কম বাজেটের সেরা ল্যাপটপ

0

এটি একটি Sponsored পোস্ট। এই Sponsored পোস্টটির নিবেদন করছে ‘Star Tech‘ Sponsored পোস্ট by PC Helpline BD Ads | পিসি হেল্পলাইন বিডিতে বিজ্ঞাপণ দিতে ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সাপ্তাহিক আলোচনায় আপনাকে স্বাগতম। বর্তমানে আমাদের প্রযুক্তি পণ্যের বাজরে ল্যাপটপ কেনার প্রবর্তন তুলনামুলক বৃদ্ধি পেয়েছে।  খুব দরকার না হলে এখন ডেক্সটপ পিসি আর খুব একটা কিনতে দেখা যায় না। ল্যাপটপ হালকা ও খুব  সহজে বহন যোগ্য হবার কারনে অফিস কর্মী থেকে শুরু করে শিক্ষার্থীদের কাছে ল্যাপটপ ক্রমেই জনপ্রিয় হয়ে উঠতে শুরু করেছে। বর্তমানের ল্যাপটপ গুলো আরও শক্তিশালী করে তৈরি করা হয়েছে। এখন ল্যাপটপ এর কুলিং সিস্টেম আগের থেকে অনেক উন্নত করা হয়ছে। হাই রেজুলেশন এর গেম, ভারী কাজ (ফটোশপ, ইলাসস্টেটর, মায়া, ওয়েব ডেভলোপমেন্ট, থ্রিডি) অনায়াসে ল্যাপটপ দিয়ে এখন করা যায়। বর্তমানে ডাটা এন্ট্রি এর কাজের জন্য ল্যাপটপ এর জুড়ি নেই।

আজকে আমরা আলোচনা করবো এমন কিছু ল্যাপটপ নিয়ে যেগুলোর বাজেট ৩০ হাজার থেকে ৩৫ হাজার টাকার ভিতরে।

আর এই ল্যাপটপ দিয়ে আপনি আপনার অফিসিয়াল কার্যক্রম যেমন টানা টাইপিং, ওয়েব ব্রাউজিং, অফিসিয়াল প্রেজেন্টেশন করার পাশাপাশি কিছু ভারী কাজ করতে পারবেন। অনেক শিক্ষার্থী প্রশ্ন করে থাকেন পড়ালেখার জন্য কেমন ল্যাপটপ কিনলে ভাল হবে? আজকে আমরা এই বিষয় গুলো নিয়ে কথা বলব।

একটি ভাল মানের ল্যাপটপ কেনার আগে বেশ কিছু হিসাব নিকাশ এর দরকার যেমন-

  • প্রসেসরঃ প্রসেসর হলো এর মস্তিষ্ক। বলা যায় একটি ল্যাপটপের প্রায় সব কিছুই নিয়ন্ত্রণ করে প্রসেসর। বিভিন্ন নন-গেমিং অ্যাপ্লিকেশনও (যেমন-ওএস, ব্রাউজার, অন্যান্য অ্যাপ) নিয়ন্ত্রণ করে প্রসেসর। ল্যাপটপ কেনার সময় সিপিইউ বা প্রসেসরের ক্ষেত্রে বেছে নিতে হবে ইন্টেল। এএমডি’র সিপিইউ সম্বলিত ল্যাপটপের পারফরমান্স ইন্টেল এর তুলনায় একটু লো  । বর্তমানে ষষ্ঠ প্রজম্ন থেকে অষ্টম প্রজন্মের প্রসেসর সম্বলিত ল্যাপটপ আছে তবে এখন ৭ম এবং ৮ম প্রজম্নের ল্যাপটপ কেনাই ভাল। ৮ম প্রজন্মের দাম একটু তুলনামূলক বেশি।
  • র‍্যামঃ  ল্যাপটপ এর জন্য আদর্শ হল হল ৪ জিবি র‍্যাম।
  • ডিসপ্লেঃ ১৪” ডিসপ্লে সম্বলিত ল্যাপটপ গুলোতে নিউমেরিক প্যাড গুলো থাকে না আর বহনে একটু সুবিধা পাওয়া যায়। ১৫’’ ডিসপ্লে তুলনামুলক একটু ভারী  হয়।

