সার্চ ইন্জিন অপটিমাইজেশনে কার গুরুত্ব কতটুকু।”SEO টিউটোরিয়াল” [পর্ব-২]

4
This entry is part 3 of 18 in the series এসইও | Search Engine Optimization

শুরু করছি সার্চ ইন্জিন অপটিমাইজেশন (SEO) নিয়ে আমার ধারাবাহিক পোষ্ট “SEO টিউটোরিয়াল”।প্রথমেই জানিয়ে রাখি ধারাবাহিক পোষ্টে মোট ১০ পর্ব বা বিষয় থাকবে।এই  পোষ্ট  গুলো এমন ভাবে সাজানো হবে যাতে করে নতুন ও পুরানো সকল ওয়েবমাষ্টাররা উপকৃত হয়।তো আর কথা না বাড়িয়ে চলুন শুরু করি SEO টিউটোরিয়াল এর ২য় পর্ব।

কে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ

সার্চ ইন্জিন অপটিমাইজেশন বেশ কয়েকটি মৌলিক বিষয় নিয়ে গঠিত।তার মধ্যে কি কিছু কিছু মৌলিক বিষয় আছে যাদের গুরুত্ব খুব বেশী।আজ আমি আপনাদেরকে জানাবো SEO কার গুরুত্ব কেমন।
বিভিন্ন দেশে বিভিন্ন ওয়েবমাষ্টারদের মধ্যে এ নিয়ে বেশ মতবিরোধ আছে।কেউ বলে ব্যাক লিংকের প্রয়োজন বেশি আবার অনেকে বলে কী-ওয়ার্ড হল কাজের জিনিস।এরকম হাজারো মতের মধ্যে সবচেয়ে প্রমাণিত ও গ্রহনযোগ্য মত দিয়েছে ।তারা সার্চ ইন্জিন অপটিমাইজেশনকে ১০০% এ ভাগ করে বের করেছে সার্চ ইন্জিনে অ্যালগারিদমে কোন বিষয় গুলো বেশি গুরুত্বপূর্ণ।আসুন দেখে আসি নিচের ছবিটি।
SEo

উপরের ছবি থেকে বোঝা যাচ্ছে যে সার্চ ইন্জিন অপটিমাইজেশনে তারা ৭ টি বিষয়কে গুরুত্ব দিয়েছে।সেগুলো হল

  • ১।ডোমেইন নেম বা ডোমেইন সংক্রান্ত তথ্য
  • ২।লিংক পপুলারিটি বা সাইটের ব্যাকলিংক।
  • ৩।ব্যাক লিংকের আনকের টেক্সট।
  • ৪।সাইটে কী-ওয়ার্ড ব্যবহার।
  • ৫।রেজিষ্টেশন ও হোস্টিং এর ডাটা।
  • ৬।ওয়েব সাইটের ভিজির বা ট্রাফিকের পরিমান।
  • ৭।সামাজিক ওয়েব সাইটে জনপ্রিয়তা।(বিষয়টা আমি পরিস্কার নই।কেউ বুঝলে বলবেন প্লিজ)

আসুন নিচে এ সব নিয়ে সংক্ষেপে আলোচনা কর

১।ডোমেইন নেম বা ডোমেইন সংক্রান্ত তথ্য। 23.87%

এখানে দেখা যাচ্ছে যে সার্চ ইন্জিন অপটিমাইজেশনের ১০০% এর মধ্যে ২৩.৮৭% ই হলো ডোমেন নেইম এর তথ্য।তাহলে চিন্তা করুন ডোমেনের নামকরণ বা এর সঠিক তথ্য সার্চ ইন্জিন অপটিমাইজেশনে কতটা গুরুত্বপূর্ণ।তাই এসইও করার সময় প্রথমেই আপনাকে নজর দিতে হবে আপনার ডোমেইনের নামের দিকে।লক্ষ্য রাখতে হবে আপনি যে বিষয় নিয়ে এসইও করতে যাচ্ছেন সে বিষয় এর সাথে আপনার ডোমেইন নামের মিল থাকে।আপনার সাইট যদি হয় গান ডাউনলোডের আর নাম যদি হয় surtarongo.com (সুর তরংগ)তা হলে আর এসইও করার দরকার নেই।

২।লিংক পপুলারিটি বা সাইটের ব্যাকলিংক।২২.৩৩%

বরাবরই বলা হয় যে সার্চ ইন্জিন অপটিমাইজেশনে ব্যাক লিংক “বিল্ডিং ফাউন্ডেশনের” মত কাজ করে।যার প্রমান মিললো এখানে।এখানে এসইও এর ১০০% মধ্যে ব্যাক লিংক বা লিংক পপুলারিটি দখল করে আছে ২২.৩৩% স্থান।
তাই এসইও করার সময় এই ব্যাকলিংকে ফেলে দেওয়ার কোন কারণই নেই।কথাটা মাথায় রাখুন এসইও করার সময়।

