অকাজের যতো অ্যাপ

0

প্লেস্টোরে অসংখ্য অ্যাপের ভিড়ে অনেক সময় প্রয়োজনীয় অ্যাপগুলোই খুঁজে পাওয়া যায় না। এরকম অনেক অ্যাপ আছে যেগুলো দিয়ে কাজের কাজ কিছু হয় না শুধু মোবাইলের স্টোরেজ দখল হয়।

এমনই কিছু অপ্রয়োজনীয় ও অকাজের অ্যাপ নিয়ে থাকছে আজকের আয়োজন।

ফিজিট স্পিনার

এটি একটি খেলনা যা ৯০ এর দশকে উদ্ভাবন করা হয়। যাদের মনোযোগ সংক্রান্ত সমস্যা আছে তারাই এটি ব্যবহার করতেন। সম্প্রতি এর একটি অ্যাপ বের করা হয়েছে। ফিজিট স্পিনারটি আঙ্গুল দিয়ে ডানে অথবা বামে ঘোরানো যায়। একবারে স্পিনারটি কতোক্ষণ ঘুরছে তার ওপরে ভিত্তি করেই পয়েন্ট দেওয়া হয় প্লেয়ারকে।

ভার্চুয়াল সিগারেট স্মোকিং

অ্যাপটিতে একটি সিগারেটের ছবি দেখা যায়। যা দেখে কল্পনায় ধূমপান করা যায়। শুধু তাই নয়, ভার্চুয়াল সিগারেটটি তাড়াতাড়ি পোড়ানোর ব্যবস্থাও রাখা হয়েছে এতে।

মেটাল ডিটেক্টর

আপনার আশেপাশে থাকা জিনিসপত্রে মেটালের উপস্থিতি কতটুকু তা জানাতে অ্যাপটি স্মার্টফোনের ম্যাগনেটিক সেন্সর ব্যবহার করে থাকে। অ্যাপটি চালু করা অবস্থায় বিভিন্ন জিনিসের ওপরে স্মার্টফোনে ধরতে হবে। এতে করে জিনিসপত্রে মেটালের পরিমাণ কতো তা জানা যাবে।

ইলেকট্রিক শেভার

অ্যাপ দিয়ে শেইভ করার কোনো উপায় নেই। ভার্চুয়ালভাবে কিভাবে শেইভ করতে হয় তা কেবল ইলেকট্রিক শেভার অ্যাপটির মাধ্যমেই  জানা সম্ভব। অ্যাপটিতে ট্রিমার দিয়ে শেইভ করার একটি ছবি আছে। যাতে দাঁড়ির পুরুত্ব, রঙ ও হেয়ার ট্রিমারের শব্দ যুক্ত করা যায়।

অ্যান্টি মসকিউটো সাউন্ড সিমুলেটর

অ্যাপটি মজার ছলে তৈরি করা হয়নি। মশার মাকড় থেকে বাঁচার জন্যই অ্যাপটি তৈরি করে হয়েছিলো। কিন্তু অ্যাপটির ডেভেলপার নিজেই সন্দিহান অ্যাপটির আল্ট্রাসনিক সাউন্ড আদৌ মশা তাড়াতে সক্ষম কিনা।

হোডর কিবোর্ড লাইট

যারা গেইম অব থ্রোনস দেখেন, তাদের কাছে নামটি বেশ পরিচিত। এই সিরিজের একটি চরিত্র হোডর। যিনি এই একটি শব্দ ব্যতীত আর কোনো শব্দ উচ্চারণ করতে পারেন না। হোডর অ্যাপটিও ঠিক তাই। এতে একটি কিবোর্ড আছে যেখানে হোডর ছাড়া অন্য কোনো শব্দ লেখা যায় না।

ইউজলেস
নামের সঙ্গে মিল রেখেই অ্যাপটি বানানো হয়েছে। এতে কোনো ফিচার নেই। তাই কোনো কিছু ঘাঁটাঘাঁটি করে সময় কাটানো যায় না। ডেভেলপারদের দাবি, এটাই পৃথিবীর প্রথম মাল্টি-আনফাংশনাল অ্যাপ।

ফেসবুক থেকে মন্তব্যঃ

Leave A Reply