্তারিত কাজের ইতিহাস দেখুন একই ধরনের কাজ কত দিয়ে করাচ্ছেন কিংবা করিয়েছেন এর চেয়ে কমে বিড করলে সেটি না দেখার আশংকাই থাকে বেশি। আর আপনি যেই দেশের কাজের জন্য এপ্লাই করতেছেন সেই দেশে তার ঘরের কাজের বুয়া কিংবা বাসার দারোয়ানের বেতনও কিন্তু ঘণ্টায় ১০ ডলারের উপরে। তাহলে আপনি যদি অনেক কমে বিড করেন সে আপনাকে পাত্তা দেবেনা।

কাজের স্যাম্পল পাঠাবেন : আমি আগেই বলেছি। অবশ্যই অবশ্যই নতুনরা কাজের স্যাম্পল পাঠাবেন। আর এটি বানাতে আপনার সময় লাগতে পারে। লাগুক, এটি করতে করতে ততোক্ষণে ক্লাইন্ট অন্যজনকে হায়ার করে ফেলুক। তবুও আপনি আপনার ক্লাইটকে একটি ভাল স্যাম্পলসহ একটি কভার লেটার নিশ্চিত করুন। ক্লাইট আপনাকে এখন হায়ার না করলেও পরে ইনভাইট করে হায়ার করবেন।

মিনিমাম প্রোফাইল রেট: নতুনরা ঘণ্টার দাম মিনিমাম ৫ ডলার রাখুন। শুরুটা যতটুকু পারেন সুন্দরভাবে শুরু করুন। আপনাকে পেছনে পড়ে থাকতে হবে না।

নকল করবেন না: কোনভাবেই নকল করবেন না। ফলো করতে পারেন। কিন্তু অন্যেরটা হুবুহু করবেন না। অন্যেরটাকে ফলো করে নিজেরটা বানিয়ে নিন। সেটি যেই হোক, হোক স্যাম্পল, কভার লেটার, ওভারভিউ ইত্যাদি। যখনই কেউ দেখবেন আপনি অন্যেরটা হুবুহু মেরে দিছেন; আপনার প্রতি বিশ্বাস শেষ। আমি আগেই বলেছি অনলাইনটা বিশ্বাসের জায়গা।

অপরাধ করবেন না : অনলাইনে আপনার কাজটি কেন, কিসের জন্য ইত্যাদি ইত্যাদি কৌশলে জেনে নিন। কোনভাবেই অপরাধমূলক কাজ করবেন না। অপরাধীদের সহায়তা করবেন না। যেমন: ক্যাপসা এন্ট্রি কেন তা জেনে নিন। এটি যেন কোন অপরাধীদের সহায়তা না হয়। ছবি এডিটিং আপনি নিজেই বুঝবেন কারও ছবিতে অন্য কারও ছবি জুড়ে দিচ্ছে না কিনা অন্যের ক্ষতি করার জন্য। এমএলএম টাইপের প্রতারণামুলক কাজে সহায়তা করবেন না। সাবধান থাকুন।

নতুনদের কাজ পাওয়ার সম্ভাবনা কম তা সঠিক নয়:: অনলাইনে নতুনদের কদর বেশি। কারণ পুরাতনরা একই কাজ অনেক বেশি ডলার দাবি করে। তাই ক্লাইন্টরা নতুনদের খুজে কম ডলারে কাজ করানোর জন্য।

নতুনরা ইংরেজী শিখুন: বিবিসি জানালা ওয়েবসাইটটি নতুনদের জন্য ইংরেজী শিখার উপযোগী। প্লিজ শিখুন।

যা কোনদিনও বলবেন না: আমাদের দেশে বিদ্যুৎ ছিল না তাই কাজটি ঠিকমতো ডেলিভারী দিতে পারিনি। আমাদের নেট স্পীড খুবই স্লো তাই করতে পারিনি। আমাদের সরকার আপলোড স্পীড কমিয়েদিয়েছে তাই এত্তোবড় ফাইল আপলোড করতে পারছি না। এই টাইপের কথাগুলো ভুলেও বিদেশীদের কখনো বলবেন না। এতো তিনি শুধু আপনার উপর আ্গ্রহ হারাবে না নয়; ভবিষ্যতে বাংলাদেশীদের হায়ার করবে না। আপনারা দেখবেন অনেক জব পোস্টে দেখা যায় (বাংলাদেশীরা বিড করবেন না), বিষয়টি খুবই গুরুত্ব দেবেন।

বিষয়গুলো নতুনদের সাথে শেয়ার করলাম শুধু একটি কারণে সেটি হচ্ছে আত্মবিশ্বাস বাড়ানোর জন্য। এবার বলি এরকম পজিশন ক্রিয়েট করতে হলে কি করতে হবে। আমার ২৪টি ফিডব্যাক আছে। ২৩টিতেই স্কোর ৫ আছে। অপর একটিতে ৪.৮ মনে হয়। ৪.৮ দেয়ার কারণ ছিল তখন আমার ১২টি কাজ একসাথে চলছিল। ওই বায়ারকে আমি ঠিক সময়ে কাজটি বুঝিয়ে দিতে পারিনি। কিন্তু খুব প্রশংসা করেছে। এসব ফিডব্যাকই একটি প্রোফাইলের জন্য সবচেয়ে বড় সাফল্য এনে দিতে পারে। আপনিও ভাল কাজ করুন, ভাল ফিডব্যাক পাবেন। আর এরপর আপনাকে কাজের জন্য বিড করতে হবেনা। কাজ আপনাকে খুজবে। কিন্তু তখন যে আপনার হাতে সময় থাকবে না ওই কাজটি করার। ততোক্ষণে আপনি নিজেকে অনেক ডেভেলপ করে নেবেন।

ফেসবুক থেকে মন্তব্যঃ

Leave A Reply