বেশ কয়েক বছর ধরে এইচপি বাংলাদেশের ল্যাপটপ মার্কেট ধরে রেখেছে, মূলত তাদের এই সাফল্যের পিছনে রয়েছে কম বাজেটে বেশ কিছু ভাল মানের ল্যাপটপ তৈরি এবং অতি দ্রুত সময়ে বিক্রয় পরবর্তী সেবা প্রদান। এরপর যদি আমরা ল্যাপটপ এর রেটিং দেখে ক্রম সাজাই তবে আসুস ধারাবাহিক ভাবে আমাদের দেশের ল্যাপটপ মার্কেটে একটি শক্ত স্থানে আছে।  এরপর লেনেভো, ডেল, এসার ধারাবাহিক ভাবে তাদের নিজ নিজ অবস্থানে রয়েছে।

সেরা কম বাজেটের ল্যাপটপ

এইচপি ১৫বিএস৬৩২টিউ
আমাদের পছন্দের তালিকায় প্রথম ল্যাপটপ হিসেবে এই ল্যাপটপটি রেখেছি। ষষ্ঠ প্রন্মের ২.০ গিগাহার্জ ইন্টেল কোর আই ৩ প্রসেসর সম্বলিত এই ল্যাপটপে ৪ জিবি র‍্যাম থাকায় এই ল্যাপটপটি দিয়ে প্রায় সব ধরনের কাজ করতে পারবেন। ১৫.৬ ইঞ্চি ডিসপ্লে থাকায় আপনি কাজের ক্ষেত্রে একটু বেশি সুবিধা পাবেন। এর ওজন ১.৮৬ কেজি হওয়াতে আপনি খুব সহজেই বহন করতে পারবেন। আর এই ল্যাপটপটি এন্টি স্ক্রাচ হওয়াতে উপরের ঢাকনাতে কোন দাগ পড়বেনা, ফলে আপনার ল্যাপটপ নতুন এর মত থাকবে। ইন্টেল এইচডি গ্রাফিক্স ৫২০ থাকায় আপনি বেশ কিছু নতুন বা পুরাতন গেম খেলতে পারবেন। ৪ সেল এর লিথিয়াম ব্যাটারি থাকায় প্রায় সাড়ে চার ঘণ্টা থেকে পাঁচ ঘণ্টা পর্যন্ত আপনি ব্যাকআপ পাবেন। একটি এইডিএমআই পোর্ট, দ্রুত ডেটা ট্রান্সফার এর জন্য রয়েছে ইউসবি ৩.০ পোর্ট, একটি ইউসবি ২.০ পোর্ট, ল্যান কানেকশন এর জন্য একটি আরজে- ৪৫ ইথারনেট
ল্যাপটপটি দুই বছরেরে আন্তর্জাতিক বিক্রয় সেবা সহ দাম পরবে ৩৪,০০০ টাকা। প্রোডাক্টটি ঘরে বসে অনলাইন এ অর্ডার করতে এখানে ক্লিক করতে পারেন।