৩।ব্যাক লিংকের আনকের টেক্সট।২০.২৬%

যদি কেউ আনকোর টেক্সেটকে না চিনেন তাহলে ছবিটা দেখুন।
dd
আমরা যখন সাইটে কোন লিংক দিই তখন লিংকটি একটা টেক্সটের মধ্যে রাখি।যেমন একটা সফটওয়্যার ডাউনলোডের লিংক দিলে তা হতে পারে Download Softwer বা click heare to Download ইত্যাদি।এখানে আপনি যে লিংকটা দিলেন তার আনকোর টেক্স হল এই Download Softwer বা click heare to Download।ব্যাক লিংকের সাথে আনকোর টেক্সটের একটা মিল রয়েছে।যেমন আপনি যখন কোথাও আপনার লিংক দিবেন তখন আপনার লিংকের সাথেই আনকোর টেক্সটটি দেয়ে দিতে পারেন।এসকল নিয়ে পরে বিস্তারিত আলোচনা করবো।

৪।সাইটে কী-ওয়ার্ড ব্যবহার।১৫.০৪%

১০০% এসইওর মধ্যে ১৫.০৪% স্থান কিন্তু কম নয়।তাই বলা যায় সাইটের ব্যবহারিত কী-ওয়ার্ড সার্চ ইন্জিন অপটিমাইজেশনে বেশ ভূমিকা পালন করে।তাই ভালো ফল পেতে হলে সঠিক কী-ওয়ার্ড এর ব্যবহার আপনাকে অবশ্যই করতে হবে।

৫।রেজিষ্টেশন ও হোস্টিং এর ডাটা।৬.৯১%

এই বিষয়টাকে আমরা অনেক গুরুত্ব সহকারে দেখিনা।কিন্তু এসইও তে এর ও অনেক গুরুত্ববহন করে থাকে।এখানে দেখা যাচ্ছে ৬.৯১% এই ওয়েব সাইটের রেজিষ্টেশন ও হোস্টিং এর ডাটা দখলে।তাই যতদূর সম্ভব আপনারা চেষ্টা করবেন ভালো ভালো সব ওয়েব সাইটের মাধ্যমে ডোমেন বা হোস্টিং করার।যেমন ভালো ভালো সাইটের মধ্যে godaddy.com সাইটটি বেশ ভালো।

অনান্য ১১.৫৯%

বাদ বাকি অন্য সব মিলে আছে ১১.৫৯%।এর মধ্যে আছে ,ওয়েব সাইটের ভিজির বা ট্রাফিকের পরিমান,সামাজিক ওয়েব সাইটে জনপ্রিয়তা।তবে এসব বিষয় গুলোর সাথে আমি অমত বা কিছুটা দ্বিধার মধ্যে আছি।তাই এসব নিয়ে আপনাদেরকেও বিভ্রান্তির মধ্যে রাখতে চাইনা।

এই এনালাইজিংটা seomoz.com সাইটের।তাছাড়া আরো অনেকে এ ধরনের এসইও এনালাইজিং করে থাকে।উল্লেখ্য যে এখানে একটা বড় বিষয় তারা আপডেট করে নি।তাহল ওয়েব সাইটের লোড স্প্রীড।কেননা গুগল বেশ কিছুদিন আগে ঘোষণা দেয় যে এখন থেকে সার্চ ইন্জিন অপটিমাইজেশনে সব কিছুর পাশাপশি সাইটের লোড স্প্রীড ও এর একটা অংশ হিসাবে ধরা হবে।আপনারা অনেক বলতে পারেন এখানে তো পেজ রেংক নিয়ে কোন কথা পেলাম না।পেজ রেংকের কথা অবশ্যই এর মধ্যে আছে যা তারা ব্যাকলিংক ও আনকোর টেক্সটের মাধ্যমে বুঝিয়ে দিয়েছে।কেননা পেজরেংক তো এই দুইয়ের সমন্বয়।

তো আশা করি আমার প্রথম “SEO টিউটোরিয়াল” আপনাদের ভালো লেগেছে।আপনাদের ভালো লাগা পেলে আমি এটা নিয়মিত করতে চাই।কেমন লাগলো জানাতে ভুলবেন না।আর হ্যা আগামী পর্বে প্রকাশ হবে।কী-ওয়ার্ড নিয়ে বিস্তারিত টিউটোরোয়াল “কী-ওয়ার্ডের সঠিক ব্যবহার ও বাছাইকরণ এর ১ম অংশ” । প্রথম পর্ব টি দেখতে এখানে যান । সবাই ভালো থাকবেন।ধন্যবাদ

Series Navigation<< SEO টিউটোরিয়াল (পর্ব-১) সার্চ ইন্জিন অপটিমাইজেশন (SEO) কী, এর উদ্দেশ্য, প্রয়োজনীয়তা।Seo কি, কিভাবে ক্যারিয়ার হিসেবে এসইও শিখবেন, কি কি শিখবেন ? >>

ফেসবুক থেকে মন্তব্যঃ

4 Comments
  1. শেয়ার করার জন্য অনেক ধন্যবাদ।

  2. thanks for share

Leave A Reply