প্লে স্টোর থেকে সরানো হল ইউসি ব্রাউজার

0

চীনের ইন্টারনেট জায়ান্ট আলিবাবার ইউসি ব্রাউজার গুগলের প্লে স্টোর থেকে সরিয়ে ফেলা হয়েছে।

ব্রাউজারের মাধ্যমে গ্রাহকদের তথ্য চুরির অভিযোগ আনে পাশের দেশ ভারত। এরপর অভিযোগ আমলে নিয়ে অ্যাপটি প্লে স্টোর থেকে সরিয়ে ফেলে গুগল কর্তৃপক্ষ।

এর ফলে ভারত, বাংলাদেশসহ বিশ্বব্যাপী অ্যাপটি আর প্লে স্টোরে পাওয়া যাচ্ছে না।

টাইমস অব ইন্ডিয়ার খবরে বলা হচ্ছে, ভারতে গ্রাহকদের তথ্য চুরির অভিযোগ উঠার পর ইউসির বিরুদ্ধে একটি তদন্ত শুরু করে দেশটির মিনিস্ট্রি অব ইলেক্ট্রনিকস অ্যান্ড ইনফরমেশন টেকনোলজি।

মন্ত্রণালয়ের এক কর্মী জানিয়েছেন, তথ্য চুরির ঘটনাটির সত্যতা পাওয়া গেলে ভারতে নিষিদ্ধ হতে পারে ইউসি ওয়েব।

ইউসি ব্রাউজার গ্রাহকদের তথ্য চুরি করার বিষয়টি প্রথম নজরে আসে ইউনিভার্সিটি অব টরেন্টোর। এরপর সেখানকার গবেষকরা এটি নিয়ে কাজ শুরু করেন ভারতের হায়দারাবাদ বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গে।

গত বছরের এক হিসাবে দেখা যাচ্ছে, ভারতে ১০০ মিলিয়নের মতো মানুষ ইউসি ব্রাউজার ব্যবহার করেন। আর যার ব্যবহারকারী বিশ্বব্যাপী ৪২০ মিলিয়নের বেশি।

বাংলাদেশেও ইউসি ব্রাউজার এবং ওয়েব ব্যবহারকারীর পরিমাণ কম নয়। বিশেষ করে বর্তমানে বেশকিছু স্মার্টফোনেই আলিবাবা গ্রুপের ইউসি ব্রাউজার বিল্টইন হিসেবে দেওয়া হয়ে থাকে।

ইউসি ব্রাউজার বাংলাদেশের ব্র‍্যান্ড ম্যানেজার মীর রাসের টেকশহরডটকমকে বলেন, একটি রুলস গুগল প্লের পলিসির সাথে মেলেনি, যার কারণে এক সপ্তাহের জন্য প্লেস্টোর থেকে সরিয়ে নেয়া হয়েছে। এটা গ্লোবালি সরিয়ে নেয়া হয়েছে। আমাদের টিম বিষয়টি নিয়ে কাজ করছে। গুগল জানিয়েছেন আগামী ১৯ নভেম্বর থেকে আবার প্লে স্টোরে থাকবে ইউসি ব্রাউজার।

তবে প্রতিষ্ঠানটির এক মুখপাত্র গ্রাহকদের তথ্য সংরক্ষণের বিষয়ে ইতিবাচক কথা বলেন। তিনি মনে করেন, স্থানীয় প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে ইউসি যে তথ্যগুলো সংরক্ষণ করে সেটি ঠিক আছে। কারণ, আমরা ব্যবহারকারীর কাছ থেকে একটি অনুমোদন নিয়েই তা সংরক্ষণ করি। তবে সেটির যেনো অপব্যবহার না করা হয় সেদিকে আমরা জোর প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখি।

তবে মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, ইউসি ব্রাউজার অ্যাপটি ফোন থেকে মুছে ফেলার পরও তথ্য চুরির আশঙ্কা থেকেই যায়। তাই এটি অনেকটাই ব্যবহারকারীদের জন্য ভয়ংকর রকমের অনিরাপত্তায় ভোগায়।

চলতি বছরের জুন পর্যন্ত ভারতের বাজারে ইউসি ব্রাউজার দ্বিতীয় অবস্থানে ছিল। মোবাইল ব্রাউজার হিসেবে অ্যাপটির মার্কেট শেয়ার ছিল ৪৮ দশমিক ৬৬ শতাংশ।

ফেসবুক থেকে মন্তব্যঃ

Leave A Reply