দেশে ফোরজি চালুর আগে গতি কমনোর ছাড় পাচ্ছে মোবাইল ফোন অপারেটরগুলো

0

দেশে ফোরজি চালুর আগে আরও ছাড় পাচ্ছে মোবাইল ফোন অপারেটরগুলো। এবার চতুর্থ প্রজন্মের এ টেলিযোগাযোগ সেবার সর্বনিম্ন গতি কমানো হয়েছে।

শুরুতে ফোরজির সর্বনিম্ন গতি এক জিবিপিএস নির্ধারণের কথা বলা হলেও অপারেটগুলোর আপত্তির মুখে সেখান থেকে সরে এসেছে টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন বিটিআরসি।

ফোরজির সর্বশেষ সংশোধিত নীতিমালায় এ সেবার ন্যূনতম গতি ২০ এমবিপিএস নির্ধারণ করা হয়েছে। একই সঙ্গে এতে মহাসড়কে চলাচলকালে ও ট্রেনে ভ্রমণের সময় শুধু ইন্টারনেটের গতি সর্বনিম্ন হতে পারবে বলে উল্লেখ করা হয়েছে।

এর আগে চূড়ান্ত নীতিমালা নিয়ে অপারেটরগুলো যে ২৩ আপত্তি দিয়েছিল, সেগুলোর মধ্যে গতি বিষয়ক আপত্তিও ছিল।

এদিকে গত বেশ কয়েক মাস ধরে বড় তিনটি অপারেটর ফোরজি নিয়ে তাদের নেটওয়ার্কে যে পরীক্ষা চালিয়েছে, সেখানে তারা ৫০ থেকে ৯০ এমবিপিএস গতির ডেটা ডাউনলোড করতে পেরেছে।

অন্যদিকে বিটিআরসি সম্প্রতি ফোরজি’র কোয়ালিসিটি অব সার্ভিসের একটি খসড়া নীতিমালা প্রকাশ করে এ বিষয়ে সংশ্লিষ্টদের মতামত চেয়েছে।

এতে আপলিংকের ক্ষেত্রে সর্বনিন্ম গতি বলা হয়েছে ৫ এমবিপিএস।

অবশ্য গতি নির্ধারণের এ প্রক্রিয়াকে হাস্যকর বলে মন্তব্য করেন অপারেটরগুলোর কর্মকর্তারা। তাদের বক্তব্য, ৫ এমবিপিএস-এর ওপরের গতির মোবাইল ইন্টারনেটকেই ফোরজি বা এলটিই হিসেবে বিবেচনা করা হয়।

তবে ন্যূনতম গতির পরিমাপ ১ জিবিপিএস থেকে সরে আসায় অপারেটরগুলো সন্তুষ্ঠি প্রকাশ করেছে বলে জানিয়েছেন কর্মকর্তারা।

দেশে বর্তমানে ব্রডব্যান্ডের যে সংজ্ঞা নির্ধারণ করা হয়েছে সেখানেও ৫ এমবিপিএস গতির কথা বলা হয়েছে।

ফেসবুক থেকে মন্তব্যঃ

Leave A Reply