ওয়ালটন প্রিমো জিএম ৩-Primo GM3 স্মার্টফোনটির ফুল হ্যান্ডস অন রিভিউ

0

১৮ঃ৯ রেসিও ডিসপ্লে এর সাথে ওয়ালটন বাজারে নিয়ে এসেছে তাদের নতুন একটি স্মার্টফোন প্রিমো জিএম৩। অবশ্য বরাবর এর মত এটিও ওয়ালটন এর একটি বাজেট রেঞ্জ স্মার্টফোন; আর এটি বাজারে পাওয়া যাবে ৭১৯৯ তথা ৭২০০ টাকায়। স্মার্টফোনটির ৫.৩৪ ইঞ্চি বিশাল ডিসপ্লে এর সাথে এর আরেকটি প্লাস পয়েন্ট হলও এর পিছে ১৩ মেগাপিক্সেল এবং সামনের ৫ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা। আর এটা মানতেই হবে ওয়ালটন এর বিগত স্মার্টফোন গুলিতে ক্যামেরা এর দিক দিয়ে অনেক বেশি ইম্প্রুভমেন্ট লক্ষ্য করা গিয়েছে। ১৮ঃ৯ রেসিও ডিসপ্লে এর সাথে এর আরেকটি আকর্ষণীয় দিক হল স্মার্টফোনটির অপারেটিং সিস্টেম যেটা হল অ্যান্ড্রয়েড অরিও [গো] ৮.১  অপারেটিং সিস্টেম।

এক নজরে প্রিমো জিএম৩ স্মার্টফোনঃ

  • ৫.৩৪ ইঞ্চি ফুল ভিউ আইপিএস ডিসপ্লে
  • অ্যান্ড্রয়েড অরিও [গো] ৮.১  অপারেটিং সিস্টেম
  • ১.২৭ গিগাহার্জ কোয়াড কোর ডিসপ্লে
  • ১ জিবি র‍্যাম, ৮ জিবি রম
  • ১৩ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা সাথে এলইডি ফ্ল্যাশ
  •  ৫ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা সাথে এলইডি ফ্ল্যাশ
  • ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর
  • ৪০০০ এমএএইচ লিথিয়াম পলিমার ব্যাটারি

ইউজার ইন্টারফেস

ডিভাইসটিতে অ্যান্ড্রয়েড অরিও গো ভার্সন ব্যবহার করা হয়েছে। আর বেশিরভাগ ক্ষেত্রে এখানে ইউজার ইন্টারফেসে ব্যবহারকারী পুরোপুরি অরিও গো ভার্সন  এর স্বাদ পাবেন।

অরিও গো ভার্সন টিকে তৈরি করা হয়েছে লোয়ার স্পেসিফিকেসন অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোনগুলির জন্য; আর তাই এতে সকল কিছুই আপনি একটি  লাইট  অ্যান্ড্রয়েড ফিলিংস পাবেন ; আর বিল্ট ইন ইউটিউব গো, জিমেইল গো এর মত অ্যাপলিকেশন দেখতে পারবেন।

হার্ডওয়্যার

ওয়ালটন এবার তাদের মালি জিপিইউ থেকে বের হয়ে এই স্মার্টফোনটিতে ব্যবহার করেছে ইমাজিনেশন টেকনোলজিস এর পাওয়ার ভিআর জিপিইউ; আর এই জিপিইউ মডেলটি হল PowerVr Rogue Ge8100। প্রসেসর হিসেবে এতে থাকছে মিডিয়াটেক MT6739 চিপসেট ; যার বাজ স্পীড ১.২৭ গিগাহার্জ- আর এটি একটি কোয়াড কোর প্রসেসর।

ডিভাইসটির সম্পূর্ণ ৮৬৮ এমবি র‍্যাম এর ভিতর প্রায় ৩৫১ এমবি তথা ৪০% এর মত র‍্যাম ফাকা থাকে। সম্পূর্ণ ৮ জিবি স্টোরেজ এর ভেতর এর ৫.১৩ জিবি স্টোরেজ ব্যবহার যোগ্য। গিগবেঞ্চ বেঞ্চমার্ক অ্যাপে এই স্মার্টফোনটির সিঙ্গেল কোরে স্কোর এসেছে  ৫৮২ এবং মাল্টি কোরে এসেছে ১৩৩৭।