আসুস এক্স৫০৭ইউএ
আসুসের এক্স৫০৭ ইউএ আমাদের পছন্দের তালিকায় ২য় অবস্থান এ রেখেছি। ব্র্যান্ড হিসেবে আসুস এর সুখ্যাতি রয়েছে সারা বিশ্বব্যাপী। এ মডেলটি তাদের কম বাজেটের মডেলগুলোর মধ্যে বেশ জনপ্রিয়। ১৫.৬ ইঞ্চির বিশাল স্ক্রীনের এই ল্যাপটপটিতে ব্যবহার হয়েছে ষষ্ঠ প্রন্মের ২.০ গিগাহার্জ ইন্টেল কোর আই ৩ প্রসেসর, ৪ জিবি র‌্যাম এবং ১০০০ জিবি হার্ডডিস্ক। উন্নত ও শক্তিশালী প্রসেসর এবং বিশাল স্ক্রীণ সাইজ মূলত এই ল্যাপটপটির সবচেয়ে ভাল দিক হিসেবে বিবেচিত হতে পারে। আসুসের ব্র্যান্ড ভ্যালুও আরেকটি আকর্ষণীয় ব্যাপার হিসেবে রয়েছে। ল্যাপটপটি ওজনে মাত্র ১.৬০ কেজি তাই বহনে খুব একটা বেগ পেতে হবে না। নতুন বা পুরাতন গেম খেলার জন্য রয়েছে ইন্টেল এইচডি গ্রাফিক্স ৫২০। দ্রুত ডেটা ট্রান্সফার এর জন্য রয়েছে ইউসবি ৩.০ পোর্ট আরও আছে এইচডি ওয়েব ক্যামেরা।  জেনুইন উইন্ডোজ ১০ অপারেটিং সিস্টেম থাকায় মাইক্রোসফট এর প্রিলোডেড কিছু অ্যাপ্লিকেশান পাবেন যেমন করটনা , মাইক্রোসফট অফিস, ওয়ানড্রাইভ, মাইক্রোসফট স্টোর। ৩ সেল এর লিথিয়াম হাই পারফরমান্স ব্যাটারি থাকায় প্রায় সাড়ে চার ঘণ্টা থেকে পাঁচ ঘণ্টা পর্যন্ত আপনি ব্যাকআপ পাবেন।
ল্যাপটপটি এক বছরেরে বিক্রয় সেবা সহ দাম পরবে ৩৪,৮০০ টাকা। প্রোডাক্টটি ঘরে বসে অনলাইন এ অর্ডার করতে এখানে ক্লিক করুন

ডেল ইন্সপিরিওন এন৩৫৬৭
ব্র্যান্ড ভ্যালুর বিচারে ডেল-এর এই মডেলটিও অন্যান্যগুলোর তুলনায় খুব একটা কম যায় না। ষষ্ঠ প্রন্মের ২.০ গিগাহার্জ ইন্টেল কোর আই ৩ প্রসেসর এবং ৪ জিবি র‌্যাম এই মডেলটিকে কাজ চালানোর প্রয়োজনীয় শক্তি সরবরাহ করছে। ১০০০ জিবি হার্ডডিস্ক এর সাথে ১৫.৬ ইঞ্চি এর এইচডি ডিসপ্লে যাতে আপনি যেকোনো এইচডি মুভি বা ইউটিউব থেকে ১০৮০পি এর ভিডিও দেখতে পারবেন।  ল্যাপটপটি অন্যান্য ল্যাপটপ এর তুলনায় একটু ভারী এর ওজন ২ কেজির উপরে। এতে হাই ডেফিনেশন মাক্স অডিও প্রো সিস্টেম থাকায় আপনি ক্লিয়ার সাউন্ড পাবেন যে কোন ভলিয়মে। ইন্টেল এইচডি গ্রাফিক্স ৫২০ থাকায় আপনি ফটোশপ এর কাজ ছাড়াও কিছু নতুন পুরাতন গেম খেলতে পারবেন।  দ্রুত ডেটা ট্রান্সফার এর জন্য রয়েছে ইউসবি ৩.০ পোর্ট আরও আছে এইচডি ওয়েব ক্যামেরা। ২ সেল এর লিথিয়াম হাই পারফরমান্স ব্যাটারি থাকায় প্রায় চার ঘণ্টা পর্যন্ত আপনি ব্যাকআপ পাবেন।
ইন্সপিরিওন এন৩৫৬৭ এক বছরেরে বিক্রয় সেবা সহ দাম পরবে ৩২,৫০০ টাকা। প্রোডাক্টটি ঘরে বসে অনলাইন এ অর্ডার করতে এখানে ক্লিক করুন।

