গুগোল এডসেন্স এর সুবিধা এবং অসুবিধাগুলো

0

গুগোল Adsense আসলে গুগোলের একটি এড নেটওয়ার্ক যারা প্রকাশক এবং বিজ্ঞাপনদাতাদের মাঝে তৃতীয় পক্ষ হিসেবে কাজ করে -এডসেন্স কি এই প্রশ্নের উত্তর এককথায় দিতে গেলে এটাই বলতে হবে। বিজ্ঞাপনদাতারা Adwords এর মাধ্যমে সবচেয়ে বেশী সার্চ হওয়া কি ওয়ার্ড এবং এতে কত বিড পড়েছে সেটা দেখে গুগোলের কাছে টাকা বিজ্ঞাপন দেয়। ঐ বিজ্ঞাপনগুলো গুগোল বিভিন্ন ওয়েবসাইটে দেখায়। এর বিনিময়ে প্রকাশকেরা গুগোলের কাছ থেকে একটা অংশ পায়।

এডসেন্স এর সুবিধাগুলো

আমার জানামতে সবচেয়ে Relevant(আপনি যদি ক্রিকেটের স্কোর দেখে আসেন তাহলে আপনাকে ক্রিকেট রিলেটেড এড দেখাবে) এড দেখায় এবং এটার মাধ্যমে সবচেয়ে বেশী আয় করা সম্ভব- এডসেন্স এর মাধ্যমে অন্য সব এড নেটওয়ার্কের চেয়ে বেশী আয় হবে এমন না, তবে সবচেয়ে বেশী আয় সম্ভব। আপনি যদি ব্লগার হন এবং যেকোন বিষয় নিয়ে লিখতে ভালোবাসেন তাহলে এডসেন্স আপনার জন্য পারফেক্ট। আপনার সাইটের কি ওয়ার্ড কেমন, ভিজিটর কত, কোথা থেকে ভিজিটর আসছে এগুলোর উপর আয় নির্ভর করে। এডসেন্সের মাধ্যমে আয় বাড়াতে হলে তাই Advertiser রা কোন ধরণের কি ওয়ার্ডের জন্য বেশী টাকার এড দিতে চায় সেটা জানতে হবে। এটা যেহেতু গুগোলের প্রডাক্ট তাই এর উপর বিজ্ঞাপনদাতা এবং প্রকাশক(যাদের ওয়েবসাইট আছে) সবারই আস্থা আছে।

এটা কিভাবে কাজ করে

আগেই বলেছি Adwords এর মাধ্যমে বিজ্ঞাপনদাতারা নির্দিষ্ট keywords এবং নির্দিষ্ট ধরণের সাইটের জন্য বিজ্ঞাপন দেয়। এগুলো বিভিন্ন সাইটে দেখানোর জন্য Adsense এড নেটওয়ার্ক কাজ করে। গুগোল আপনাকে বেছে বেছে এড দেখাতে দিবে না। আপনি প্রকাশক হিসেবে গুগোলের কাছ থেকে এড কোড নিয়ে সেটা আপনার সাইটে বসাবেন। ঐ এড স্পেসগুলো গুগোলের বিশেষ নিলামের মাধ্যমে সবচেয়ে বেশী টাকা দিচ্ছে এমন এড আপনার সাইটে দেখাবে। অর্থাৎ, আপনার আয় তখন বেশী হবে যখন আপনার সাইটের মত সাইটগুলোর জন্য সবাই এড দেখাতে চাইবে। যেনতেন একটা সাইট হলে সেখানে অনেক কম টাকার এড দেখাবে, আপনার আয়ও কম হবে।

Adsense কত পারসেন্ট কমিশন রাখেঃ  এরা সার্চের এডের জন্য ৫১% এবং ওয়েবসাইটের কনটেন্ট এডের জন্য ৬৮% দেয়। অর্থাৎ, আপনি যদি ওয়েবসাইটে এড দেখিয়ে ১০০ টাকা আয় করেন – আপনাকে দেবে ৬৮ টাকা ওরা নেবে ৩২ টাকা। আর গুগোল কাস্টামাইজ সার্চ ইঞ্জিনে যদি এড দেখান তাহলে ১০০ টাকায় আপনি পাবেন ৫১ টাকা আর গুগোল নেবে ৪৯ টাকা। দেখে মনে হচ্ছে রীতিমত ডাকাতি। কিন্তু, অন্যরা আরো বেশী শেয়ার দিলেও গুগোলের কাছ থেকেই সবচেয়ে বেশী টাকা পাবেন। কারণ, নামী দামী ব্রান্ডগুলো গুগোলের সাথে চুক্তিবদ্ধ।

এডসেন্স এখন বাংলা ভাষাও সাপোর্ট করে, তাই ভাল একটি ওয়েবসাইট থাকলে  এবং ৬ মাসের বেশী বয়স হলে(আপনার না, ওয়েবসাইটের) এখনই আবেদন করুন-

গুগোল এডসেন্স এর জন্য আবেদন

কয়েক ধরণের এড দেখাতে পারবেন। টেক্সট, ইমেজ, কাস্টমাইজ সার্চ ইঞ্জিন, Native Ads, Infeed Ads- মোবাইলের এপের জন্য গুগোলের আরেকটি প্রোগ্রাম আছে Admob নামে। বড় পরিসরে এড দেখানোর আরেকটি প্রগ্রামের নাম Doubleclick for publishers এগুলো সবই গুগোলের। এডসেন্স এবং গুগোলের সব এড নেটোওয়ার্ক নিয়ে সম্পূর্ণ বাংলায় টিউটোরিয়াল পেতে নিয়মিত এই সাইট ভিজিট করতে থাকুন। অন্তর্জালের জগত বাংলা ভাষায় সমৃদ্ধ হোক। আপনার সাইটের জন্য শুভকামনা রইলো।

লেখাটি পূর্বে প্রকাশিতঃ গুগোল এডসেন্স কি এবং এটা কিভাবে কাজ করে?

 

ফেসবুক থেকে মন্তব্যঃ

Leave A Reply