ক্যামেরা

ডিভাইসটির পিছনে/রিয়ার প্যানেলে রয়েছে ১৩ মেগাপিক্সেল অটো ফোকাস ক্যামেরা। এই ক্যামেরায় সিঙ্গেল এলইডি ফ্ল্যাস এবং অটোফোকাস সুবিধা থাকছে। রিয়ার ক্যামেরার শুটিং মোড গুলো হলঃ প্যানারোমা, এইচডিআর, ফেস বিউটি এবং নরমাল মোড। ফ্রন্ট ক্যামেরার শুটিং মোড গুলো হলঃ এইচডিআর, ফেস বিউটি এবং নরমাল মোড। ক্যামেরার সেটিংস অপশনগুলো হল: এক্সপোসার কন্ট্রোল, হোয়াইট ব্যালেন্স, আইএসও ব্যালেন্স, ইমেজ প্রোপার্টিজ, কালার ইফেক্ট। ক্যামেরাটি ১৯২০*১০৮০ পিক্সেল রেজুলেশনে ভিডিও রেকর্ড করতে পারে।

ডিভাইসটির সামনে রয়েছে একটি ফ্রন্ট ফেসিং ৫ মেগাপিক্সেল BSI সেন্সরযুক্ত ক্যামেরা। সামনেও থাকছে একটি সফট এলইডি ফ্ল্যাশ। রয়েছে বেশ কিছু ক্যামেরা সেটিংস। আর শুটিং মোড হিসেবে রয়েছে ; নরমাল মোড, ফেস বিউটি, এইচডিআর, স্ক্রীন মোড।

ডিসপ্লে ও বডি

ডিসপ্লে এর দিক দিয়েও এটি আগের প্রিমো জিএফ ৭ এর মতই। এই ডিভাইসটিতে রয়েছে ৫.৩৪” ইঞ্চি এর এইচডি আইপিএস প্যানেল। আর এটিও একটি ১৮:৯ রেশিও এর ফুল ভিউ ডিসপ্লে।

গেমিং, মুভি ওয়াচিং এর ক্ষেত্রে এটি অবশ্যই প্লাস পয়েন্ট। এটি FWVGA+ ডিসপ্লে যার রেজুলেশন ৪৮০*৯৬০ পিক্সেল। ডিভাইসটি ৫ ফিংগার মাল্টিটাচ সাপোর্টেড। আইপিএস ডিসপ্লে হওয়ার কারনে নি:সন্দেহে ভিউইং অ্যাঙ্গেল নিয়ে কোন সমস্যা হওয়ার কথা না।

একইভাবে ডিসপ্লেটি সাইড দিয়ে ২.৫ ডি কার্ভড হওয়ার কারনে স্মার্টফোনের ডিজাইনকে এটি বাড়িয়ে দিয়েছে কয়েকগুণে।

ডিভাইসটি লম্বায় ১৪৪.৭ মিলিমিটার, প্রস্থে ৭০ মিলিমিটার। ডিভাইসটির পুরুত্ব ৯.৬৫ মিলিমিটার। ব্যাটারিসহ এই প্রিমো জিএম৩ ডিভাইসটির ওজন ১৮০ গ্রাম। ডিভাইসটিকে ব্যাক আপ দিবে একটি ৪০০০ এমএএইচ লিথিয়াম পলিমার ব্যাটারি, ব্যাটারিটি নন রিমুভেবল।  ডিভাইসটির ব্যাকপার্টও রিমুভেবল। স্মার্টফোনটির ফ্রন্ট প্যানেলে নিচের দিকে পাওয়া যাবে একটি ফিংগারপ্রিন্ট সেন্সর। ডিভাইসটির ব্যাক  সাইড দেখতে শাওমি রেডমি নোট ৫ প্রো এর মত। ডিভাইস নীল, সোনালী এবং কালো রঙে বাজারে পাওয়া যাবে।

নেটওয়ার্ক

ডিভাইসটি ৪জি কানেক্টিভিটি সাপোর্টেড।

 

ফেসবুক থেকে মন্তব্যঃ

Leave A Reply