এসার এস্পায়ার ই৫-৪৭৫
বাংলাদেশের ল্যাপটপের ব্র্যান্ড ভ্যালুর বিচারে এসার এর অবস্থান একটু নিচের দিকে। আমরা উপরে যে তিনটি ল্যাপটপ নিয়ে আলোচনা করেছি সবগুলো ষষ্ঠ প্রজন্মের কিন্তু এসার এস্পায়ার ই৫-৪৭৫ এই ল্যাপটপটিতে সপ্তম প্রজন্মের ২.৪০ গিগা হার্জ ইন্টেল কোর আই ৩ প্রসেসর, ৪ জিবি র‌্যাম ১০০০ জিবি হার্ডডিস্ক ড্রাইভ রয়েছে। এতে আরও আছে ১৪ ইঞ্চি সিনে ক্রিস্টাল এইচডি ডিসপ্লে, ব্লু লাইটসেল্ড থাকায় চোখের কোন ক্ষতি করে না। এসার ই সিরিজ এর ল্যাপটপ গুলো লং লাস্টিং, যাদের প্রতিদিন অনেক সময় ধরে ল্যাপটপ ব্যবহার করে থাকে তাদের জন্য বিশেষ করে ডিজাইন করা হয়ছে। গ্রাফিক্স হিসেবে এই মডেল এ ইন্টেল এইচডি গ্রাফিক্স ৫২০ থাকায় আপনি উপরেরে ল্যাপটপ গুলোর মতনই ভারী কাজের পাশাপাশি গেম খেলতে পারবেন। একটি ইউসবি ২.০ পোর্ট দুইটি ইউসবি ৩.০ পোর্ট রয়েছে ডাটা ট্রান্সফার এর জন্য। অডিও হিসেবে রয়েছে এসার এর নিজস্ব এসার ট্রুহারমনি সিস্টেম। ট্রুহারমনি সিস্টেম ডিপ বেস এর পাশাপাশি অধিক ভলিয়ম সরবরাহ করে থাকে। এতে ব্যবহার করা হয়েছে অত্যাধুনিক টাচপ্যাড যা গতানুগতিক ধারার থেকে একটু আলাদা। ২৮০০ মিলি এম্পিয়ার ও ৪ সেল যুক্ত ব্যাটারি প্রায় ৭ ঘণ্টার উপরে ব্যাকআপ দিতে সক্ষম।
ল্যাপটপটি দুই বছরেরে আন্তর্জাতিক বিক্রয় সেবা সহ দাম পরবে ৩৫,৫০০ টাকা। প্রোডাক্টটি ঘরে বসে অনলাইন এ অর্ডার করতে এখানে ক্লিক  করুন।

আসুস ভিভোবুক ফিল্প ১২ টিপি২০৩এনএএইচ
আমরা আমাদের পছন্দের শেষ ল্যাপটপটি নিয়ে কথা বলব। এই ল্যাপটপটি শিক্ষার্থীদের জন্য একটি আদর্শ ল্যাপটপ। ল্যাপটপটি একটি এফোর পেপারের থেকেও ছোট এবং এর ওজন মাত্র ১.১কেজি। ফলে যেকোনো স্থানে খুব সহজে বহন করা যায়। ভিভোবুক ফিল্প ১২ সর্বশেষ ইন্টেল সেলেরন কোয়াড কোর প্রসেসর দ্বারা চালিত। এই প্রসেসর ৩০% বেশি শক্তিশালী এবং ৪৫% বেশি গ্রাফিক্স পারফরমান্স দেয় পূর্বপ্রজন্মের প্রসেসর থেকে। ৪ জিবি র‌্যাম এবং ১০০০ জিবি হার্ডডিস্ক রয়েছে। ৩৬০ ডিগ্রি ১১.৬ ইঞ্চি ডিসপ্লে থাকায় আপনি ট্যাব হিসেবে এই ল্যাপটপটি ব্যবহার করতে পারবেন। ল্যাপটপটিতে আরও রয়েছে ইন্টেল এইচডি গ্রাফিক্স ৫০০। ট্যাব মুড দিয়ে আপনি ১০ আঙুল ব্যবহার করতে পারবেন। এর টাচ প্যাড অন্য সব ল্যাপটপ থেকে একটু বড়। ল্যাপটপটি প্রায় আপনাকে ৮ ঘণ্টার উপরে ব্যাকআপ দিবে। এতে দুইটি ইউসবি ৩.০ একটি টাইপ সি পোর্ট আছে।
জেনুইন উইন্ডোজ ১০ আর দুই বছরের বিক্রয় সেবা সহ দাম মাত্র ৩৩,৫০০ টাকা।  প্রোডাক্টটি ঘরে বসে অনলাইন এ অর্ডার করতে এখানে  ক্লিক করুন।

এছাড়া আপনি আমাদের সকল ল্যাপটপ এর দাম এবং স্পেসিফিকেশন গুলো দেখতে ভিসিট করুন  আমাদের অনলাইন শপ

ফেসবুক থেকে মন্তব্যঃ

Leave A Reply